রৌদ্রজ্জ্বল, তাপমাত্রা ২৩.৯ °C
 
৯ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, শুক্রবার, ঢাকা, বাংলাদেশ

উইন্ডিজকে উড়িয়ে দিল প্রোটিয়ারা

প্রকাশিত : ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০১৫

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ বিশ্বকাপে কী হচ্ছে, রেকর্ড আর একপেশে ম্যাচের ছড়াছড়ি! আগাম উত্তাপের লড়াই হয়ে উঠছে একবারে পানশে। দক্ষিণ আফ্রিকা-ওয়েস্ট ইন্ডিজ দ্বৈরথটিকেও দেখা হচ্ছিল ‘হাইভোল্টেজ’, হিসেবে, সেখানে ‘হাই’ কোথায়? ভোল্টেজও উধাও! যা দেখানোর ব্যাট হাতে একাই দেখালেন এবি ডি ভিলিয়ার্স। সিডনিতে প্রোটিয়া অধিনায়কের দ্রুততম দেড় শ’ রানের রেকর্ড (৬৬ বলে অপরাজিত ১৬২) ইনিংসে ভর করে ৫ উইকেটে ৪০৮ রানের পাহাড় গড়ে দক্ষিণ আফ্রিকা। জবাবে ৩৩.১ ওভারে ১৫১ রানে গুটিয়ে যাওয়া ক্যারিবীয়রা হারে ২৫৭ রানের বড় ব্যবধানেÑ রানের হিসেবে যৌথভাবে বিশ্বকাপে বড় জয়ের রেকর্ড গড়ে প্রোটিয়ারা! ২০০৭ বিশ্বকাপে বারমুডাকেও ২৫৭ রানে হারিয়েছিল ভারত। দুরন্ত ইনিংসের পর ম্যাচের নায়ক যে ডি ভিলিয়ার্স সেটি বলা বাহুল্য।

ভিলিয়ার্স তা-বে ৪০৮ রানের পর ম্যাচটা আসলে সেখানেই শেষ। এরপরও দেখার ছিল ক্রিস গেইল কী করেন? যিনি দুই দিন আগে জিম্বাবুইয়ের বিপক্ষে প্রথম ব্যাটসম্যানর হিসেবে বিশ্বকাপে ডাবল সেঞ্চুরি (২১৫) হাঁকিয়ে হৈ চৈ ফেলে দিয়েছিলেন। কিন্তু আগের ম্যাচের নায়ক কাল নিভে গেলেন জ্বলে ওঠার আগেই। মাত্র ৩ রান করে পেসার কাইল এ্যাবটের বলে পরিষ্কার বোল্ড হয়ে সাজঘরে ফেরেন ক্যারিবিয়ান ব্যাটিং-দৈত্য। দলীয় ১২ রানের মাথায় গেইল ফেরার পর শুরু হয় ওয়েস্ট ইন্ডিজের উইকেট পতনের মিছিল। দলীয় ১৬ রানে দ্বিতীয়, ৫২ রানে তৃতীয় ও চতুর্থ, ৫৩ রানে পঞ্চম এবং ৬৩ রানে ষষ্ঠ ও সপ্তম উইকেট হারিয়ে গর্তে ঢুকে যায় জিম্বাবুইয়ের বিপক্ষে আগের ম্যাচে রানের বন্যা বইয়ে দেয়া ক্যারিবীয়রা!! যেখান থেকে উত্তোরণের কোন পথই ছিল না তাদের।

উইন্ডিজ ব্যাটসম্যানদের চরম ভরাডুবির মাঝে ব্যাট হাতে কিছুটা প্রায়শ্চিত করে ব্যবধান কমিয়েছেন অধিনায়ক। নয় নম্বরে নামা জেসন হোল্ডার ৪৮ বলে করেছেন সর্বোচ্চ ৫৬ রান। ছিল ৩ চার ও ৪ ছক্কার মার। নবম উইকেটে জেরমো টেইলরকে নিয়ে গড়েন ৪২ রানের জুটি। ইনিংসের একমাত্র হাফ সেঞ্চুরির ইনিংসের পর ডেল স্টেইনের শিকারে পরিণত হন হোল্ডার। শেষ ১ রানের মধ্যে ২ উইকেটের পতন হওয়া উইন্ডিজ গুটিয়ে যায় ১৫১ রানে। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ৩১ ওপেনার ডোয়াইন স্মিথের। এছাড়া দিনেশ রামদিন ২২ ও জোনাথন কার্টার ১০ রান করে আউট হন। ব্যাট হাতে ক্যারিবীয়দের সর্বনাশ করেন ডি ভিলিয়ার্স, আর বল হাতে ইমরান তাহির। ৪৫ রান দিয়ে প্রোটিয়া স্পিনার নেন ৫ উইকেট। ২টি করে শিকার পেসার কাইল এ্যাবট ও মরনে মরকেলের। এর আগে দক্ষিণ আফ্রিকার ইনিংস ছিল কেবলই ডি ভিলিয়ার্সময়। ৬৬ বলে ১৭ চার ও ৮ ছক্কায় প্রোটিয়া অধিনায়কের ব্যক্তিগত সংগ্রহ অপরাজিত ১৬২, যার মধ্যে ৬৪ বলে ১৫০Ñ বিশ্বকাপ তো বটেই, ওয়ানডে ইতিহাসেরই দ্রুততম দেড় শ’ রানের নতুন রেকর্ড এটি। তিনি পেছনে ফেলেন অস্ট্রেলিয়ার শেন ওয়াটসনের করা ৮৩ বলে ১৫০ রানের রেকর্ডকে। ডি ভিলিয়ার্স তার টর্নেডো ইনিংসটিতে সেঞ্চুরি পূর্ণ করেন ৫২ বলেÑ যা বিশ্বকাপ ইতিহাসের দ্বিতীয় দ্রুততম সেঞ্চুরির নজির। এক্ষেত্রে তার ওপরে আয়ারল্যান্ডের কেভিন ও’ব্রায়েনÑ গত বিশ্বকাপে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ৫০ বলে সেঞ্চুরি হাঁকিয়েছিলেন তিনি। ৪০৮/৫Ñ বিশ্বকাপে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ দলীয় রানের রেকর্ড। সর্বোচ্চ ৪১৩/৫Ñ ২০০৭ বিশ্বকাপে বারমুডার বিপক্ষে করেছিল ভারত।

প্রকাশিত : ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০১৫

২৮/০২/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

খেলার খবর



ব্রেকিং নিউজ: