মূলত পরিষ্কার, তাপমাত্রা ২১.১ °C
 
১০ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, শনিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ

সিলেটে মুহিত খালেদা জিয়া এখন দেশের শত্রু

প্রকাশিত : ১৬ ফেব্রুয়ারী ২০১৫

স্টাফ রিপোর্টার, সিলেট অফিস ॥ অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত বলেছেন, বেগম খালেদা জিয়া এখন দেশের শত্রু। তাই দেশবাসীর উচিত খালেদা জিয়াকে পরিহার করা। তার নির্দেশে সারাদেশে সন্ত্রাসী কার্যক্রম ও গুপ্ত হামলা চলছে । তিনি একস্থানে বসে নাশকাতমূলক কর্মসূচী ঘোষণা করছেন। তার গু-া-পা-ারা সারাদেশে সন্ত্রাস করছে। তিনি এখন সন্ত্রাসীদের রানীতে পরিণত হয়েছেন। রবিবার দুপুরে সিলেটে চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালত ভবনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতাকালে তিনি এ কথা বলেন।

অর্থমন্ত্রী বলেন, বিএনপির চলমান আন্দোলন কোন রাজনৈতিক আন্দোলন নয়। এটা সন্ত্রাসী আন্দোলন। এটাকে দমন করা আমাদের দায়িত্ব। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে আইনমন্ত্রী আনিসুল হক বলেন-

জামায়াত-শিবিরকে নিষিদ্ধের আগে তাদের বিচার করতে হবে। এর পর জামায়াতকে নিষিদ্ধ করা হবে। জেলা জজকোর্ট প্রাঙ্গণে জেলা জজ খন্দকার কামালোজ্জামানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন আইন, বিচার এবং সংসদ বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিব আবু সালেহ শেখ মুহাম্মদ জহিরুল হক । ১৭ হাজার ৩শ’ ১৪ বর্গফুট আয়তনবিশিষ্ট চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালত ভবন নির্মাণে ব্যয় হয়েছে প্রায় ২৬ কোটি টাকা। এতে সিলেটে আদালতের বিচার কাজের আরও গতিশীলতা আসবে বলে আশা করা যাচ্ছে। সিলেট আদালতে এজলাস সঙ্কটের কারণে বিচার কার্যক্রমে সংশ্লিষ্টদের দুর্ভোগের শেষ ছিল না। নতুন বিচারকগণ সিলেটে পোস্টিং পেলেও এজলাস সঙ্কটে কার্যক্রম শুরু করতে পারেননি অনেকেই। একই এজলাসে ডবল শিফটে বিচার কার্যক্রম পরিচালনা করতে তাদের ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছিল। সিলেট চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট কোর্টের ভবন নির্মাণ হওয়ায় এ দুর্ভোগ অনেকটা লাঘব হবে বলে মনে করা হচ্ছে।

সিলেট গণপূর্ত বিভাগ সূত্রে জানা গেছে, ২০০৯ সালের ৩ সেপ্টেম্বর অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত এমপি সিলেট চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট কোর্ট ভবনের নির্মাণ কাজের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন। প্রথমে ২১ কোটি ৮৯ লাখ টাকা ব্যয়ে এ ভবনের নির্মাণ কাজ শুরু হয়। ৬৪টি জেলায় চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালত ভবন প্রকল্পের আওতায় প্রথম পর্যায়ে সিলেটে এ ভবনের কাজ গ্রহণ করা হয়। কিন্তু জমি ও মাটি ভরাটে দেরি হওয়ায় কাজে কিছুটা সময় লেগে যায়। ২০১২ সালের ১৯ এপ্রিল প্রকল্পের কাজ শুরু হয়। ফেব্রুয়ারি মাসে কাজ শেষ হয়।

প্রকাশিত : ১৬ ফেব্রুয়ারী ২০১৫

১৬/০২/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

প্রথম পাতা



ব্রেকিং নিউজ: