কুয়াশাচ্ছন্ন, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৫ ডিসেম্বর ২০১৬, ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, সোমবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

জনবিচ্ছিন্ন খালেদা জনগণের বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষণা করেছেন, তাঁর সঙ্গে সংলাপ নয়

প্রকাশিত : ১৯ ফেব্রুয়ারী ২০১৫

সংসদ রিপোর্টার ॥ সরকার ও বিরোধী দলের সংসদ সদস্যরা বলেছেন, জনবিচ্ছিন্ন বিএনপি নেত্রী খালেদা জিয়া দেশের জনগণের বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষণা করেছেন। তাঁর সঙ্গে নিজ দলের নেতাকর্মীরাও নেই। নিজের কার্যালয়ে ‘অবরুদ্ধ’ থেকে কিছু টোকাই-সন্ত্রাসীকে ভাড়া করে তাদের দিয়ে মানুষ পুড়িয়ে হত্যা করছেন। এদের সঙ্গে কোন আপোস বা সংলাপ হতে পারে না। বরং খালেদা জিয়াসহ মানুষ হন্তারক নরপশুদের কঠোরভাবে দমন করতে হবে।

ডেপুটি স্পীকার এ্যাডভোকেট ফজলে রাব্বি মিয়ার সভাপতিত্বে বুধবার জাতীয় সংসদে রাষ্ট্রপতির ভাষণের ওপর সাধারণ আলোচনায় অংশ নিয়ে তাঁরা এসব কথা বলেন। আলোচনায় অংশ নেন সরকারী দলের হুইপ মোহাম্মদ শাহাব উদ্দিন, শেখ মোহাম্মদ নুরুল হক, তানভীর আলম, বেগম আখতার জাহান, সাগুফতা ইয়াসমীন, মাহমুদ উস সামাদ চৌধুরী, সালাউদ্দিন আহমেদ মুক্তি, নূরজাহান বেগম, সফুরা বেগম, সাবিনা আখতার তুহিন ও জাতীয় পার্টির আলতাফ হোসেন।

হুইপ মোহাম্মদ শাহাব উদ্দিন বিএনপি-জামায়াত জোটের সমালোচনা করে বলেন, খালেদা জিয়ার হরতাল-অবরোধ জনগণ ঘৃণাভরে প্রত্যাখ্যান করেছে। বিএনপি নেত্রী বাংলাদেশের শত্রু হিসেবে আবির্ভূত হয়ে দেশের মানুষকে হত্যা করছেন। যুদ্ধাপরাধীদের রক্ষায় তিনি মরিয়া হয়ে উঠেছেন। কিন্তু খালেদা জিয়া নিজেই অবরুদ্ধ হয়েছেন, জনগণকে অবরুদ্ধ করতে পারেননি। দেশের জনগণ ঐক্যবদ্ধভাবেই খালেদা জিয়াকে পরাজিত করবে।

সাবেক হুইপ সাগুফতা ইয়াসমীন জঙ্গী-সন্ত্রাসীদের হুকুমদাতা খালেদা জিয়ার সঙ্গে কোন ধরনের সংলাপ নাকচ করে দিয়ে বলেন, সন্ত্রাসী-জঙ্গী ও দানবের সঙ্গে কখনও সংলাপ চলে না। চললে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র জঙ্গীগোষ্ঠী তালেবান, আলকায়েদা ও আইএসের সঙ্গে সংলাপে বসত।

জাতীয় পার্টির আলতাফ হোসেন বলেন, মানুষরূপী কিছু নরপশু পুড়িয়ে মানুষ খুন করছে। এসব নরঘাতককে অবশ্যই কঠোর শাস্তি দিতে হবে। তিনি বগুড়া পৌরসভাকে সিটি কর্পোরেশনে উন্নীত করার দাবি জানান।

তানভীর ইমাম বলেন, আন্দোলনের মাধ্যমে এদেশে সামরিক শাসন ও স্বৈরাচারের পতন হয়েছে। কিন্তু সে সময়ে বোমা মেরে মানুষ হত্যা করতে হয়নি। ঘৃণ্য পরাজিত শক্তি দেশকে ধ্বংসের দিকে নিয়ে যেতে চায়। ঐক্যবদ্ধভাবে সেই চক্রান্ত প্রতিহত করতে হবে। তিনি বিএনপি-জামায়াতের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণের দাবি জানান।

মাহমুদ উস সামাদ চৌধুরী বলেন, খালেদা জিয়ার আন্দোলনের ডাকে বিএনপি নেতাকর্মীরাও মাঠে নামে না। তাই অর্থ দিয়ে টোকাই, সন্ত্রাসীদের ভাড়া করে পেট্রোলবোমা দিয়ে মানুষকে হত্যা করছে। এসব প্রত্যেকটি হত্যাকা-ের হুকুমের আসামি হিসেবে খালেদা জিয়ার বিচার অবশ্যই করতে হবে।

প্রকাশিত : ১৯ ফেব্রুয়ারী ২০১৫

১৯/০২/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

শেষের পাতা



ব্রেকিং নিউজ: