রৌদ্রজ্জ্বল, তাপমাত্রা ২৩.৯ °C
 
৮ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, বৃহস্পতিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

উৎসবমুখর পরিবেশে জাবিতে পাখিমেলা

প্রকাশিত : ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০১৫
উৎসবমুখর পরিবেশে জাবিতে পাখিমেলা

জাবি সংবাদদাতা ॥ পাখির কিচিরমিচির ডাক আর পাখি প্রেমীদের সরব উপস্থিতিতে নানা আয়োজনের মধ্য দিয়ে শুক্রবার জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে অনুষ্ঠিত হয়েছে দেশের একমাত্র পাখিমেলা-২০১৫। মেলা উপলক্ষে ক্যাম্পাস ছিল উৎসবমুখর। অতিথি পাখির সরব সান্নিধ্যে সারাটা দিন পার করেছে দেশী-বিদেশী অসংখ্য পাখি প্রেমী। পাখি সংরক্ষণে গণসচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে ১৩তম বারের মতো আয়োজন করা হয় পাখিমেলার। ‘পাখপাখালি দেশের রতœ, আসুন সবাই করি যতœ’ এই স্লোগানকে ধারণ করে এবার বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাণিবিদ্যা বিভাগ ও ওয়াইল্ড লাইফ রেসকিউ সেন্টার যৌথভাবে পাখিমেলার আয়োজন করে।

সকাল ১০টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের জহির রায়হান মিলনায়তনের সামনে বেলুন উড়িয়ে মেলার আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করা হয়। উদ্বোধন করেন আইইউসিএন-এর বাংলাদেশস্থ প্রতিনিধি ইশতিয়াক উদ্দিন আহমেদ। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক ড. তপন কুমার সাহা, আইন অনুষদের ডিন অধ্যাপক শেখ মনজুরুল হক, বিশিষ্ট পাখিবিশারদ ড. ইনাম আল হক প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। প্রাণিবিদ্যা বিভাগের সভাপতি অধ্যাপক ড. সাজেদা বেগমের সভাপতিত্বে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন মেলার আহ্বায়ক ড. মোঃ মনিরুল হাসান খান ও প্রাণিবিদ্যা বিভাগের অধ্যাপক ড. মোস্তফা ফিরোজ। মেলা পরিচালনা করেন মেলার মডারেটর অধ্যাপক এটিএম আতিকুর রহমান। মেলায় বক্তাগণ বলেন, পরিবেশ, প্রকৃতির প্রতি ভালবাসা থেকে সমাজ রাষ্ট্রের সৃষ্টি। বন্যপ্রাণী, পাখি আমাদের পরিবেশ, প্রকৃতিকে রক্ষা করে। এ জন্য পরিবেশকে বাঁচাতে পশু-পাখিকে ভালবাসতে হবে। আহ্বায়ক অধ্যাপক ড. মোঃ মনিরুল হাসান খান বলেন, জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের পাখিমেলার মাধ্যমে প্রকৃতি এবং পাখির প্রতি ভালবাসা জন্মেছে, সচেতনতা বৃদ্ধি পেয়েছে। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের পর একটি বর্ণাঢ্য র‌্যালি বের করা হয়।

এর আগে সকাল ৯টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের জহির রায়হান মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত হয় শিশু-কিশোরদের পাখির ছবি আঁকা প্রতিযোগিতা। এদিকে মেলা উপলক্ষে ক্যাম্পাসে প্রচুর সংখ্যক দেশী-বিদেশী পাখিপ্রেমীর আগমন ঘটে। সকাল থেকেই আগত দর্শনার্থীরা পাখি বিষয়ক নানা অনুষ্ঠান উপভোগ করেন। এসবের মধ্যে ছিল পাখির আলোকচিত্র ও পত্র-পত্রিকা দিয়ে স্টল সাজানো প্রতিযোগিতা, পাখির আলোকচিত্র প্রদর্শনী, পাখি বিষয়ক কুইজ প্রতিযোগিতা, স্লাইডের মাধ্যমে আন্তঃবিশ্ববিদ্যালয় পাখি চেনা প্রতিযোগিতা এবং সবশেষে পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠান।

এদিকে জহির রায়হান মিলনায়তনের সামনে পাখির প্রতি সচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে বিভিন্ন স্টলে পাখি বিষয়ক বই, সংরক্ষিত বিভিন্ন প্রজাতির পাখি, চিত্র প্রদর্শনীর আয়োজন করা হয়।

প্রকাশিত : ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০১৫

২৮/০২/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

শেষের পাতা



ব্রেকিং নিউজ: