কুয়াশাচ্ছন্ন, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৫ ডিসেম্বর ২০১৬, ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, সোমবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

আগারগাঁওয়ে বস্তিতে আগুন, এক শিশু জীবন্ত দগ্ধ

প্রকাশিত : ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০১৫

স্টাফ রিপোর্টার ॥ রাজধানীর আগারগাঁও এলাকায় একটি বস্তিতে আগুন লেগে চার বছর বয়সী এক শিশুর মৃত্যু হয়েছে। এতে পুড়ে গেছে শতাধিক ঘর। ফায়ার সার্ভিস নিয়ন্ত্রণ কক্ষের ডিউটি অফিসার শাহজাদী সুলতানা জানান, বুধবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে ইসলামিক ফাউন্ডেশনের পাশের বস্তিতে এই আগুন লাগে। ফায়ার সার্ভিসের ১২টি ইউনিট ঘণ্টাখানেক চেষ্টার পর দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে আগুন নেভাতে সক্ষম হয় বলে নিয়ন্ত্রণকক্ষের কর্মকর্তা এনায়েত হোসেন জানান। নিহত শিশুর নাম সজীব (৪)।

তবে বস্তিতে কীভাবে আগুন লেগেছে সে বিষয়ে তাৎক্ষণিকভাবে কোন তথ্য দিতে পারেননি অগ্নিনির্বাপক বাহিনীর কর্মীরা। অগ্নিকা-ের সময় ঘটনাস্থলে উপস্থিত একটি বেসরকারী প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তা মোঃ জসীম বলেন, আগুন লাগার পর আশপাশের এলাকা ধোঁয়ায় আচ্ছন্ন হয়ে যায়। শুরুতে স্থানীয়রাই বালতিতে করে পানি এনে আগুন নেভানোর চেষ্টা করেন।

শেরেবাংলানগর থানার ওসি জি জি বিশ্বাস বলেন, আগুনে ৫০ থেকে ৫৫টি টিনের ঘর পুড়ে গেছে। চার বছরের একটি ছেলের লাশ উদ্ধার করে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ পুলিশ ফাঁড়ির পরিদর্শক মোজাম্মেল হক জানান, বেলা ২টার দিকে ওই শিশুর লাশ ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে আসে।

জানা যায়, আগারগাঁওয়ে ইসলামিক ফাউন্ডেশনের পাশের বস্তিতে তিন শতাধিক ঘর ছিল। স্থানীয়রা দাবি করেন, সবাই কম বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন। তবে ফায়ার সার্ভিসের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, প্রায় দেড় শ’ ঘর পুড়ে গেছে।

বস্তির আগুনে সব থেকে বেশি ক্ষতি হয়েছে গোপালগঞ্জের তুহিন শেখের। চার বছর বয়সের আদরের সন্তান সজীব আগুনে পুড়ে অঙ্গার হয়েছে। তুহিন পাসপোর্ট অফিসে কেরানির চাকরি করেন।

রিক্সাচালক আনোয়ার মিয়া (৩০) বলেন, আগুন লাগার সময় বাইরে ছিলাম। আগুন লাগার কিছুক্ষণ পরে এসে দেখি, ততোক্ষণে সব কিছু শেষ হয়ে গেছে । সংসারে জমানো ১৬ হাজার টাকাও পুড়ে ছাই হয়ে গেছে।

তবে আগুন লাগার সঠিক কারণ এখনও জানা যায়নি। স্থানীয়রা বলছেন, রান্নার চুলা থেকে আগুনের সূত্রপাত। ফায়ার সার্ভিসের প্রায় ১০টি ইউনিট আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে।

ফায়ার সার্ভিসের সহকারী পরিচালক রফিকুল ইসলাম বলেন, বেলা সাড়ে ১১টায় কাজ শুরু করে ২০ মিনিটের মধ্যে আগুন নিয়ন্ত্রণে আসে। এতে প্রায় দেড় শ’ ঘর পুড়ে গেছে। ঘটনাস্থল থেকে আমরা একটু আগুনে পুড়ে নিহত শিশুকে উদ্ধার করেছি। আগুন লাগার কারণ পরে তদন্ত করে বের করা হবে।

সজীবের পরিবারকে ২০ হাজার টাকা ॥ এ অগ্নিকা-ে নিহত শিশু সজীবের পরিবারকে ২০ হাজার টাকা অনুদান দেয়া হয়েছে। ঢাকা জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে সজীবের পরিবারের সদস্যদের হাতে এ অনুদান তুলে দেয়া হয়। ত্রাণ ও পুনর্বাসন অধিদফতরের পক্ষ থেকে জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে এ অনুদান দেয়া হয়েছে। একই সঙ্গে নিহত সজীবের মায়ের চিকিৎসার জন্য আরও পাঁচ হাজার টাকা দেয়া হয়। জেলা প্রশাসনের কর্মকর্তারা জানান, অগ্নিকা-ে ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারকে ২০ কেজি করে চাল এবং তিন হাজার টাকা দেয়া হবে।

প্রকাশিত : ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০১৫

২৬/০২/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

শেষের পাতা



ব্রেকিং নিউজ: