কুয়াশাচ্ছন্ন, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৪ ডিসেম্বর ২০১৬, ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, রবিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

বলতে চাই ॥ শোনার মানুষ নাই

প্রকাশিত : ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০১৫
  • খোকন আহম্মেদ হীরা, বরিশাল থেকে

ভাষাসৈনিক আজাহার বলেছিলেন ॥ মহান রাষ্ট্রভাষা আন্দোলনে বরিশালের সবার প্রিয় ব্যক্তিত্ব ভাষা সংগ্রামী, মুক্তিযোদ্ধা সংগঠক ও দক্ষিণাঞ্চলের ঐতিহ্যবাহী কিশোর মজলিসের প্রতিষ্ঠাতা এ.কে.এম. আজাহার উদ্দিন ডায়াবেটিক, উচ্চ রক্তচাপসহ বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত হয়ে গত বছরের ৮মে সন্ধ্যায় ৮২ বছর বয়সে চির বিদায় নিয়েছেন। ৯ মে সকাল দশটায় ভাষাসৈনিকের প্রিয় প্রতিষ্ঠান কিশোর মজলিস কমপ্লেক্স প্রাঙ্গণে সর্বস্তরের জনতার শেষ শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে তাকে পারিবারিক গোরস্তানে দাফন করা হয়।

২০১৪ সালের ২১ ফেব্রুয়ারি দৈনিক জনকণ্ঠের চতুরঙ্গ পাতায় ‘বলতে চাই- শোনার মানুষ নাই’ শিরোনামে প্রকাশিত সাক্ষাতকারটি ভাষাসৈনিক এ কে এম আজাহার উদ্দিনের জীবনের শেষ সাক্ষাতকার। মাত্র তিন মাসের ব্যবধানে ভাষাসৈনিক আজাহার উদ্দিন চিরদিনের জন্য হারিয়ে গেছেন। এক বছর পর সেই একই দিনে তাঁকে নিয়ে লিখতে গিয়ে বার বার একটি কথাই মনে পড়ছে ‘কে বলে আজ তুমি নাই, তুমি আছো, মন বলে তাই।’ শহীদ ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসে তাঁর স্মৃতির প্রতি গভীর শ্রদ্ধা জানিয়ে ২০১৪ সালের সাক্ষাতকারটি সংক্ষিপ্তাকারে তুলে ধরা হলো।

২০১৪ সালের ৭ ফেব্রুয়ারি বিকেলে সাক্ষাতকার গ্রহণের জন্য নগরীর দক্ষিণ আলেকান্দা মহল্লার রুমিবাগের বাসায় বসে প্রায় দু’ঘণ্টা আলাপচারিতা হয়েছিল ভাষাসৈনিক এ কে এম আজাহার উদ্দিনের সঙ্গে। এই সময় অসুস্থ শরীর নিয়েও ভাষা-আন্দোলন, মুক্তি সংগ্রাম, বর্তমান রাজনীতি ও নানা প্রসঙ্গ নিয়ে এ কে এম আজাহার উদ্দিনের সঙ্গে জমে ওঠে একান্ত আলাপচারিতা।

ভাষাসৈনিক আজাহার উদ্দিন : প্রথম স্বপ্ন দেখেছিলাম ’৫২-এর ভাষা আন্দোলনের বিজয়ের মাধ্যমে। এরপর মাত্র ১৯ বছর। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ডাকে সাড়া দিয়ে জীবনবাজি রেখে ৯ মাস ঐক্যবদ্ধ বীরত্বপূর্ণ লড়াই করে ১৯৭১ সালে ছিনিয়ে এনেছিলাম সবুজে রক্তে লাল বিজয় পতাকা। জাতির এক বিরল বিজয় অর্জনের পাশাপাশি জন্ম নেয় স্বাধীন বাংলাদেশ নামের একটি রাষ্ট্র। কিন্তু এরপর ’৭৫ পরবর্তী সময় থেকে একের পর এক ছন্দপতন ঘটতে থাকে।

জন্ম ও সংগ্রামী জীবন ॥ নগরীর দক্ষিণ আলেকান্দা মহল্লার বাসিন্দা মেছের আলী হাওলাদারের ৩ পুত্র ও ২ কন্যার মধ্যে সবার ছোট আজাহার উদ্দিন জন্মগ্রহণ করেন ১৯৩২ সালে। ১৯৫২ সালে বরিশাল নগরীর এ কে মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণীতে অধ্যয়নরত অবস্থায় রাষ্ট্রভাষা বাংলার দাবিতে তরুণ আজাহার উদ্দিন রাজপথে ঝাঁপিয়ে পড়েন। তৎকালীন সময়ে পুলিশের বাধা উপেক্ষা করে তার নেতৃত্বে বিভিন্ন আন্দোলন সংগ্রামে এ কে মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের বিভিন্ন শ্রেণীর ৫৫০ শিক্ষার্থী রাজপথে অংশগ্রহণ করেছিলেন। বরিশালে তারাই প্রথম ‘রাষ্ট্রভাষা বাংলা চাই’ সেøøাগান নিয়ে রাজপথে নামেন। এরপর বরিশাল বি এম স্কুলসহ বিভিন্ন স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থীরা রাজপথে নামেন।

প্রকাশিত : ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০১৫

২৮/০২/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


ব্রেকিং নিউজ: