রৌদ্রজ্জ্বল, তাপমাত্রা ২৩.৯ °C
 
৮ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, বৃহস্পতিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

মান্না-খোকা ষড়যন্ত্রের প্রথম লাশ পড়ল অভিজিতের

প্রকাশিত : ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০১৫
  • ১৪ দলের অভিযোগ

বিশেষ প্রতিনিধি ॥ মাহমুদুর রহমান মান্না ও সাদেক হোসেন খোকার ফোনালাপ ষড়যন্ত্রের ধারাবাহিকতায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের টিএসসি এলাকায় অভিজিৎ হত্যাকা- ঘটেছে বলে অভিযোগ করেছে আওয়ামী লীগের নেতৃত্বাধীন কেন্দ্রীয় ১৪ দল। হত্যাকারীদের দ্রুত গ্রেফতারের দাবি জানিয়ে জোটের নেতাদের দাবি, এটি তাদের ষড়যন্ত্রের প্রথম লাশ। চারটি টিমে বিভক্ত হয়ে ১৪ দলের কেন্দ্রীয় নেতারা আগামী ৮ থেকে ১০ মার্চ পর্যন্ত তিন দিনব্যাপী দেশের বিভিন্ন এলাকায় শান্তির পক্ষে ও সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে পদযাত্রা ও সমাবেশ করবেন। একই সঙ্গে বিএনপি-জামায়াতসহ গণতন্ত্রবিরোধী সকল অপশক্তির বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধ প্রতিরোধ গড়ে তোলার জন্যও মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের সকল শ্রেণী-পেশার মানুষের প্রতিও আহ্বান জানিয়েছে আদর্শিক এই জোটটি।

সোমবার দুপুরে ধানম-ির আওয়ামী লীগ সভানেত্রীর রাজনৈতিক কার্যালয়ে কেন্দ্রীয় ১৪ দলের বৈঠক শেষে এক প্রেস ব্রিফিয়ে এসব কর্মসূচী ও বৈঠকের সিদ্ধান্তের কথা জানান কেন্দ্রীয় ১৪ দলের মুখপাত্র ও স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম। অভিজিৎ হত্যাকাণ্ডে জড়িতদের দ্রুত গ্রেফতার করার দাবি জানিয়ে তিনি বলেন, একজন সাংস্কৃতিক কর্মীকে অধ্যাপক হুমায়ুন আজাদের মতো করে হত্যা করা হয়েছে এবং তা ঘটেছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এলাকাতেই। মান্না-খোকারা যে লাশের কথা বলেছে দুঃখজনক হলেও সত্য যে, বৃহস্পতিবার সেই লাশটা সেই ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এলাকাতেই পড়েছে। দেশের মানুষের রক্তের ওপর দিয়ে তারা ক্ষমতায় যেতে চায়। তিনি বলেন, বিএনপি নেত্রী খালেদা জিয়ার মুখোশ প্রতিদিনই উন্মোচিত হচ্ছে। তিনি এখন জঙ্গীর নেত্রীতে পরিণত হয়ে গেছেন। হতাশা থেকে উনি এমন একটি জায়গায় চলে গেছেন যার করুন পরিণতির জন্য আমাদের আরও কিছু দিন অপেক্ষা করতে হবে।

সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে মোহাম্মদ নাসিম বলেন, অভিজিৎ হত্যাকা-ের ঘটনায় আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর কোন গাফলতি ছিল না। তারা (আইনশৃঙ্খলা বাহিনী) জীবনের ঝুঁকি নিয়ে অনেক কাজ করছে। অনেক বড় বড় ঘটনার রহস্যও তারা উন্মোচন করেছে। সাংবাদিকদের আরেক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ঢাকার দুই সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন নিয়ে ১৪ দলে এখনও কোন আলোচনা হয়নি। এ ব্যাপারে আলোচনা করে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।

১৪ দলের পূর্বঘোষিত কর্মসূচী তুলে ধরে মোহাম্মদ নাসিম বলেন, আমরা চারটি টিমে বিভক্ত হয়ে আগামী ৮ থেকে ১০ মার্চ পর্যন্ত দেশের বিভিন্ন এলাকায় শান্তির পক্ষে ও সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে পদযাত্রা ও সমাবেশ সফল করব। প্রথম টিমটি সিরাজগঞ্জ, বগুড়া, গাইবান্ধা; দ্বিতীয়টি গাজীপুর, মানিকগঞ্জ ও মুন্সীগঞ্জ, তৃতীয় টিমটি চট্টগ্রাম, নোয়াখালী, ফেনী এবং চতুর্থ টিমটি কুষ্টিয়া, ঝিনাইদহ এবং যশোরের কর্মসূচীতে অংশগ্রহণ করবে। এ লক্ষে আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবির নানককে টিম গঠনের দায়িত্ব দেয়া হয়েছে। আগামী দু’এক দিনের মধ্যেই টিমের কাজ চূড়ান্ত করা হবে।

সাম্যবাদী দলের সাধারণ সম্পাদক দিলীপ বড়ুয়ার সভাপতিত্বে বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগের সভাপতিম-লীর সদস্য নূহ-উল-আলম লেনিন, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবির নানক, জাতীয় পার্টির (জেপি) মহাসচিব শেখ শহীদুল ইসলাম, আবু সাঈদ খান, ওয়ার্কার্স পার্টির ফজলে হোসেন বাদশা এমপি, জাসদের সাধারণ সম্পাদক শরীফ নূরুল আম্বিয়া, গণতন্ত্রী পার্টির নূরুর রহমান সেলিম, মাহমুদুর রহমনা বাবু, গণআজাদী লীগের এস কে শিকদার, কমিউনিস্ট কেন্দ্রের ডাঃ ওয়াজেদুল ইসলাম খান, ন্যাপের ইসমাইল হোসেন প্রমুখ।

প্রকাশিত : ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০১৫

২৮/০২/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

প্রথম পাতা



ব্রেকিং নিউজ: