কুয়াশাচ্ছন্ন, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৪ ডিসেম্বর ২০১৬, ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, রবিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ

মুন্সীগঞ্জে বন্দুকযুদ্ধে সন্ত্রাসী নিহত কনস্টেবল গুলিবিদ্ধ

প্রকাশিত : ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০১৫
  • পুলিশের ওপর হামলা

স্টাফ রিপোর্টার, মুন্সীগঞ্জ ॥ শ্রীনগর উপজেলার বাঘড়ার রুদ্রপাড়ায় মঙ্গলবার পুলিশ ও সন্ত্রাসীদের বন্দুকযুদ্ধে সন্ত্রাসী শাহীন (২৬) নিহত হয়েছে। বাম হাতে গুলিবিদ্ধ পুলিশ কনস্টেবল আলামিনকে (২০) ঢাকা মেডিক্যাল কলেজে ও পায়ে জখম ওসি শেখ মাহবুবুর রহমানকে (৪৯) স্থানীয় হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। রাত সোয়া ১২টায় এই রিপোর্ট লেখার সময় পুলিশের বিশেষ অভিযান চলছিল। তবে এখনও কেউ গ্রেফতার হয়নি।

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার এবিএম মাসুদ হোসেন ঘটনাস্থলে জানান, স্থানীয় তাজেল গ্রুপ দীর্ঘদিন ধরে বাঘড়া ও তার আশপাশের চুরি, ছিনতাই, ডাকাতি, মাটি লুট ও অস্ত্র ব্যবসা চালিয়ে আসছিল। দুপুরে ৫-৬ জনের সশস্ত্র দলটি নাশকতার প্রস্তুতি নিচ্ছিল। এমন খবরে পুলিশ সেখানে যায়। টের পেয়ে সন্ত্রাসীরা পালানোর চেষ্টা করে। শাহীন গ্রামের ভিতর ঢুকে যায়। তার পিছু নেয় কনস্টেবল আলামিন। শাহীন রান্না ঘরে ঢুকে আলামিনকে গুলি করে সঙ্গে থাকা চাইনিজ রাইফেলটি নিয়ে পালিয়ে যায়। পরে আরও বিপুল সংখ্যক পুলিশ ওসির নেতৃত্বে পুরো এলাকা ঘিরে ফেলে। পুলিশকে লক্ষ্য করে সন্ত্রাসীরা আবার গুলি ছোড়ে। শুরু হয় বন্দুকযুদ্ধ। একপর্যায়ে শাহীন নিহত হয়।

শাহীনের কাছ থেকে পুলিশের খোয়া যাওয়া রাউফেল ছাড়াও অবৈধ চাইনিজ পিস্তল, তিন রাউন্ড গুলি ও ২টা গুলির খোসা উদ্ধার করা হয়। পরে নিহত শাহীনের বাসা তল্লাশি করে সেখান থেকে ২টা চাপাতি, ৬টা ছুরি, ২টা লোহার রড (গ্রিল ভাঙ্গার কাজে ও নাট বল্টু খোলার কাজে ব্যবহার উপযোগী) উদ্ধার করা হয়। এ ব্যাপারে শ্রীনগর থানায় পুলিশ এসল্ট ও অস্ত্র মামলার প্রস্তুতি চলছিল।

শ্রীনগর থানার ওসি শেখ মাহাবুবুর রহমান জানান, প্রথমদফায় সন্ত্রীরা গুলি ছুড়ে বেলা দেড়টায়। দ্বিতীয় দফায় বন্দুকযুদ্ধ হয় দুপুর ২টার দিকে। বুধবার সকালে ময়নাতদন্তের জন্য মুন্সীগঞ্জ মর্গে পাঠানো হয়েছে। নিহত শাহীন রুদ্রপাড়ার নুর ইসলামের পুত্র।

প্রকাশিত : ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০১৫

২৫/০২/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

শেষের পাতা



ব্রেকিং নিউজ: