রৌদ্রজ্জ্বল, তাপমাত্রা ২৩.৯ °C
 
৮ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, বৃহস্পতিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

ত্বক রাখুন উজ্জ্বল ও মসৃণ

প্রকাশিত : ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০১৫

বাতাসে এখন বসন্তের সুর। আর এ সময়ে ত্বক শুষ্ক ও রুক্ষ হয়ে যেতে শুরু করে। হাত ও পায়ের ত্বকও ময়েশ্চারের অভাবে বুড়িয়ে যেতে থাকে। এই সময়ে তাই ত্বকের বিশেষ যতœ নেয়া প্রয়োজন। প্রথমেই প্রয়োজন ত্বকের ট্রিটমেন্টÑযা গোসলের মাধ্যমে করতে পারেন।

গোসল ও ত্বকের ট্রিটমেন্ট : গোসলের আগে সারা শরীরে ভাল করে তেল ম্যাসাজ করুন। তিল তেল ব্যবহার করতে পারলে ভাল হয়। তিল তেলের বদলে আমন্ড অয়েল বা অলিভ অয়েলও ব্যবহার করতে পারেন। যে তেলই ব্যবহার করুন না কেন, ম্যাসাজ করার আগে একটু গরম করে নেবেন। গোসলের আগে লেমন টারমারিক ক্রিম ব্যবহার করতে পারেন। এই ক্রিম শুধু ত্বক নরম করে না, সঙ্গে সঙ্গে ত্বকের কালোভাব, সানট্যানের দাগ দূর করতে সাহায্য করে। সাবান ও ক্লোরিনযুক্ত পানি ব্যবহারের ফলে ত্বকের যা ক্ষতি হয়, তা থেকে ত্বককে রক্ষা করতেও এই ক্রিম সাহায্য করে। হলুদের এ্যান্টিসেপটিক উপাদান ত্বকে ইনফেকশন প্রতিরোধ করে।

বাড়িতে প্রি-বাথ ট্রিটমেন্টের জন্য বেসন, সামান্য দুধ বা দই হলুদ মিশিয়ে পেস্ট তৈরি করুন। হাত, পা, গলা ও ঘাড়ে ভাল করে এই পেস্ট লাগান। ২০ মিনিট পর পানি দিয়ে আস্তে আস্তে ঘষতে থাকুন। গোসলের সময় পুরো পেস্টটা ধুয়ে ফেলুন। বেসন, হলুদের এই পেস্ট ক্লেনজারের কাজ করে। সাবান না ব্যবহার করলেও চলে। শীতের সময় সোপ ফ্রি শাওয়ার জেল ব্যবহার করুন। মাইল্ড গ্লিসারিন সাবানও ব্যবহার করতে পারেন। তবে সাবান ব্যবহার না করতে পারলেই ভাল। এতে ত্বক রুক্ষ হয়ে যেতে পারে। গোসলের পরেই বডি লোশন বা ক্রিম ব্যবহার করুন। ভিজে ত্বকে ময়েশ্চারাইজার লাগালে সহজে এ্যাবজর্ব করবে।

ত্বকের মসৃণ ভাব বজায় রাখার জন্য নিমপাতা বেটে নারিকেল তেল ও কর্পুরের সঙ্গে মিশিয়ে মাখলে উপকার পাবেন।

ত্বক খসখসে হয়ে গেলে দুই চা-চামচ মাখন ও মধু মিশিয়ে প্যাকটা মুখে লাগিয়ে রাখুন ১৫-২০ মিনিট। তারপর ঠা-া পানি দিয়ে মুখ ধুয়ে নিন।

বাড়ি থেকে বের হবার আগে সানস্ক্রিন লাগাতে ভুলবেন না। কারণ সূর্যের রশ্মির প্রভাবে অনেক সময় ত্বক ময়েশ্চার হারিয়ে ফেলে।

মধু ব্যবহার করতে পারলে ত্বক ভাল থাকবে। মধু ন্যাচারাল ময়েশ্চারাইজারের কাজ করে। মধুর সঙ্গে অল্প আমন্ড অয়েল অথবা ডিমের কুসুম মিশিয়ে প্রতিদিন মুখে লাগান ১৫ মিনিট রেখে পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।

তৈলাক্ত ত্বক

পাতিলেবুর রস, নিমপাতার রস, মুলতানি মাটি মিশিয়ে পুরো মুখে লাগান। আধাঘণ্টা পর ঠা-া পানির ঝাপটা দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।

কাচা হলুদের রস, মুলতানি মাটি মিশিয়ে মুখে লাগান। প্যাক শুকিয়ে গেলে গোলাপজল দিয়ে মুছে নিন।

কমলালেবুর খোসা বাটা, চালের গুঁড়ো সমপরিমাণ মিশিয়ে লাগান। প্যাক আধা শুকনো হলে প্রথমে দুধ লাগিয়ে স্ক্রাব করে মুখ ধুয়ে ফেলুন।

নির্জীব ত্বক

ত্বকের ক্লান্তিভাব দূর করতে মুসুর ডালের পেস্ট ও ধনেপাতার রস মিশিয়ে মুখে আধ ঘণ্টা লাগিয়ে রাখুন। পরে ঠা-া পানির ঝাপটা দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।

ডাবের পানি, গোলাপ জল, পাতিলেবুর রস একসঙ্গে মিশিয়ে মুখে লাগান। আধঘণ্টা পর ধুয়ে ক্রিম লাগান।

মুখের ছোপ দূর করতে টমাটো জুস, কাঁচা হলুদের রস ভুসিসমেত আটা মিশিয়ে মুখে, গলায় লাগান। গোলাপজল দিয়ে মুছে নিন।

কমলালেবুর রস ও ওটমিল সমপরিমাণে মিশিয়ে লাগান।

পাকা পেঁপে চটকে মধু মিশিয়ে মুখে, হাতে, গলায় লাগান। বিশ মিনিট রেখে ধুয়ে ফেলুন।

গোলাপের পাপড়ি, দুধের সর বাটা, মধু মিশিয়ে লাগান। ২০ মিনিট পর ধুয়ে ফেলুন। ত্বক নরম ও মসৃণ হবে।

ত্বকে বলিরেখার সমস্যা

সারারাত কিশমিশ, কাজু আধকাপ দুধে ভিজিয়ে রাখুন। পরের দিন বেটে মধু ও কর্নফ্লাওয়ার মিশিয়ে পেস্ট তৈরি করে মুখে লাগিয়ে রাখুন। বিশ মিনিট পর শসার রস দিয়ে মুছে নিন।

ত্বক মসৃণ করতে ও ত্বকের তারুণ্য বজায় রাখতে বিউলির ডাল বাটা মধু মিশিয়ে লাগান।

আমন্ড অয়েল, দুধের সর মিশিয়ে মুখে ম্যাসাজ করুন।

হাতের ত্বক নরম রাখতে

জামাকাপড়, বাসন পরিষ্কার করার সময় হাতে গ্লাভস পরুন। ওষুধের দোকান থেকে সার্জিক্যাল গ্লাভস কিনে নিন।

ধোয়ার কাজ হয়ে গেলে গ্লাভস খুলে হাতে ক্রিম ম্যাসাজ করে নিন। নখের চারপাশের অংশেও ক্রিম ম্যাসাজ করবেন।

দুই টেবিল চামচ সানফ্লাওয়ার অয়েল, ২ টেবিল চামচ লেবুর রস ও ৩ টেবিল চামচ মোটা দানার চিনি একসঙ্গে মিশিয়ে পেস্ট তৈরি করে হাতের ওপরে ও নিচের অংশে ঘষুণ। ১৫ মিনিট পর ধুয়ে ফেলুন। সপ্তাহে তিনবার এই পদ্ধতি চেষ্টা করতে পারেন। অতিরিক্ত শুষ্ক ও কালো ত্বকের জন্য এই পেস্ট উপকারী।

হাতের শুষ্ক ভাব কমানোর জন্য ৫০ মিলি গোলাপ জলের মধ্যে ১ চা চামচ গ্লিসারিন মিশিয়ে লোশন তৈরি করে রাখুন। হাতে এই মিশ্রণ লাগিয়ে ৩০ মিনিট পর ধুয়ে ফেলুন।

পায়ের যতেœ

শীতকালে ঠা-া আবহাওয়ার কারণে ত্বকে ময়েশ্চারের অভাব দেখা যায়, সঙ্গে সঙ্গে রক্ত সঞ্চালনও ব্যাহত হয়। এর ফলে শরীরের অন্যান্য অংশের তুলনায় পায়ের গোড়ালির ত্বক রুক্ষ ও ফেটে যায়। ডেড সেল জমতে শুরু করে।

রাতে ঘুমাতে যাওয়ার আগে সামান্য গরম পানিতে ২০ মিনিট পা ডুবিয়ে রাখুন। পা ডোবানোর আগে পানিতে কোর্স সল্ট ও শ্যাম্পু মেশান। স্ক্রাবারের সাহায্যে গোড়ালি ঘষে ডেড সেল ঝরিয়ে ফেলুন। মেটাল স্ক্রাবার ব্যবহার করবেন না। পা পরিষ্কার করার পরে ক্রিম ম্যাসাজ করুন। ক্রিম লাগানোর পর পরিষ্কার কাপড় দিয়ে গোড়ালি ব্যান্ডেজ করে রাখুন। এর ফলে পায়ে ক্রিম লেগে থাকবে। এক সপ্তাহ প্রতিদিন এইভাবে পায়ের যতœ নিলে পা ভাল থাকবে।

পায়ের ফাটা অংশে পেঁয়াজের রস লাগান। এছাড়া ফাটা জায়গায় মধুও লাগাতে পারেন।

ফাটা জায়গায় ময়লা ঢুকলে লবণ ও ঘিয়ের মিশ্রণ দিয়ে ঘষুন। পরিষ্কার হয়ে যাবে।

আজকাল বিভিন্ন পার্লারে ফুট স্পার ব্যবস্থা রয়েছে। ফুট স্পাতে পায়ের এক্সফোলিয়েশন এবং ম্যাসাজ করা হয়। ফলে শুধু ক্লান্তি দূর হয় না, আপনার ব্লাড সার্কুলেশন ভাল করে, মাসল টোনড করে এবং আপনাকে রিল্যাক্স করতে সাহায্য করে।

মেরিনা চৌধুরী

ছবি: আরিফ আহমেদ

মডেল: ফারহানা মিলি ও নাদিয়া

প্রকাশিত : ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০১৫

২৩/০২/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


ব্রেকিং নিউজ: