কুয়াশাচ্ছন্ন, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৫ ডিসেম্বর ২০১৬, ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, সোমবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

পাথর তুলতে গিয়ে সিলেটে মাটি চাপায় চার শ্রমিক নিহত

প্রকাশিত : ২৪ ফেব্রুয়ারী ২০১৫

স্টাফ রিপোর্টার, সিলেট অফিস ॥ রবিবার রাতে সিলেটের কোম্পানিগঞ্জ উপজেলার ভোলাগঞ্জে পাথর তুলতে গিয়ে মাটি চাপায় চার শ্রমিক নিহত হয়েছেন। সোমবার বেলা ২টার দিকে পুলিশ কোয়ারি থেকে লাশগুলো উদ্ধার করে।

নিহতরা হলেন- কোম্পানিগঞ্জ উপজেলার ইসলামপুর ইউনিয়নের কাঁঠালবাড়ি গ্রামের এতিম হোসেনের ছেলে মইন (৪০), একই গ্রামের আনোয়ার হোসেনের ছেলে দানা মিয়া (৪২), শাহজালালের ছেলে দেলোয়ার (২৪) ও ছিদ্দিক আলীর ছেলে এমদাদুল হক সেলিম (৪২)।

জানা যায়, রবিবার রাতে অন্যান্য শ্রমিকদের সঙ্গে তারা ভোলাগঞ্জ কোয়ারির গর্ত থেকে পাথর উত্তোলন করছিল। রাত ৮টার দিকে গর্ত ধসে মাটি চাপা পড়ে মারা যান তারা। পরে সোমবার সকাল থেকে চেষ্টা চালিয়ে বেলা ২টার দিকে লাশগুলো উদ্ধার করে পুলিশ।

জাবিতে অনুত্তীর্ণ পোষ্যরা ভর্তি সুবিধা পাচ্ছে না

জাবি সংবাদদাতা ॥ জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে (জাবি) ২০১৪-১৫ শিক্ষাবর্ষে অনুত্তীর্ণ ৯৬ পোষ্যকে গ্রেস দিয়ে ভর্তি না করানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। সোমবার দুপুর ১টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক ভবনে উপাচার্য ফারজানা ইসলামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত কেন্দ্রীয় ভর্তি পরিচালনা কমিটির সভায় এই সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

সন্ন্যাসী বেশে আশ্রয় বাড়ির সবাইকে অচেতন করে সর্বস্ব লুট

নিজস্ব সংবাদদাতা, মাদারীপুর, ২৩ ফেব্রুয়ারি ॥ বাড়িতে আশ্রয় নিয়ে পরিবারের সবাইকে অজ্ঞান করে সর্বস্ব লুটে নিয়ে গেছে। এ ঘটনাটি ঘটে কালকিনি উপজেলার ডাসার ইউনিয়নের আড়ুয়াকান্দি গ্রামে। মধুসূদন রায় ও তার স্ত্রী ললিতা রায় এবং জামাই মানিক দত্তকে অচেতন অবস্থায় মাদারীপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হলে রবিবার রাতে তাদের চেতনা ফিরে এলে এ তথ্য জানা যায়।

মধুসূদনের ছোট ভাইয়ের স্ত্রী শেফালী রায় জানান, তার ভাসুর মধুসূদন রায়ের বাড়িতে ৬/৭ দিন আগে সন্ন্যাসী বেশে একজন পুরুষ ও একজন মহিলা আশ্রয় নেয়। তখন তারা নিজেদের সন্ন্যাসী পরিচয় দিয়ে বাগেরহাট থেকে আশ্রমের কালেকশনের জন্য এসেছে বলে জানায়। মধুসূদনের বাড়িতে অবস্থান করে সন্ন্যাসীদ্বয় এলাকায় ঘুরে ঘুরে টাকা-পয়সা কালেকশনের কাজ করতে থাকে। এরই মধ্যে মধুসূদনের স্ত্রী ললিতা রায়ের সঙ্গে মহিলা সন্ন্যাসীর সুসম্পর্ক গড়ে ওঠে। পরে তাদের অজ্ঞান করে সবকিছু লুটে নেয়।

শরীয়তপুরে মামলা করায় বাদীকে হত্যার হুমকি

নিজস্ব সংবাদদাতা, শরীয়তপুর, ২৩ ফেব্রুয়ারি ॥ জাজিরা উপজেলার ছোট গোপালপুর গ্রামে সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে মামলা করায় মামলার বাদী লিটন মাদবরকে হত্যার হুমকি দিচ্ছে এজাহারভুক্ত আসামিরা। আসামিরা মোবাইল ফোনে এ হুমকি দিয়েছে বলে মামলার বাদী অভিযোগ করেছেন। এদিকে সন্ত্রাসীদের হামলায় গুরুতর আহত লিটন মাদবর ও তাঁর ভাবী সাবানা বেগমকে জাজিরা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় পাঠানো হয়েছে। অন্য আহতরা জাজিরা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন। উল্লেখ্য, জমিজমা নিয়ে বিরোধের জের ধরে জেলার জাজিরা উপজেলার ছোট গোপালপুর গ্রামে মৃত আব্দুল হামেদ মাদবরের ছেলে লিটন মাদবর পাকের ঘরের খুঁটি তুলতে গেলে তাঁরই চাচা আব্দুল খালেক মাদবর ও তার ছেলে কামাল, ওহাব ও অন্যরা লিটনের ওপর হামলা চালায়। এ ঘটনায় লিটন মাদবর বাদী হয়ে খালেক মাদবর, তার ছেলে কামাল মাদবর, ওহাব মাদবর, সোহরাব মাদবর, মেয়ে আম্বিয়া ও স্ত্রী রোকেয়া বেগমকে আসামি করে জাজিরা থানায় দায়ের করেন।

প্রকাশিত : ২৪ ফেব্রুয়ারী ২০১৫

২৪/০২/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

দেশের খবর



ব্রেকিং নিউজ: