কুয়াশাচ্ছন্ন, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৪ ডিসেম্বর ২০১৬, ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, রবিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ

গাব্বায় বৃষ্টিতে লাভবান বাংলাদেশ ॥ ফের লজ্জার হার পাকিদের

প্রকাশিত : ২২ ফেব্রুয়ারী ২০১৫

মিথুন আশরাফ ॥ ‘কারো পৌষ মাস, কারো সর্বনাশ।’-ব্রিসবেনের গাব্বায় বাংলাদেশ-অস্ট্রেলিয়া ম্যাচ বৃষ্টিতে পরিত্যক্ত হয়ে যাওয়ায় পয়েন্ট ভাগাভাগি হলো। এক পয়েন্ট পেল বাংলাদেশ। সমান পয়েন্ট পেল অস্ট্রেলিয়াও। তবে পয়েন্টটি পেয়ে ‘পৌষ মাসে’র দেখা পেল মাশরাফিবাহিনী। আর ‘সর্বনাশে’র দেখা পেল ক্লার্কবাহিনী। এখন সামনে যে চারটি ম্যাচ রয়েছে, দুটি ম্যাচে জিতলেই কোয়ার্টার ফাইনাল উঠে যাওয়ার জোরালো সম্ভাবনা থাকছে বাংলাদেশের।

শুধু কী অস্ট্রেলিয়া, ইংল্যান্ড এ ম্যাচে না থেকেও যেন থাকল। ইংলিশরাও ‘সর্বনাশে’র সামনেই পড়ল! ম্যাচে বাংলাদেশ পয়েন্ট পেয়ে যাওয়ায় বিশ্বকাপে ‘গ্রুপ-এ’তে সবচেয়ে বাজে অবস্থায় থাকা ইংল্যান্ড (২ ম্যাচে ২ হার) যেন চিন্তিত হয়ে পড়ল। কোয়ার্টার ফাইনালে উঠতে হলে যে হাতে থাকা চার ম্যাচের সবতেই জিততে হবে ইংলিশদের। আর ইংলিশদের বিপক্ষে যদি বাংলাদেশ জিতে যায়, গ্রুপ পর্ব থেকেই বিদায় নিতে পারে ইংল্যান্ড। তখন বাংলাদেশ কোয়ার্টার ফাইনালে উঠে যাবে। বাংলাদেশের বিপক্ষে ম্যাচটি হলে জয়ের সম্ভাবনা যেখানে অস্ট্রেলিয়ারই ছিল, সেখান থেকে ১ পয়েন্ট বঞ্চিত হলো অস্ট্রেলিয়া। সর্বনাশই তো হলো।

দিনটিতে আবার আরেকটি এমন হারের ঘটনা ঘটল, যে হারে লজ্জাই শুধু লুকিয়ে থাকল। ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ক্রাইস্টচার্চে ১৫০ রানের বড় ব্যবধানে হারল। যা কি না পাকিস্তানের ইতিহাসে রানের দিক দিয়ে বিশ্বকাপে সবচেয়ে বড় হারও! পাকিদের নির্লজ্জ হারও হলো।

ইংল্যান্ডের মতো দুর্দশাতে আছে পাকিস্তানও। তবে বাংলাদেশ ক্রিকেটপ্রেমীরা কী এখন আর তা নিয়ে ভাবছেন। পরপর দুই ম্যাচে বিশ্বকাপে হার হয়নি, এটাই তো এখন ভাবার বিষয়। আনন্দের বিষয়ও। তা যেভাবেই হোক। বাংলাদেশ এর আগে ২০০৭ সালের বিশ্বকাপে জয় দিয়ে টুর্নামেন্ট শুরু করেছিল। সেই টুর্নামেন্টে শেষ আটেও খেলেছিল। এবারও তাহলে বাংলাদেশ সেই পথেই হাঁটছে। এবার তো পরপর দুই ম্যাচেই পয়েন্ট পেল বাংলাদেশ। ১৯৯৯ সাল থেকে এবারসহ ৫ বার বিশ্বকাপ খেলে যে অর্জন প্রথমবারের মতো মিলল। প্রথম ম্যাচে আফগানিস্তানকে ১০৫ রানে হারিয়ে পুরো ২ পয়েন্ট পেল। আর শনিবার ঘূর্ণিঝড় মার্সিয়ার হানায় একটি বলও মাঠে গড়ালো না। দুপুর পৌনে একটায় খেলা প- হওয়ার ঘোষণা এসে পড়ল। বাংলাদেশও ১ পয়েন্ট পেয়ে গেল।

এখন বাংলাদেশের গ্রুপের যে অবস্থা তৃতীয় স্থানে আছে মাশরাফিরা। এই গ্রুপে আফগানিস্তান ও স্কটল্যান্ডের বিপক্ষে সব দলই জিতবে ধরে নেয়া হচ্ছে। শুরুতে ধরা হয়েছিল নিউজিল্যান্ড, অস্ট্রেলিয়া, শ্রীলঙ্কা ও ইংল্যান্ড কোয়ার্টার ফাইনালে খেলবে। বাংলাদেশকেও হিসেবের বাইরেই রাখা হয়েছিল। কিন্তু পরপর দুই ম্যাচে পয়েন্ট পাওয়ায় এখন ইংল্যান্ডের বদলে বাংলাদেশকে কোয়ার্টার ফাইনালের দল ধরা হচ্ছে।

গ্রুপে সবচেয়ে বাজে অবস্থায় ইংল্যান্ড থাকায় ইংলিশদের গ্রুপ পর্ব থেকে ছিটকে পড়ার সম্ভাবনাই দেখছে সবাই। নিউজিল্যান্ড আছে সবচেয়ে সুবিধাজনক স্থানে। ৩ ম্যাচে ৬ পয়েন্ট পেয়েছে। অস্ট্রেলিয়া ও বাংলাদেশ এক ম্যাচে জয় ও এক ম্যাচ প- হওয়ায় ৩ পয়েন্ট করে পেয়েছে। শ্রীলঙ্কা, আফগানিস্তান ও স্কটল্যান্ড ১ ম্যাচ খেলে কোন পয়েন্ট যোগাড় করতে পারেনি। আর ইংল্যান্ড আছে পয়েন্ট তালিকার তলানিতে। দলটি এতটাই বিধ্বস্ত হয়েছে যে ২ ম্যাচে একটিতেও জিতেনি। তাই ধরা হচ্ছে, ইংল্যান্ডের যে দুর্বিষহ অবস্থা এ দলকেই বাংলাদেশের হারানোর সম্ভাবনা বেশি।

বাংলাদেশ ও ইংল্যান্ডের এখন আছে চারটি করে ম্যাচ। যদি ইংল্যান্ডকে কোয়ার্টার ফাইনালে উঠতে হয়, জিততে হবে চারটি ম্যাচই। যদি ইংলিশরা তা করতে না পারে আর বাংলাদেশের কাছে হেরে যায় সেক্ষেত্রে মাশরাফিরাই কোয়ার্টার ফাইনালে খেলবে। ইংল্যান্ডে যেখানে শ্রীলঙ্কা, স্কটল্যান্ড, আফগানিস্তান ও বাংলাদেশের বিপক্ষে সামনে খেলবে, সেখানে শ্রীলঙ্কা, স্কটল্যান্ড, ইংল্যান্ড ও নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে খেলা রয়েছে বাংলাদেশের। এ ম্যাচগুলোর মধ্যে ইংল্যান্ড যদি বাংলাদেশের কাছে হারে আর বাংলাদেশ যদি আরেকটি ম্যাচ (ধরে নেয়া হোক স্কটল্যান্ড) জিতে যায় তাহলেই হয়ে গেল। ইংল্যান্ড ৩ ম্যাচ জেতায় যেখানে ৬ পয়েন্ট পাবে। বাংলাদেশ সেখানে ৩ ম্যাচ জেতা ও এক ম্যাচ থেকে ১ পয়েন্ট পাওয়ায় ৭ পয়েন্ট নিয়ে কোয়ার্টার ফাইনালে উঠে যাবে। ঘূর্ণিঝড় মার্সিয়া যেন বাংলাদেশের জন্য আশীর্বাদ হয়েই এলো। অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ১ পয়েন্ট পেয়ে এখন কোয়ার্টার ফাইনালের স্বপ্নে বিভোরই বাংলাদেশ। স্বপ্নে এখন কোন হোঁচট না খেলেই হয়।

প্রকাশিত : ২২ ফেব্রুয়ারী ২০১৫

২২/০২/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

প্রথম পাতা



ব্রেকিং নিউজ: