মূলত পরিষ্কার, তাপমাত্রা ২১.১ °C
 
১০ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, শনিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ

অপ্রতিরোধ্য ভারতের সামনে আজ আরব আমিরাত

প্রকাশিত : ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০১৫

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী পাকিস্তান ও পরাক্রমশালী দক্ষিণ আফ্রিকাকে উড়িয়ে দিয়ে চলমান বিশ্বকাপ ক্রিকেটে টানা দুই জয় পেয়েছে ভারত। পুল ‘বি’ তে ৪ পয়েন্ট নিয়ে সবার উপরে ওয়ানডে বিশ্বকাপের বর্তমান চ্যাম্পিয়নরা। গ্রুপের সমীকরণ জানান দিচ্ছে, আর মাত্র একটি জয় পেলেই ভারতের কোয়ার্টার ফাইনাল নিশ্চিত হয়ে যেতে পারে। এ লক্ষ্যেই বিশ্বকাপে আজ নিজেদের তৃতীয় ম্যাচে মাঠে নামছে মহেন্দ্র সিং ধোনির দল। দুর্বল প্রতিপক্ষ সংযুক্ত আরব আমিরাতের বিরুদ্ধে ভারতের ম্যাচটি হবে পার্থে। ম্যাচটি শুরু হবে বাংলাদেশ সময় দুপুর ১২টা ৩০ মিনিটে।

বিশ্বকাপ শুরুর আগে ভারতকে নিয়ে অনেক সমালোচনা হয়েছে। অস্ট্রেলিয়া-নিউজিল্যান্ডের কন্ডিশনে দলটির সাফল্য নিয়ে অনেকেই ছিলেন সন্দিহান! কিন্তু মাঠের লড়াইয়ে সব শঙ্কা দূর করেছে ধোনি বাহিনী। এর অন্যতম কারণ বিশ্বকাপের আগে ত্রিদেশীয় টুর্নামেন্ট খেলা। ওই আসরে জয়বঞ্চিত থাকলেও ভারতের জন্য উপকারী হয়েছে বলে মনে করেন ক্রিকেট বিশেষজ্ঞরা। এর প্রমাণ মিলছে মাঠের লড়াইয়ে। নিজেদের প্রথম ম্যাচে চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী পাকিস্তানকে ৭৬ রানের বড় ব্যবধানে হারিয়ে মুকুট ধরে রাখার মিশন শুরু করে ভারত। ম্যাচে বিরাট কোহলির সেঞ্চুরির বদৌলতে ভারতের সংগ্রহ হয় ৭ উইকেটে ৩০০ রান। জবাবে পাকিস্তানের ইনিংস থেমে যায় মাত্র ২২৪ রানে। দ্বিতীয় ম্যাচেও প্রতিপক্ষকে উড়িয়ে দেয় দুইবারের বিশ্বচ্যম্পিয়রা। শক্তিশালী দক্ষিণ আফ্রিকাক পাত্তাই দেননি শিখর ধাওয়ান, বিরাট কোহলি, আজিঙ্কা রাহানে, সুরেশ রায়নারা। ভারতের ৩০৭ রানের জবাবে প্রোটিয়াদের ইনিংস গুড়িয়ে যায় মাত্র ১৭৭ রানে। টানা দুই ম্যাচে দুই পরাক্রমশালী দলকে হারিয়ে আত্মবিশ্বাসে টগবগে এখন ভারতীয় দল। ক্রিকেটীয় বিচারে আজকের প্রতিপক্ষ আরব আমিরাতেরও পাত্তা পাওয়ার কথা নয়। তবে ক্রিকেট গৌরবময় অনিশ্চয়তার খেলা বলেই আগাম কিছু বলা সম্ভব না। তার ওপর দুর্বল প্রতিপক্ষ হলেও আজই বিশ্বকাপে প্রথমবারের মতো আরব আমিরাতের বিরুদ্ধে খেলবে ভারত। অবশ্য জয় ছাড়া কিছুই ভাবছেন না ভারতীয় দলপতি মহেন্দ্র সিং ধোনি। তিনি বলেন, বড় দুই প্রতিপক্ষকে হারানোয় দলের মনোবল আরও বেড়েছে। আরব আমিরাতের বিরুদ্ধেও একই লক্ষ্যে খেলবে দল। পুল ‘বি’ তে দুই ম্যাচে ৪ পয়েন্ট ভা-ারে ভারতের। সমান ৪ পয়েন্ট করে আছে দক্ষিণ আফ্রিকা, আয়ারল্যান্ড ও ওয়েস্ট ইন্ডিজের। তবে রানরেটে সবার উপরে ভারত। পয়েন্টের সমীকরণ বলছে আরব আমিরাতে হারালে শেষ আটে পৌঁছে যাবে ধোনির দল। কেননা সেক্ষেত্রে ভারতের পয়েন্ট হবে ৬। প্রতিপুল থেকে যেহেতু চারটি করে দল কোয়ার্টার ফাইনালে যাবে সেহেতু পরের ম্যাচগুলোতে যদি হেরেও যায় তাহলেও ভারতের বাদ যাওয়ার সম্ভাবনা নেই। কারণ আরব আমিরাতের বিদায় বলা যায় নিশ্চিত। জিম্বাবুইয়ে ও পাকিস্তানের মুখোমুখি ম্যাচে যারা হারবে তাদের এক দলের বিদায় নেয়াও অনেকটা নিশ্চিত। এক্ষেত্রে জিম্বাবুইয়ে হারলে বাকি ম্যাচগুলো জিতলেও তাদের পয়েন্ট হবে ৬। কিন্তু রানরেটে বাদ পড়তে হবে। আর পাকিস্তান চারটি ম্যাচ জিতলে সেরা আটে যাওয়ার সুযোগ আছে। কিন্তু কাজটা যে সহজ হবে না প্রথম দুই ম্যাচের হারে সেটিই প্রতীয়মান হয়েছে। এ কারণে আজকের ম্যাচ ভারত জিতলেই নকআউট পর্ব নিশ্চিত হয়ে যেতে পারে তাদের। মূলত ২০০৭ সালের টি২০ বিশ্বকাপ থেকেই ধোনি ও ভারতীয় ক্রিকেটের নতুন জোয়ার সৃষ্টি হয়। যার ধারাবাহিকতায় ২০১১ বিশ্বকাপ ক্রিকেটের শিরোপা জিয় করে ‘টিম ইন্ডিয়া’। কপিল দেবের হাত ধরে ১৯৮৩ সালে বিশ্বকাপ জয়ের পর থেকেই মূলত ভারতীয় ক্রিকেটের উত্থান শুরু। এর পর থেকে দেশটি ধীরে ধীরে ক্রিকেট পরাশক্তিতে পরিণত হয়েছে। মাঝখানে ধারাবাহিক সাফল্যে ছেদ পড়েছিল। অবশেষে চার বছর আগে শ্রীলঙ্কাকে হারিয়ে দীর্ঘ ২৮ বছর পর বিশ্বকাপ ক্রিকেটের শিরোপা জয় করে ভারত। এবার বিশ্বের অন্যতম জনবহুল দেশটি শ্রেষ্ঠত্ব ধরে রাখার মিশনে আছে।

প্রকাশিত : ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০১৫

২৮/০২/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

খেলার খবর



ব্রেকিং নিউজ: