মূলত পরিষ্কার, তাপমাত্রা ২১.১ °C
 
৯ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, শুক্রবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

সম্পাদক সমীপে

প্রকাশিত : ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০১৫

মুক্তিযুদ্ধ ও আমাদের সংবিধান

যে দলের জন্ম ক্যান্টনমেন্টে, যে দল সংবিধানমের চার মূলনীতির মধ্য থেকে ধর্মনীরপেক্ষতা ও জাতিয়তাবাদের ধারা থেকে ছিটকে ফেলে সংবিধানকে কলঙ্কিত করেছিল, যারা জামায়াতে ইসলামের মতো দেশবিরোধী সংগঠনকে রাজনীতি করার সুযোগ দিয়েছিল, তারা মৌলবাদ শক্তিকে মাথা চাড়া দিয়ে উঠাতে সহায়তা করেছিল যার পরিণতিতে দেশে জঙ্গীবাদের বিস্তার লাভ করে। সাধারণ মানুষকে এই বলে বিভ্রান্ত করা হয়েছে যে, আওয়ামী লীগকে ভোট দিলে দেশ ভারতের কাছে বিক্রি করা হবে এবং এখানে মসজিদে আজানের ধ্বনি নয় উলুধ্বনি শোনা যাবে। অর্থাৎ প্রতিটি মসজিদকে মন্দিরে রূপান্তর করা হবে। এভাবে ভারত জুজুর ভয় দেখিয়ে সাধারণ মানুষকে বিভ্রান্ত করার পর দেশে মৌলবাদিরা মাথাচাড়া দিয়ে উঠতে থাকে। শুধু তাই নয় হিজবুল বাহারে মেধাবী ছাত্রদের সমুদ্র বিহারে নিয়ে গিয়ে তাদের লোভী করে তোলা হয়েছে। ফলে তারা দুনীতিগ্রস্ত হয়েছে। মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় উদ্ভুদ্ধ হয়ে একদিন সবাই বিএনপি-জামায়াত জোটের বর্বরতার বিরুদ্ধে সোচ্চার হবে। বিএনপির উচিত এখনি জামায়াতকে পরিহার করে, মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসী হয়ে দেশের জন্য কিছু করা। এতেই তাদের মঙ্গল।

আবু সুফিয়ান কবির

আসাদ এভিনিউ, ঢাকা।

নারীর অধিকার

শিক্ষাক্ষেত্রে সব সময়ই নারীদেরকে, পুরুষদের চেয়ে বেশি সুযোগ-সুবিধা প্রদান করা হচ্ছে। মাধ্যমিক, উচ্চ মাধ্যমিক পর্যায়ে বিতরণ করা বৃত্তির ৭০ শতাংশই মেয়েদের প্রদান করা হয়। আর ছেলেরা প্রায় মাত্র ৩০ শতাংশ। এতে করে ধনীর দুলালীরা শিক্ষাবৃত্তি পেলেও নারীদের অগ্রাধিকার দেয়ার ফলে অনেক অসহায়-দরিদ্র মেধাবী ছেলেই সেই শিক্ষাবৃত্তি থেকে বঞ্চিত হয়। যারা একদিন পড়ালেখার খরচ বহন করতে না পেরে বিপথগামী হয়। তাহলে এটা কোন ধরনের সমধিকার? তাই নারী-পুরুষ সমধিকারের জন্য সকল শিক্ষার্থীকে সমান সুযোগ-সুবিধা প্রদান করা হোক। এছাড়া প্রাক-প্রাথমিক ও প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক নিয়োগের ক্ষেত্রে, সরকারী চাকরিতে নিয়োগের ক্ষেত্রে, আইন প্রণয়নের ক্ষেত্রেও নারী-পুরুষের সমধিকার নিশ্চিত করা প্রয়োজন।

আলাউদ্দিন মজুমদার

নাঙ্গলকোট, কুমিল্লা

prodipnews@gmail.com

বন্ধ করুন রাজনৈতিক খেলা

বিএনপি গণতন্ত্রের কথা বলে মানুষকে পেট্রোলবোমায় পুড়িয়ে মারছে। যার নাম শোনলে মানুষ ভয়ে চুপ হয়ে যায়। আপনাদের এসব আন্দোলনের অপসংস্কৃতির জন্য দেশের মানুষ স্বাধীনভাবে চলাফেরা করতে পারছে না। দেশের শিক্ষার্থীদের পড়তে হচ্ছে সেশন জট নামক মৃত্যুফাঁদে। আপনারাতো এ সকল শিক্ষার্থীদের মনের ভাষা বুঝবেন না কারণ আপনাদের ছেলে মেয়েরা পড়াশোনা করে দেশের বাইরে।

মাহবুবুর রহমান

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়

বিশেষ ট্রেন সার্ভিস

চট্টগ্রাম-চাঁদপুর রেল যোগাযোগ একটি রাষ্ট্রীয় গণপরিবহন মাধ্যম এবং চট্টগ্রাম থেকে চাঁদপুর হয়ে দক্ষিণাঞ্চলে যাতায়াত অতি সহজ, দ্রুত ও সাশ্রয়ী। এ রেলপথের দৈর্ঘ্য মাত্র ১৮০ কিলোমিটার যা ঢাকা-চট্টগ্রাম রেলপথের দৈর্ঘ্যরে প্রায় অর্ধেক। একটি বিরতিহীন ট্রেন চট্টগ্রাম থেকে মাত্র ৩ ঘণ্টায় চাঁদপুর যেতে পারে এবং একটি ট্রেন সহজেই দিনে ৩টি ট্রিপ দিতে পারে।

দক্ষিণাঞ্চলের জনগণের দাবি একটি স্পেশাল ট্রেন সকালে বা রাতে চট্টগ্রাম থেকে চালু করা। কিন্তু ট্রেনগুলো চট্টগ্রাম থেকে ছাড়া হয় দুপুর ও বিকেলে। এর কারণ কি?

রেল প্রশাসনের কোন স্বচ্ছতা, জবাবদিহিতা ও দায়বদ্ধতা নেই কেন?

এমএ শাহেনশাহ

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়।

আর কত রক্ত?

সাধারণ মানুষের রক্ত ছাড়া ক্ষমতার মসনদে বসা অসম্ভব। কিন্তু তাঁরা আপাত দৃষ্টিতে অমানবিক বিপর্যয়ের মাধ্যমে ক্ষমতা অর্জনের মিথ্যে স্বপ্ন দেখে । এদিকে সাধারণ মানুষের জীবন এক বিপর্যয়ের মধ্য দিয়ে অতিবাহিত হচ্ছে। তারা মিথ্যে স্বপ্নে বিভোর। কত মানুষ পুড়ে ঝলসে ও অঙ্গার হচ্ছে, তার হিসাব কে রাখে? মানুষ ও মানবিকতার বিপর্যয় দেখে বাকরুদ্ধ হওয়া ছাড়া যেন কিছুই করার নেই। অধিকাংশ মানুষই তাদের স্বাভাবিক কাজকর্ম করতে পারছে না। অর্থনৈতিক দৈন্যদশায় কাটছে অনেকের জীবন।

সুমিত বণিক

কটিয়াদী, কিশোরগঞ্জ।

প্রকাশিত : ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০১৫

২৬/০২/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


ব্রেকিং নিউজ: