কুয়াশাচ্ছন্ন, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৪ ডিসেম্বর ২০১৬, ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, রবিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ

গায়েবি বিবৃতি রবিবার থেকে ফের ৭২ ঘণ্টার হরতাল

প্রকাশিত : ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০১৫

স্টাফ রিপোর্টার ॥ বিএনপি-জামায়াত জোটের ভাষার মাসের হরতাল-অবরোধ শেষ হয়েছে। এবার শুরু হচ্ছে স্বাধীনতার মাসে হরতাল আহ্বানের পালা। হরতাল অবরোধের কোন প্রভাব না থাকলেও একের পর হরতাল দিয়েই চলেছে অজ্ঞাত স্থান থেকে গায়েবি বিবৃতির মাধ্যমে। শুক্রবারও এমনি এক বিবৃতিতে স্বাধীনতার মাসের শুরুতে ৭২ ঘণ্টার হরতালের কর্মসূচী দেয়া হয়েছে। আর গায়েবি বিবৃতি আসছে বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব সালাউদ্দিন আহমেদের নামে। এদিকে হরতাল-অবরোধের নামে সহিংসতা বন্ধ করতে আদালতের জারি করা রুলের নোটিশ গুলশান কার্যালয়ে পৌঁছানো হয়েছে।

হরতাল-অবরোধ গায়েবি বিবৃতির মধ্যে সীমাবদ্ধ থাকলেও দফায় দফায় বৃদ্ধি হচ্ছে হরতাল। শুক্রবারও এক বিবৃতিতে রবিবার সকাল ৬টা থেকে বুধবার সকাল ৬টা পর্যন্ত হরতাল পালনের আহ্বান জানানো হয়েছে। হরতাল-অবরোধে বিএনপির নেতাকর্মীদের মাঠে দেখা না গেলেও সালাউদ্দিনের নামে আসা বিবৃতিতে চলমান অবরোধ এবং আগামী রবিবার সকাল ৬টা থেকে দেশব্যাপী ৭২ ঘণ্টার হরতাল ও রবিবারের গণমিছিল কর্মসূচী শান্তিপূর্ণভাবে পালন করতে বিএনপি ও এর অঙ্গ-সহযোগী সংগঠন এবং ২০ দলীয় জোটের সকল পর্যায়ের নেতা-কর্মীসহ দেশবাসীকে ২০ দলীয় জোট নেতা বেগম খালেদা জিয়ার পক্ষ থেকে আহ্বান জানানো হয়েছে।

বিবৃতিতে বলা হয়, রবিবার সকাল ৬টা থেকে ৪ মার্চ বুধবার সকাল ৬টা পর্যন্ত হরতালের পাশাপাশি আবার শান্তিপূর্ণ অবরোধ কর্মসূচীও অব্যাহত থাকবে। সারাদেশে সকল জেলা, উপজেলা, পৌরসভা ও থানা পর্যায়ে এবং দেশের সকল মহানগরের ওয়ার্ডে ওয়ার্ডে অনুষ্ঠিত হবে এই গণমিছিল।

এদিকে ২০ দলীয় জোটের নামে বিএনপির দফায় দফায় হরতাল আহ্বানে জনগণের মধ্যে আর কোন আগ্রহ দেখা যাচ্ছে না। বিশেষ করে কবে থেকে হরতাল, কত ঘণ্টা হরতাল আহ্বান করা হলো এ নিয়ে এখন আর কারও মধ্যে উদ্বেগ উৎকণ্ঠাও নেই। সাধারণ জনগণের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে হরতাল-অবরোধ কর্মসূচী এখন একেবারেই মামুলি বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে তাঁদের কাছে। অনেকটা হাসি ঠাট্টার বিষয়বস্তুতে পরিণত হয়েছে বিএনপি জোটের এ হরতাল।

সহিংসতা বন্ধে খালেদা জিয়ার কার্যালয়ে আদালতের রুলের নোটিস ॥ এদিকে হরতাল-অবরোধের নামে সহিংসতা বন্ধ করতে আদালতের জারি করা রুলের নোটিস শুক্রবার বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়ার গুলশান কার্যালয়ে পৌঁছানো হয়েছে। বিকেল সোয়া ৫টায় সুপ্রীমকোর্টের রিট সেকশনের পিয়ন মোঃ হুমায়ুন ইসলাম খান নোটিসটি বিএনপি চেয়ারপার্সনের মিডিয়া উইংয়ের সদস্য শামসুদ্দিন দিদারের হাতে পৌঁছে দেন। শামসুদ্দিন দিদার বলেন, হুমায়ুন নামে একজন হাইকোর্ট থেকে রিটের একটি কপি নিয়ে আসেন। পরে তার পরিচয় ও হাইকোর্ট থেকে রিটের কপি পাঠানোর বিষয়টি নিশ্চিত হয়ে তা গ্রহণ করা হয়। হরতাল অবরোধে ব্যাপক সহিংসতায় উদ্বেগ প্রকাশ করে সম্প্রতি আদালতের এক রায়ে রাজনৈতিক কর্মসূচীর নামে সহিংসতা, নাশকতা ও সন্ত্রাসী কার্যক্রম বন্ধে কার্যকর পদক্ষেপ নিতে সরকারকে নির্দেশ দেন। একইসঙ্গে এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষা নির্বিঘœ করতে এবং পরীক্ষায় বিঘœ সৃষ্টিকারীদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেয়ারও নির্দেশ দেয়া হয়।

এছাড়া এ ধরনের সহিংস কর্মসূচীকে কেন অবৈধ ও অসাংবিধানিক ঘোষণা করা হবে না তাও আদালতের পক্ষ থেকে সরকারের কাছে জানতে চাওয়া হয়। একই সঙ্গে ৫ জানুয়ারি থেকে হরতাল-অবরোধে ক্ষতিগ্রস্তদের ক্ষতিপূরণ দিতে ২০ দলীয় জোটনেতা খালেদা জিয়াসহ হরতাল আহ্বানকারীদের কেন নির্দেশ দেয়া হবে না তাও জানতে চায় আদালত। আদালতের পক্ষ থেকে চার সপ্তাহের মধ্যে বিবাদীদের এসব রুলের জবাব দিতে বলা হয়। আদালতে এ সংক্রান্ত রিট আবেদনে বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়া, প্রশাসন ও বিরোধী দলের নেতাকর্মীসহ ১৬২ ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানকে বিবাদী করা হয়েছে।

প্রকাশিত : ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০১৫

২৮/০২/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

শেষের পাতা



ব্রেকিং নিউজ: