মূলত পরিষ্কার, তাপমাত্রা ২১.১ °C
 
৯ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, শুক্রবার, ঢাকা, বাংলাদেশ

ক্যাম্পাসে ভাললাগা ভালবাসা‍

প্রকাশিত : ১৫ ফেব্রুয়ারী ২০১৫
  • ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ॥ টিএসসি

বিশ্ববিদ্যালয় জীবনের প্রথম দিন থেকেই সানজিদ ও শাকিলার ভাললাগার স্থান টিএসসি মাঠ। ভর্তির পর তাদের প্রথম দেখা এ মাঠেই। শাকিলাকে প্রথম দেখাতেই সানজিদের খুব ভাল লাগে। অনেক কষ্ট করে মোবাইল নম্বর সংগ্রহ করে সানজিদ। ফোন দেয় শাকিলাকে। এরপর প্রায়ই তাদের দেখা হয় এ মাঠে। বিশ্ববিদ্যালয়ের পছন্দের প্রেমের স্পট কোনটি? এমন প্রশ্নের জবাবে এভাবেই কথাগুলো বলছিলেন এই প্রেমিক জুটি। টিএসসি ছাড়াও ক্যাম্পাসের অনুষদভিত্তিক আলাদা আলাদা স্পট পছন্দ জুটিদের। কলা অনুষদের ছাত্রছাত্রীরা বটতলা, আন্তর্জাতিক হলের সামনের মাঠ; বিজ্ঞান অনুষদের ছাত্রছাত্রীরা কার্জন হলের পেছনে পুকুরপাড় এবং সায়েন্স লাইব্রেরির পেছনের বারান্দা; চারুকলা অনুষদের শিক্ষার্থীরা চারুকলার পুকুরপাড়কে ব্যবহার করেন চুটিয়ে প্রেমের জন্য। এছাড়া মেয়েদের হলগুলো, বিশেষত শামসুন্নাহার ও রোকেয়া হলের সামনে বেলা গড়াতেই ভিড় জমতে শুরু করেন লাইলী-মজনুর দল। প্রেমের স্পট হিসেবে ফজিলাতুন্নেছা মুজিব হলের সামনের রাস্তার আলাদা সুনাম রয়েছে। এখানে প্রেম করার জন্য বহিরাগতদের পছন্দ ফুলার রোড।

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় ॥ লাভ আইল্যান্ড

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় যেন ভালবাসার এক মায়াপুরী। প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের অপরূপ লীলাভূমি এ ক্যাম্পাস। বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা ছাড়াও ঢাকাসহ আশপাশের এলাকার প্রেমিক যুগলের আনাগোনায় মুখর থাকে পুরো বিশ্ববিদ্যালয়। ক্যাম্পাসজুড়ে নানা বয়সের মানুষের আড্ডা দেয়ার, ভাবের আদানপ্রদানের জন্য রয়েছে বিশেষ কিছু স্পট। এগুলোর মধ্যে লন্ডন ব্রিজ, মুক্তমঞ্চ, শহীদ মিনার, সপ্তম ছায়ামঞ্চ, মুক্তিসরণি, ক্যাফেটিরিয়া, বোটানিক্যাল গার্ডেনের বহির্বিভাগ, বটতলা, পুরাতন কলা ভবনের জলাশয়ের পূর্বপাশে মেহের চত্বর বা লাভ আইল্যান্ড, টিএসসির বারান্দা, রেজিস্ট্রার ভবনের সম্মুখভাগের পাকা বেঞ্চ, অডিটরিয়াম বারান্দা, সুইমিংপুল, দক্ষিণ পাশ, ডাবলু ভবন অন্যতম।

শাহজালাল বিশ্ববিদ্যালয় ॥ প্রেম কিলো

লিনা ও তারেকের ভাল লাগে ছায়া সুনিবিড় সবুজে ঘেরা জাবির কেন্দ্রীয় অডিটরিয়াম চত্বর। সিঁড়িতে বসে মনের একান্ত কথাগুলো ভাগাভাগি করেন তাঁরা। সবচেয়ে ভাল লাগে ন্যাসব্যাকে চত্বরের পাশে কাশফুল গাছের নিচে বসে কফির পেয়ালায় চুমুক দিয়ে চোখে চোখ রেখে তাকিয়ে থাকতে। প্রিয় স্থানের কথা জিজ্ঞেস করতে এভাবেই বলছিলেন এই যুগল।

মেহগনি, কড়ই, জারুল গাছ ঘেরা গোল চত্বরে থেকে প্রধান ফটকের দূরত্ব মাত্র এক কিলোমিটার। এই এক কিলো রাস্তাও অনেক জুটির প্রিয় স্থান। এক কিলোর দুই ধারে লেকের পাশে বেঞ্চিতে বসে পড়ন্ত বিকেলে একান্তে সময় কাটাতে ভালও লাগে তাদের। অনেকে একে বলে ‘প্রেম কিলো’। সবুজের অনন্য পসরা এ বিশ্ববিদ্যালয়ের পরতে পরতে। এসব স্থানে বসে দু’দ- প্রেমালাপ কিংবা জম্পেশ আড্ডা পরম আরাধ্যে। ঘুমজাগানিয়া সকাল, ব্যস্ত দুপুর কিংবা অলস বিকেলে ভালবাসা ভাললাগার কমতি নেই প্রেমিক যুগলদের। বেশিরভাগ প্রেমিক যুগলেরই পছন্দের স্থান হিসেবে শীর্ষে রয়েছে শহীদ মিনার। বহিরাগত প্রেমিক জুটিরাও এখানেই সবচেয়ে বেশি সময় কাটায়। একাডেমিক ভবন ‘ডি’র শিক্ষার্থীরা কদমতলা, অর্জন চত্বর বা কাশফুল গাছের নিচে সময় কাটায় আর ভবিষ্যতের স্বপ্ন বোনে। সন্ধ্যায় বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান ফটক থেকে প্রবেশপথের এক কিলোতে (প্রেম কিলো) জুটিদের ঘণ্টার পর ঘণ্টা মৃদু পায়ে হাঁটা চোখে পড়ার মতো। একাডেমির ভবন ‘ডি’র পাশে, পোস্ট অফিসের সামনে, ছাত্রী হলের পেছনের পাহাড় এবং সেন্ট্রাল ক্যাফেটিরিয়াতে প্রেম চলে সময়ের কথা ভুলে গিয়ে। বিকেল গড়াতেই সবুজের আল্পনায় আঁকা কার্যকর মনোগ্রামের আশপাশে, গোল চত্বর এলাকায় উদ্দেশ্যহীন ঘোরাঘুরি আড্ডা এ যেন নিত্যদিনের চিত্র।

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় ॥ ইবলিস চত্বর

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের ইবলিস চত্বর, যা কাগজে কলমে পুরনো ফোকলোর চত্বর। কিন্তু এখনকার প্রেমের দুনিয়ায় জায়গাটি ইবলিস চত্বর নামেই পরিচিত। এখানে সকাল থেকে রাত ৮-৯টা পর্যন্ত প্রেমিক-প্রেমিকারা বসে বসে সময় কাটায়। শুধু প্রেমিক-প্রেমিকাই নয়, এখানে সমানতালে আড্ডা চলে বন্ধুবান্ধবের মধ্যে। তবে তা প্রেমিক যুগলের চেয়ে সংখ্যায় কম। এই চত্বরে লাইলি-মজনুদের আনাগোনা বেশি হয় বিকেলের দিকেই। শুধু ইবলিস চত্বরই নয়, ক্যাম্পাসজুড়েই প্রেমিক-প্রেমিকাদের ঘুরে বেড়াতে দেখা যায়। এর মধ্যে সাবাস বাংলাদেশ চত্বর, টুকিটাকি চত্বর, ভূতবাগান, চারুকলা চত্বর, শহীদ মিনার চত্বর অন্যতম।

শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় ॥ প্রেমের টাওয়ার

বিশ্ববিদ্যালয়ে টিএসটি না থাকার কারণে কৃষি টাওয়ারকে কেন্দ্র করে জমে ওঠে শিক্ষার্থীদের আড্ডা, গল্প আর কপোত-কপোতিদের ভাবের আদান-প্রদানের মধুর দৃশ্য। এ কারণে অনেকেই এ টাওয়ারকে প্রেমের টাওয়ার হিসেবে অভিহিত করেন। এছাড়া আমতলা, পুকুরপাড় কিংবা রাস্তার পাশে প্রেমিক যুগল সময় কাটিয়ে থাকে ঘণ্টার পর ঘণ্টা।

বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় ॥ ব্রহ্মপুত্র নদের তীর

বর্তমান সময়ে বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্রছাত্রী ভর্তির অনুপাত সমানে সমান হওয়ায় এ প্রবণতা অনেকটাই বেশি। কোথায় কাটে প্রেমের ক্ষণ? এগুলোর মধ্যে বিশ্ববিদ্যালয়ের বিজয় ’৭১, শহীদ মিনার, ব্রহ্মপুত্র নদের তীর, বোটানিক্যাল গার্ডেন, আমবাগান, জব্বার মোড়, কেআর মার্কেট, ছাত্রী হলের সম্মুখের রাস্তা, বিভিন্ন অনুষদের বাড়িঘর, টিএসসি উল্লেখযোগ্য। এ সব জায়গায় সর্বত্রই দেখা যায় মধুর দৃশ্য। এসব স্থান আরও মুখরিত হয় ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজ সিবিএমসিবি ও সরকারী আনন্দ মোহন কলেজের জুটিদের আগমনে।

ইডেন মহিলা কলেজ ॥ প্রেমের রাস্তা

রাজধানীর ইডেন কলেজে টিএসসি বা একান্তে সময় কাটানোর জন্য কোন নির্র্দিষ্ট জায়গা না থাকায় প্রেমিক যুগলকে বসতে হয় সামনের রাস্তায়। সেখানে বসেই চলে জম্পেশ আড্ডা আর প্রেমিক যুগলের খুনসুটি।

মাঈন উদ্দিন

প্রকাশিত : ১৫ ফেব্রুয়ারী ২০১৫

১৫/০২/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


ব্রেকিং নিউজ: