মূলত পরিষ্কার, তাপমাত্রা ২১.১ °C
 
৯ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, শুক্রবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

ইংল্যান্ডকে হারালেই কো. ফাইনালে বাংলাদেশ

প্রকাশিত : ২২ ফেব্রুয়ারী ২০১৫
ইংল্যান্ডকে হারালেই কো. ফাইনালে বাংলাদেশ
  • ব্রিসবেনে পণ্ড খেলা বৃষ্টিতে, অস্ট্রেলিয়ার সঙ্গে পয়েন্ট ভাগাভাগি

মিথুন আশরাফ ॥ ব্রিসবেনে অনবরত যে বৃষ্টি চলছিল, ঝড় বইছিল; তাতে বোঝাই যাচ্ছিল বাংলাদেশ-অস্ট্রেলিয়া ম্যাচটি হচ্ছে না। তাই ঘটল। ১ পয়েন্ট পেয়ে গেল মাশরাফিরা। অস্ট্রেলিয়াও বৃষ্টিতে ম্যাচ পন্ড হওয়ায় ১ পয়েন্টই পেল। দুই দলকেই পয়েন্ট ভাগাভাগি করে নিতে হলো এবং এতে লাভ হলো বাংলাদেশেরই। এখন সবকিছু ঠিক থাকলে ৫ মার্চ স্কটল্যান্ডকে হারানোর পর ৯ মার্চ এ্যাডিলেডে ইংল্যান্ডকে হারাতে পারলেই কোয়ার্টার ফাইনালে খেলার স্বপ্ন সত্যি হয়ে যাবে বাংলাদেশের। শেষ আটে খেলা নিশ্চিত করে নেবে মাশরাফিবাহিনী। তবে বাকি থাকা চার ম্যাচের মধ্যে দুটিতে জিতলেও শেষ আটে খেলবে বাংলাদেশ।

ব্রিসবেনের গাব্বায় ম্যাচটি হলে অস্ট্রেলিয়ার জয়েরই সম্ভাবনা বেশি ছিল। ফেবারিট যে ছিল স্বাগতিক দলটিই। এবারের বিশ্বকাপে যাদের ধরা হচ্ছে শিরোপা জিতবে, সেই দলটি বাংলাদেশের বিপক্ষে জিতবে; তাও ধরেই নেয়া হয়েছে। তবে অঘটন ঘটলে ঘটেও যেতে পারত। যদি অঘটন না ঘটত? ম্যাচটি খেলে বাংলাদেশ অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে খেলার অভিজ্ঞতা অর্জন করলেও পয়েন্ট তো আর পেত না। এ পয়েন্ট না পেলে এখনই কোয়ার্টার ফাইনালে ওঠার বড় স্বপ্নও তৈরি হতো না।

গাব্বায় আসলে বাংলাদেশ কিংবা অস্ট্রেলিয়া নয়, খেলল প্রকৃতি। জয়ও হলো বলতে গেলে প্রকৃতিরই। সেই প্রকৃতিই অস্ট্রেলিয়ার মতো শক্তিশালী প্রতিপক্ষের বিপক্ষে মাঠে নামতে না দিয়েও বাংলাদেশকে ১ পয়েন্ট এনে দিল। ম্যাচে কোন ‘রিজার্ভ ডে’ ছিল না। আইসিসি আগেই জানিয়ে দিয়েছে ২০ ওভার খেলা হলেও বল মাঠে গড়াবে। কিন্তু ঘূর্ণিঝড় মার্সিয়ার হানায় বল আর মাঠেই গড়াল না। কয়েক দফা পর্যবেক্ষণ শেষে বাংলাদেশ সময় দুপুর পৌনে একটায় ম্যাচ কর্মকর্তারা জানিয়েও দেন, খেলা হচ্ছে না। বিশ্বকাপ এবারের আসরের প্রথম পরিত্যক্ত ম্যাচটি দেখেও নিল। সেই সঙ্গে মাশরাফি যে খেলার প্রবল ইচ্ছা ব্যক্ত করেছিলেন, সেই আশাও পূরণ হলো না। তবে ১ পয়েন্ট কম কিসের। পুরে নিল পকেটে। এ পয়েন্টই বাংলাদেশকে এখন কোয়ার্টার ফাইনালে খেলার স্বপ্নে বিভোর করাচ্ছে। পয়েন্ট তালিকায় ‘এ’ গ্রুপে বাংলাদেশের অবস্থান এখন তৃতীয় স্থানে। স্বাগতিক দুই দেশ, নিউজিল্যান্ড ও অস্ট্রেলিয়ার পরই বাংলাদেশের অবস্থান। নিউজিল্যান্ড ৩ ম্যাচে তিনটিতেই জিতে ৬ পয়েন্ট পেয়েছে। তবে পয়েন্ট পার্থক্যের দিক থেকে অস্ট্রেলিয়ার সঙ্গে বাংলাদেশের কোন পার্থক্য নেই। দুই দলই ২ ম্যাচ খেলে অপরাজিত থেকে ৩ পয়েন্ট করে পেয়েছে। বাকি চার দলের কোন পয়েন্টই এখন পর্যন্ত যোগ হয়নি। শ্রীলঙ্কা, আফগানিস্তান, স্কটল্যান্ড-এ তিনদলই একটি করে ম্যাচ খেলেছে। এবং হেরেছে। আর ইংল্যান্ড ২ ম্যাচ খেলে দুটিতেই হেরেছে। ইংলিশদের এমন অবস্থার জন্যই এখন কোয়ার্টার ফাইনালে খেলার আশা বাংলাদেশের অনেক বেড়ে গেছে। বাংলাদেশেরও ২টি খেলা হয়েছে। ইংল্যান্ডেরও তাই। কিন্তু বাংলাদেশ ৩ পয়েন্ট পেয়েছে, ইংল্যান্ড হাত খালি। এখন সামনে বাংলাদেশ ও ইংল্যান্ডের ৪টি করে ম্যাচ রয়েছে। বাংলাদেশের খেলা রয়েছে শ্রীলঙ্কা, স্কটল্যান্ড, ইংল্যান্ড ও নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে। ইংল্যান্ডের খেলা রয়েছে স্কটল্যান্ড, শ্রীলঙ্কা, বাংলাদেশ ও আফগানিস্তানের বিপক্ষে। ধরে নেয়া যাক, স্কটল্যান্ড ও আফগানিস্তানের বিপক্ষে জিতল ইংল্যান্ড। সঙ্গে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষেও জয় তুলে নিল। হারল শুধু বাংলাদেশের বিপক্ষে। তখন ইংলিশদের পয়েন্ট জমা হবে ৬। ঠিক তেমনি বাংলাদেশ বাকি থাকা চার ম্যাচের মধ্যে স্কটল্যান্ড ও ইংল্যান্ডের বিপক্ষে জিতল, বাকি শ্রীলঙ্কা ও নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে হারল। তখন বাংলাদেশের পয়েন্ট জমা হবে ৭। এখন আছে ৩। দুই ম্যাচ জেতায় পাবে ৪ পয়েন্ট। তখন ইংল্যান্ডের বিপক্ষে জেতার জন্যই বাংলাদেশ কোয়ার্টার ফাইনালে খেলবে। ইংল্যান্ডের বিপক্ষে না জিতলেও সেক্ষেত্রে কোয়ার্টার ফাইনালে খেলার সম্ভাবনা বাংলাদেশের থেকে যাবে। এখন ইংল্যান্ডের সবচেয়ে করুণ অবস্থা বলেই এ দলের সঙ্গেই বাংলাদেশের হিসেব ধরা হচ্ছে। যদি বাকি থাকা চার ম্যাচের মধ্যে ইংল্যান্ড জিতে তিন ম্যাচ। পয়েন্ট জমা হবে ৬। বাংলাদেশ যদি ইংল্যান্ডকে না হারাতে পেরে স্কটল্যান্ডসহ আরেকটি বড় দলকে (শ্রীলঙ্কা ও নিউজিল্যান্ড) হারিয়ে দিতে পারে, তখনও বাংলাদেশের পয়েন্ট হবে ৭। কোয়ার্টার ফাইনালে খেলা নিশ্চিত করে নেবে বাংলাদেশ। বাংলাদেশ অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজার ভাবনা অবশ্য এখনই কোয়ার্টার ফাইনাল নিয়ে নয়। শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে বাংলাদেশের পরের ম্যাচ রয়েছে। মেলবোর্নে বৃহস্পতিবার ম্যাচটি হবে। এ ম্যাচ নিয়েই যত ভাবনা এখন মাশরাফির। তবে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ম্যাচ থেকে ১ পয়েন্ট পাওয়াতেও খুশি মাশরাফি। বলেছেন, ‘আমি শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ম্যাচটি নিয়ে ভাবছি। বিশ্বকাপে আসার আগে কোন প্রতিপক্ষকে হিসেব করে খেলব, তা ভেবে আসেনি। যদি সামর্থ্য অনুযায়ী খেলতে পারি, দিনটিতে যে কোন কিছুই ঘটতে পারে। আমরা শ্রীলঙ্কার বিপক্ষেও জিততে পারি। আমাদের আরও দুটি ম্যাচ জিততে হবে কোয়ার্টার ফাইনালে উঠতে হলে। তবে এখন আমরা শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ম্যাচটি নিয়েই শুধু ভাবছি। বিশ্বকাপে পয়েন্ট পাওয়া সত্যিই মনোবল চাঙ্গা করে দেয়। আমাদের খুশি হওয়া উচিত (১ পয়েন্ট পাওয়াতে)।’

প্রকাশিত : ২২ ফেব্রুয়ারী ২০১৫

২২/০২/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

খেলার খবর



ব্রেকিং নিউজ: