কুয়াশাচ্ছন্ন, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৪ ডিসেম্বর ২০১৬, ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, রবিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

ঘরে বসেই অনলাইনে নতুন ভোটার হওয়ার সুযোগ

প্রকাশিত : ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০১৫

স্টাফ রিপোর্টার ॥ এখন থেকে ঘরে বসেই অনলাইনের মাধ্যমে নতুন ভোটার হওয়া, তালিকার ভুলত্রুটি সংশোধন ও তথ্য পরিবর্তন করা যাবে। এছাড়া রেজিস্ট্র্রেশনের মাধ্যমে এ্যাকাউন্ট তৈরি করে অনলাইনের আবেদনের মাধ্যমে জাতীয় পরিচয়পত্র নিবন্ধন অনুবিভাগে সংরক্ষিত তথ্যও দেখার সুযোগ পাওয়া যাবে। নির্বাচন কমিশনের জাতীয় পরিচয় নিবন্ধন অনুবিভাগে এবং নির্বাচন কমিশনের সচিবালয়ের বাস্তবায়নাধীন আইডিইএ প্রকল্পর মাধ্যমে বুধবার থেকে এ কর্মসূচী চালু হয়েছে। প্রধান নির্বাচন কমিশনার কাজী রকিব উদ্দিন আহমেদ অনলাইন আবেদনের এ সিস্টেমের উদ্বোধন করেন। জাতীয় পরিচয়পত্র নিবন্ধন অনুবিভাগের পক্ষ থেকে জানানো হয়, অনলাইনে এ সিস্টেমের মাধ্যমে ৬ সেবা পাওয়ার যাবে। এর মধ্যে নতুন ভোটার হিসেবে অনলাইনে ভোটার রেজিস্ট্রেশনের আবেদন করা যাবে। রেজিস্ট্রেশনের মাধ্যমে কোন ভোটার নিজের এ্যাকাউন্ট তৈরি করে অনুবিভাগে সংরক্ষিত নিজস্ব তথ্য দেখতে ও যাচাই-বাছাই করতে পারবেন। ভোট কেন্দ্রের তথ্যও দেখা যাবে। এছাড়া নিজস্ব তথ্য পরিবর্তন, সংশোধন ও হালনাগাদের জন্য আবেদন করা যাবে। ছবি, স্বাক্ষর পরিবর্তন, আঙ্গুলের ছাপ গ্রহণ ও অন্যান্য প্রয়োজনে অনলাইনের মাধ্যমে আবেদন করা যাবে। এছাড়াও হারিয়ে যাওয়া বা নষ্ট হয়ে যাওয়া পরিচয়পত্র প্রতিস্থাপনের জন্যও আবেদন করা যাবে এ সিস্টেমের মাধ্যমে।

সংস্থার পক্ষ থেকে জানানো হয়, অনলাইন আবেদনের মাধ্যমে জাতীয় পরিচয়পত্র প্রদর্শিত ও অপ্রদর্শিত উভয় তথ্য দেখার ও তথ্য আপডেট করার সুযোগ থাকবে নতুন এ সিস্টেমের মাধ্যমে। তথ্য সংশোধনের জন্য বাড়ি বসে নিজের সময় ও সুযোগ মতো প্রাথমিক আবেদন করার সুবিধা যে কেউ ইচ্ছে করলে নিতে পারেন। এ সিস্টেমে ব্যবহারকারীরা নিজেই আবেদন করতে পারবেন। ফলে বানান বা অন্যান্য ভুল হওয়ার সুযোগ কম থাকবে। ভোটার তালিকায় যে কোন ধরনের সংশোধনে সময় নির্ধারণের জন্য এ্যাপয়েন্টমেন্ট নেয়া যাবে। এ কার্যক্রমের উদ্দেশ্য হলো নতুন ভোটার হওয়ার জন্য অনলাইনে আবেদন করার সুযোগ সৃষ্টি করা, যাতে একজন নাগরিক তার সুবিধামতো সময়ে আবেদন করতে পারেন। এ সিস্টেমের মাধ্যমে জাতীয় পরিচয়পত্র কারও পছন্দ ও সুবিধামতো দেশের যে কোন উপজেলা নির্বাচন কার্যালয় হতেই উত্তোলন করা যাবে। সেবার বিভিন্ন হালনাগাদ তথ্য জানতে পারার সুযোগ সৃষ্টি হয়েছে। ব্যক্তির আবেদনের পর তার সার্বিক প্রক্রিয়া সম্পন্ন করে জাতীয় পরিচয়পত্র বিতরণের উপযোগী হলে পরিচয়পত্র উত্তোলনের স্বয়ংক্রিয় নোটিফিকেশন প্রেরণ করা হবে। এছাড়া নির্বাচনের সময় কোন ভোটার তার জন্য নির্ধারিত ভোট কেন্দ্রের তথ্য জানতে পারবেন।

তথ্য সংশোধনের জন্য আবেদনের নিয়ম ॥ তথ্য সংশোধনের জন্য ভোটারদের প্রথমে নির্বাচন কমিশন সচিবালয়ের ওয়েবসাইটে িি.িবপ.ড়ৎম.নফ/ইধহমষধ প্রবেশ করতে হবে। এরপর ডান পাশের ‘এনআইডি অনলাইন সার্ভিসেস’ লেখা লিংকে অথবা সরাসরি ংবৎারপবং.হরফ.িমড়া.নফ ওয়েবসাইটে প্রবেশ করতে হবে। পরে রেজিস্ট্রেশন অপশনে গিয়ে চারটি ধাপে তথ্য পূরণ এবং পাসওয়ার্ড দিয়ে রেজিট্রেশন সম্পন্ন করতে হবে। রেজিস্ট্রেশন শেষ হলেই মোবাইল বা ই-মেইলে গোপন নম্বরের মাধ্যমে এ্যাকাউন্ট সচল করবেন। এ্যাকাউন্ট সচল হওয়ার পর ভোটাররা ফরম পূরণের সময় দেয়া তথ্য দেখতে পারবেন এবং তা সংশোধনের জন্য অনলাইনের মাধ্যমে আবেদন করতে পারবেন।

অনলাইন আবেদন সিস্টেমের উদ্বোধনের পর প্রধান নির্বাচন কমিশনার কাজী রকিবউদ্দীন আহমদ বলেন, বুধবার থেকেই অনলাইনের মাধ্যমে আবেদন কার্যক্রম শুরু হয়েছে। সবকিছুই পরিবর্তন হচ্ছে। আমরাও প্রযুক্তি ব্যবহারের মাধ্যমে ভোটারদের অনলাইন সুবিধা দিচ্ছি। তবে এর পাশাপাশি ভোটার হওয়া, ভোটার সংশোধন ও তথ্য পরিবর্তনের আগের প্রক্রিয়াও চালু থাকবে। দ্রুতই উপজেলা সার্ভার স্টেশন চালুর চেষ্টা চলছে। চালু করার আগে আমাদের নিরাপত্তার বিষয়টি গুরুত্ব সহকারে দেখা হবে। অনলাইন আবেদনের এটা একটা বড় সুযোগ। নতুন কোন সুযোগ এলে তা ব্যবহারে সবাইকেই উদ্যোগী হতে হয়। এ সিস্টেম চালুর পর যদি কোন সমস্যা দেখা দেয় তাহলে নিজস্ব টেকনিশিয়ানের মাধ্যমেই সমস্যার সমাধান করা হবে। তিনি বলেন, যখন যে প্রযুক্তি আসবে সেটাতে চড়ে বসতে হবে।

অনুষ্ঠানে নির্বাচন কমিশন (ইসি) সচিব মোঃ সিরাজুল ইসলাম জানান, নতুন যারা ভোটার হতে আগ্রহী তারা রেজিস্ট্রেশনের মাধ্যমে ঘরে বসেই আবেদন করতে পারবেন। এছাড়া যারা ভোটার আছেন তারা রেজিস্ট্রেশনের মধ্যমে এ্যাকাউন্ট তৈরি করে নিজস্ব তথ্য তৈরি, সংশোধন, পরিবর্তন ও ছবির স্বাক্ষর পরিবর্তন করতে পারবেন। হারিয়ে যাওয়া ও নষ্ট হওয়া পরিচয়পত্রও পুনরায় পাওয়ার জন্য আবেদন করা যাবে।

অনলাইনে ভোটার হওয়ার এ কার্যক্রমটি প্রজেক্টরের মাধ্যমে উপস্থাপন করেন জাতীয় পরিচয়পত্র নিবন্ধন অনুবিভাগের মহাপরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল সুলতানুজ্জামান মোঃ সালেহ। তিনি বলেন, নাগরিকেরা এ সুবিধা পাওয়ার জন্য নির্বাচন কমিশনের ওয়েবসাইটে ঢুকে নিজের মোবাইল ফোন নম্বর দিলে ইসি থেকে স্বয়ংক্রিয়ভাবে একটি পাসওয়ার্ড মোবাইল ফোনে চলে যাবে। এরপর তিনি ওই পাসওয়ার্ড ব্যবহার করে এ্যাকাউন্ট করতে পারবেন। নির্বাচন কমিশনের ওয়েবসাইটে এ বিষয়ে সব ধরনের নির্দেশনা দেয়া থাকবে।

প্রকাশিত : ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০১৫

২৬/০২/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


ব্রেকিং নিউজ: