কুয়াশাচ্ছন্ন, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৪ ডিসেম্বর ২০১৬, ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, রবিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ

ঘাতক-সন্ত্রাসীদের সঙ্গে কোন সংলাপ নয়

প্রকাশিত : ১৯ ফেব্রুয়ারী ২০১৫
  • ১৪ দলের ঘোষণা

বিশেষ প্রতিনিধি ॥ বাংলাদেশের চলমান রাজনৈতিক অস্থিরতা ও সহিংসতা থেকে উত্তরণে জাতিসংঘ মহাসচিবের চিঠি পেলেও ঘাতক-সন্ত্রাসী বিএনপির সঙ্গে সংলাপের সম্ভাবনা নাকচ করে দিয়েছে আওয়ামী লীগের নেতৃত্বাধীন কেন্দ্রীয় ১৪ দল। ক্ষমতাসীন এ জোটের নেতারা বলেছেন, সন্ত্রাসী-নাশকতাকারী ও খুনীদের সঙ্গে সংলাপ করা মানেই এসব জঘন্য কর্মকা-কে উস্কে দেয়া। তাই তাদের সঙ্গে সংলাপের প্রশ্নই উঠে না। বুধবার বিকেলে আওয়ামী লীগ সভানেত্রীর রাজনৈতিক কার্যালয়ে এক মতবিনিময় সভা শেষে প্রেস ব্রিফিংকালে এ সংক্রান্ত এক প্রশ্নের জবাবে ১৪ দলের মুখপাত্র ও স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম বলেন, অনেকে অনেকভাবে সংলাপের ব্যাপারে আশা প্রকাশ করতেই পারে। কিন্তু আমরা আমাদের সিদ্ধান্তে অটল। যারা দানবের মতো মানুষের ওপর হামলা করে, মানুষকে পুড়িয়ে হত্যা করে- তাদের সঙ্গে কোন সংলাপ হবে না। সংলাপের প্রশ্নই উঠে না।

সংবাদিকদের অপর এক প্রশ্নের জবাবে আওয়ামী লীগের সভাপতিম-লীর এই সদস্য বলেন, আইনশৃঙ্খলা বাহিনী আক্রান্ত হলে পাল্টা গুলি করবেই। আইনশৃঙ্খলা বাহিনী ব্যবস্থা নেবেই। তারা আগে থেকেই বলে আসছে আক্রান্ত হলে গুলি করবে। জামায়াতের নায়েবে আমির আবদুস সোবহানের ফাঁসির রায়ে সন্তুষ্ট প্রকাশ করে ১৪ দলের এই মুখপাত্র বলেন, রায়ে আমরা কেন্দ্রীয় ১৪ দল সন্তুষ্ট। এ রায়ের জন্য প্রধানমন্ত্রী ও ট্রাইব্যুনালকে অভিনন্দন। এই রায়ে জনমনে স্বস্তি এসেছে, একই সঙ্গে ১৪ দল স্বস্তি প্রকাশ করছে।

ঢাকা মহানগরের সভাপতি, সাধারণ সম্পাদক, আওয়ামী লীগের সহযোগী, ভ্রাতৃপ্রতিম সংগঠনের সভাপতি, সাধারণ সম্পাদক এবং ঢাকা মহানগরের অন্তর্গত দলীয় সংসদ সদস্যদের সঙ্গে অনুষ্ঠিত এই মতবিনিময় সভায় বেশ কর্মসূচী গ্রহণ হয়। কর্মসূচীর মধ্যে রয়েছে- বিএনপি-জামায়াত জোটের হরতাল-অবরোধের নামে মানুষ পুড়িয়ে হত্যার প্রতিবাদে আগামীকাল ২০ ফেব্রুয়ারি ঢাকাসহ সারাদেশে শান্তি মিছিল করবে কেন্দ্রীয় ১৪ দল। ঢাকায় গণমছিলটি বঙ্গবন্ধু এভিনিউর আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয় থেকে শুরু হয়ে ঐতিহাসিক সোহ্রাওয়ার্দী উদ্যানে গিয়ে শেষ হবে। এছাড়া আগামী ২৪ ফেব্রুয়ারি রাজশাহীর কাঁটাখালি এবং ২৮ ফেব্রুয়ারি রাজধানীর বংশালে সমাবেশ করার ঘোষণা দিয়েছে ১৪ দল।

বৈঠক শেষে প্রেস ব্রিফিংকালে আওয়ামী লীগের সভাপতিম-লীর সদস্য এ্যাডভোকেট সাহারা খাতুন, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল আলম হানিফ ও এ্যাডভোকেট জাহাঙ্গীর কবির নানক, সাংগঠনিক সম্পাদক আহমদ হোসেন ও খালিদ মাহমুদ চৌধুরী, সাম্যবাদী দলের সাধারণ সম্পাদক দিলীপ বড়ুয়া, গণতন্ত্রী পার্টির সাধারণ সম্পাদক ডাঃ জাকির হোসেন, ন্যাপ নেতা ইসমাইল হোসেন, আওয়ামী লীগের স্বাস্থ্য সম্পাদক ডাঃ বদিউজ্জামান ভুইয়া ডাবলু, তথ্য ও গবেষণা বিষয়ক সম্পাদক এ্যাডভোকেট আফজাল হোসেন, ত্রাণ সম্পাদক ফরিদুন্নাহার লাইলী, মহিলা সম্পাদক ফজিলাতুন্নেছা ইন্দিরা, সদস্য একেএম এনামুল হক শামীম, সংসদ সদস্য ব্যারিস্টার ফজলে নূর তাপস ও ইলিয়াস মোল্লা, ছাত্রলীগের সভাপতি এইচএম বদিউজ্জামান সোহাগ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

সিটি নির্বাচনের প্রস্তুতি নেয়ার আহ্বান ত্রাণমন্ত্রী মায়ার ॥ ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের আসন্ন ঢাকার দুই সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনের প্রস্তুতি নেয়ার আহ্বান জানিয়েছেন ত্রাণমন্ত্রী ও নগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া বীরবিক্রম। তিনি বিভিন্ন থানা ওয়ার্ড ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি-সাধারণ সম্পাদকসহ দলীয় নেতাদের উদ্দেশে বলেন, সিটি কর্পোরেশনের নির্বাচন খুব তাড়াতাড়ি হবে। আপনারা যারা রাজধানীর বিভিন্ন ওয়ার্ডে কাউন্সিলর পদে নির্বাচন করতে চান তারা এখনই প্রস্তুতি নিন। মানুষের সঙ্গে আরও বেশি করে যোগাযোগ স্থাপন করুন। এলাকায় আরও বেশি সময় দেন। সাধারণ মানুষের নিরাপত্তায় দলীয় নেতাকর্মীদের নিয়ে সন্ত্রাস ও জঙ্গীবাদের বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধ থাকুন।

রাজধানীর বঙ্গবন্ধু এভিনিউয়ের আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে বুধবার নগর আওয়ামী লীগের বর্ধিত সভায় তিনি এ আহ্বান জানান। আগামীকাল ২০ ফেব্রুয়ারি জঙ্গীবাদ ও সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে এবং শান্তির পক্ষে কেন্দ্রীয় ১৪ দল আহূত গণমিছিলকে সফল করার লক্ষ্যে ওই বর্ধিতসভা অনুষ্ঠিত হয়। সংগঠনের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি এম এ আজিজের সভাপতিত্বে বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন ফয়েজউদ্দিন মিয়া, শেখ বজলুর রহমান, হাজী মোহাম্মদ সেলিম এমপি, আওলাদ হোসেন, মুকুল চৌধুরী, শাহে আলম মুরাদ, ডাঃ দিলীপ রায়, আবদুল হক সবুজ, জাহানারা বেগম প্রমুখ।

নগর আওয়ামী লীগের বর্ধিত সভায় খালেদা জিয়ার আন্দোলনের নামে মানুষ হত্যার তীব্র সমালোচনা করে মায়া বলেন, খালেদা জিয়া পেট্রোলবোমার রানী ও মানুষ হত্যার কারিগর। তিনি হরতাল-অবরোধ দিয়ে মানুষ হত্যা করে ক্ষমতায় যেতে চান। খালেদা-জামায়াতের এই পৈচাশিক হত্যার বিরুদ্ধে নেতাকর্মীদের আরও সুসংগঠিতভাবে মাঠে কাজ করতে হবে। প্রতিটি থানা ও ওয়ার্ড এলাকায় নেতৃবৃন্দকে আরও শক্ত অবস্থান নিতে হবে। তিনি বলেন, খালেদা জিয়ার ক্ষমতায় যাওয়ার স্বপ্ন অচিরেই দুঃস্বপ্নে পরিণত হবে।

প্রকাশিত : ১৯ ফেব্রুয়ারী ২০১৫

১৯/০২/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

শেষের পাতা



ব্রেকিং নিউজ: