মূলত পরিষ্কার, তাপমাত্রা ২১.১ °C
 
১১ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, রবিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

অভিনয়ে ব্যস্ত অমল রায়

প্রকাশিত : ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০১৫
অভিনয়ে ব্যস্ত অমল রায়

স্টাফ রিপোর্টার ॥ বর্তমানে মঞ্চ, টিভি নাটক এবং চলচ্চিত্রে অভিনয়ে ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছেন অমল কৃষ্ণ রায়। এ পর্যন্ত অর্ধশতাধিক মঞ্চ নাটকে অভিনয় করেছেন। মঞ্চনাটকে অভিনয়ের জন্য দেশে এবং বিদেশে প্রশংসিত হয়েছেন। অমল রায় সম্প্রতি অভিনয় করলেন পিএ কাজল পরিচালিত ‘চোখের দেখা’ চলচ্চিত্রে। এতে সায়মন, অহনা, শতাব্দী ওয়াদুদের সঙ্গে অভিনয় করেছেন তিনি। অমল তানভীর মোকাম্মেল পরিচালিত ‘জীবন ঢুলি’ চলচ্চিত্রে প্রথম অভিনয় করেন। এ ছাড়া ‘নেকাব্বরের মহাপ্রয়াণ’ চলচ্চিত্রেও অভিনয় করেছেন তিনি। বরিশালের আগৈলঝাড়ার বাহাদুরপুরের অমল কৃষ্ণ রায় ১৯৮০ সালে চাঁদশীর ঈশ্বর চন্দ্র মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ষষ্ঠ শ্রেণীতে পড়াকালীন ‘নবদিগন্ত’ নাটকে অভিনয়ের মাধ্যমে মঞ্চে অভিনয় শুরু করেন। এরপর স্কুল এবং কলেজে মঞ্চনাটক, যাত্রাপালা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে অংশ নিয়েছেন। শিক্ষাজীবন শেষে ঢাকায় এসে পিপলস থিয়েটার, থিয়েটার আর্ট ইউনিট, প্রাঙ্গণে মোর, প্রাচ্যনাট প্রভৃতি নাট্য সংগঠনের হয়ে কাজ করেন। অমল অভিনীত মঞ্চনাটকগুলোর মধ্যে ‘সুন্দর আলী সোহাগী বউ’, প্রাচ্যনাটের ‘তুঘলক’, জাতীয় শিল্পকলা একাডেমির জেলাভিত্তিক নাট্যোৎসবে ভাওয়ালের জমিদারের কাহিনী অবলম্বনে ‘মগের মুল্লুক’, পিপলস থিয়েটারের হয়ে ‘দেশের কথা পরির কথা’, ‘বান্দরের কিচ্ছা’, নাট্যভূমির হয়ে ‘শিরোনাম ৭১’ অন্যতম। তিনি ‘একটি পয়সা’, ‘অনুসন্ধান’, ‘বিশ্বাস ঘাতক’ যাত্রাপালাতেও অভিনয় করেছেন।

২০০৯ এবং ২০১১ সালে ভারতের উড়িষ্যায় অনুষ্ঠিত আন্তর্জাতিক নাট্য উৎসবে শুভঙ্কর চট্টোপাধ্যায়ের ‘মড়া’ নাটকে অভিনয়ের স্বীকৃতিস্বরূপ তিনি দুইবারই এক্সিলেন্ট এ্যাওয়ার্ডে ভূষিত হোন। অমল রায় অভিনীত প্রথম টিভি নাটক ‘নেকাব্বরের মহাপ্রয়াণ’। এতে তিনি নেকাব্বরের চরিত্রে অভিনয় করে প্রশংসিত হোন। ২০০৭ সালে নাটকটি বাংলা ভিশনে প্রচার হয়। অমল অভিনীত টিভি নাটকগুলো হলো কাওনাইন সৌরভ পরিচালিত রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের ‘হৈমন্তি’, ‘নিশিথে’, ‘ডিটেকটিভ’, ‘ফাঁকি’, অনিমেষ আইচের ‘ম্যরাডোনা’, রেজিনা পরিচালিত ধারাবাহিক নাটক ‘মেয়েটি এখন ঢাকায় আছে’, মনির হোসেন জীবনের ‘গুনীন’, তুহিন অবন্ত পরিচালিত ‘ছুটি’, সালাউদ্দিন লাভলু পরিচালিত ‘কবুলতনামা’, ‘বাড়াবাড়ি’ প্রভৃতি। তিনি জনসচেতনতামূলক টিভি নাটিকা ও তথ্যচিত্রেও কাজ করেছেন। বর্তমানে তিনি টঙ্গীর মূলধারা সাংস্কৃতিক চর্চা কেন্দ্রের নাট্য সম্পাদক। অভিনয় জীবনে তিনি কবি নির্মলেন্দু গুণ, নাট্য নির্দেশক আজাদ আবুল কালাম, কাওনাইন সৌরভসহ দর্শক শ্রোতাদের কাছে কৃতজ্ঞ। অমল সবার ভালবাসা ও আশীর্বাদ নিয়ে অনেক দূর

এগিয়ে যেতে যান।

প্রকাশিত : ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০১৫

২৬/০২/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


ব্রেকিং নিউজ: