আংশিক মেঘলা, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৭ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, বুধবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

জয়ের ধারায় থাকতে চান ধোনি

প্রকাশিত : ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০১৫
জয়ের ধারায় থাকতে চান ধোনি

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ বিশ্বকাপে নিজেদের প্রথম দুটি বড় ম্যাচেই জয় পেয়েছে ভারত। চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী পাকিস্তানকে ৭৬ রানে এবং শক্তিশালী দক্ষিণ আফ্রিকাকে ১৩০ রানের ব্যবধানে হারায় চ্যাম্পিয়নরা। অথচ সম্প্রতি দলটির মাঠের পারফর্মেন্স মোটেই ভাল ছিল না। অনেকে হাল ছেড়ে দিয়েছিলেন। ঘুরে দাঁড়ানোর পেছনে খেলোয়াড়দের পরিশ্রম ও সাপোটিং স্টাফদের সহযোগিতাকে বড় করে দেখা অধিনায়ক মহেন্দ্র সিং ধোনি সাফল্যের এ ধারা অব্যাহত রাখতে চান। শনিবার দুর্বল আরব আমিরাতের বিপক্ষে তৃতীয় ম্যাচ খেলবে তারা।

‘বিশ্বকাপের আগে আমাদের সময়টা মোটেই ভাল কাটেনি। খারাপ সময়ে আত্মবিশ্বাস ধরে রাখা কঠিন। রেজাল্ট পেতে ওই সময়ে ছেলেরা কঠোর পরিশ্রম করেছে। কোচ-ম্যানেজারসহ সাপোর্টি স্টাফে যার ছিলেন তারাও যথেষ্ট সাহায্য করেছেন। দুটি ম্যাচে ভাল করায় এখন পরিবেশ বদলে গেছে। সবাই বেশ আত্মবিশ্বাসী। হাসিখুশি। তবে অতি আত্মবিশ্বাসে ভোগার সুযোগ নেই। এটা বিশ্বকাপ। প্রতিটি ম্যাচই কঠিন। অনেক পথ পাড়ি দিতে হবে। আমরা ধারাবাহিকতা ধরে রাখতে চাই।’ বলেন গতবার ২০১১-এ দীর্ঘ ২৮ বছর পর ভারতের শিরোপা পুনরুদ্ধারে নেতৃত্ব দেয়া অধিনায়ক ধোনি।

শুরুতেই এতটা ভাল খেলা নেতিবাচক হবে নাতো? অনেকের মনে এখন সেই প্রশ্ন। কারণ বিশ্বকাপের মতো বড় টুর্নামেন্টের ইতিহাসে এমন অনেক উদাহরণ রয়েছে। শুরুতে ভাল খেলা অনেক দল হতাশ করেছে পরবর্তীতে। এক্ষেত্রে অস্ট্রেলিয়া অবশ্য ব্যতিক্রম। সর্বাধিক চারবারের চ্যাম্পিয়ন দলটি একাধিক আসরেই শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত দাপটের সঙ্গে খেলে শিরোপা জিতেছে। নিজের সেই অভিজ্ঞতা থেকে সাবেক অসি অধিনায়ক স্টিভ ওয়াহও মনে করেন, প্রথম দুই ম্যাচেই বড় দলকে ধসিয়ে দেয়া ভারতের জন্য মোটেই নেতিবাচক হবে না। বিশ্বকাপে ভারতের নৈপুণ্যে বরং খুশি অসি কিংবদন্তি। ‘কার্লটন মিড ত্রিদেশীয় ওয়ানডেতে ব্যর্থতার পর টিম ইন্ডিয়া যে বিশ্রাম নিয়ে ফিরেছে, সেটা ওদের জন্য বেশ কাজে দিয়েছে। পাকিস্তান ও দ. আফ্রিকার বিপক্ষে ধোনিদের বেশ তরতাজা ও ধারাল দেখিয়েছে।’

এবারের আসরে অস্ট্রেলিয়া-নিউজিল্যান্ডের সঙ্গে অন্যতম ফেবারিট দক্ষিণ আফ্রিকা। সেই তাদেরই এত বড় ব্যবধানে হার চিন্তার কারণ বলেও মনে করেন তিনি। স্টিভ বলেন, ‘ম্যাচে ভারতীয়রা শুধু প্রোটিয়াদের চেয়ে ভাল ব্যাটিংই করেনি, বোলিং-ফিল্ডিংয়ে ছিল দারুণ। ক্রিকেট বিশ্বের অন্যতমসেরা ফিল্ডিংয়েল বিপক্ষে ধোনিদের এই পারফর্মেন্স বেশ তাৎপর্যপূর্ণ।’ এরপর ভারতীয়দের জন্য দুশ্চিন্তা হতে পারে খুব তাড়াতাড়ি এই জ্বলে ওঠাÑ অনেকের ধারণা এমন। বিষয়টি নিয়ে ভাবলেও তা পুরোপুরি মানতে নারাজ স্টিভ। তিনি বলেন, ‘এটা বহুচর্চিত একটি কথা। আমরাও শুনেছি। একটা দলের এতটা ভাল শুরুর পর পুরো টুর্নামেন্টে ভাল না করার কারণ নেই। অতীতে অস্ট্রেলিয়া এটা অনেকবার করে দেখিয়েছে।’

অধিনায়ক ধোনির মতো তিনিও ভারতীয় নির্বাচকদের প্রশংসা করেন। বলেন, ‘ওদের যখন খারাপ ফর্ম চলছিল, তখনও নির্বাচকরা শিখর ধাওয়ান, রবিচন্দ্রন অশ্বিনদের পাশে ছিলেন। এখন তারা তাদের প্রাপ্য স্বীকৃতিটা পেতে শুরু করেছেন। এছাড়া স্বল্পদৈর্ঘের ক্রিকেটে ধোনির নেতৃত্ব যোগ দলকেই আত্মবিশ্বাসী করে, সেটিও প্রমাণ হতে শুরু করেছে, বিশ্বকাপ সবে শুরু, সামনে হয়ত আরও ভাল কিছুই সে দেখাতে পারবে।’

প্রকাশিত : ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০১৫

২৬/০২/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

খেলার খবর



ব্রেকিং নিউজ: