আংশিক মেঘলা, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৭ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, বুধবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

রফতানিমুখী খাতে সবুজ অর্থায়নে ৫০ কোটি ডলারের তহবিল

প্রকাশিত : ১৫ ফেব্রুয়ারী ২০১৫
  • ঘোষণা দিলেন গবর্নর ড. আতিউর

অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ বাংলাদেশ ব্যাংক গবর্নর ড. আতিউর রহমান বলেছেন, ২০২১ সালের মধ্যে পোশাক খাত থেকে ৫০ বিলিয়ন ডলার রফতানি করতে হলে এ শিল্পকে সবুজ শিল্পে পরিণত করতে হবে। এজন্য নীতি প্রণয়নকারীদের সবুজায়ন দরকার। পাশাপাশি নীতি বাস্তবায়নকারীদেরও সবুজ হতে হবে। নীতি বাস্তবায়নে এবং সবুজ অর্থায়নের জন্য বাজেটে আলাদা নজর থাকা উচিত। শনিবার এক সেমিনারে বাংলাদেশ ব্যাংক গবর্নর ড. আতিউর রহমান এসব কথা বলেন। এ সময় তিনি রফতানিমুখী খাতে সবুজ অর্থায়নের জন্য ৫০ কোটি ডলারের (প্রায় চার হাজার কোটি টাকা) নতুন একটি রফতানি উন্নয়ন তহবিল (ইডিএফ) গঠনেরও ঘোষণা দেন। ‘একসেস টু ফাইন্যান্স-এনভায়রনমেন্ট সাসটেইনেইবলিটি ইন টেক্সটাইল সেক্টর’ শীর্ষক সেমিনারের আয়োজন করে গবেষণা প্রতিষ্ঠান পলিসি রিসার্চ ইনস্টিটিউট (পিআরআই)। প্রতিষ্ঠানটির নিজস্ব কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত সেমিনারের সহ-আয়োজক ছিল ইন্টারন্যাশনাল ফিন্যান্স কর্পোরেশন (আইএফসি)। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন গবর্নর ড. আতিউর রহমান। অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন পিআরআইয়ের নির্বাহী পরিচালক ড. আহসান এইচ মনসুরের পরিচালনায় অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ ওয়াটার প্যাক্টের প্রোগ্রাম ম্যানেজার মৃণাল সরকার, বাংলাদেশ ব্যাংকের অর্থনৈতিক উপদেষ্টা ড. আখতারুজ্জামান, সিপিডির নির্বাহী পরিচালক ড. মুস্তাফিজুর রহমান।

ড. আতিউর রহমান বলেন, ব্যাংকগুলোকে সবুজ ব্যাংকিংয়ে উৎসাহিত করা হচ্ছে। সবুজ অর্থায়নে ৪৭ পণ্য ও সেবা ব্যাংকগুলোর জন্য নির্ধারণ করা হয়েছে। পুনঃঅর্থায়ন কর্মসূচীর আওতায় এসব সেবায় ব্যাংকগুলোকে বিনিয়োগ করতে হবে। তিনি বলেন, ভারতসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশ এখন পরিবেশবান্ধব কারখানা প্রতিষ্ঠার দিকে নজর দিচ্ছে। এজন্য তাদের বাজেটেও পর্যাপ্ত বরাদ্দ রাখছে। কিন্তু আমাদের দেশে এখনও বাজেটে এ ধরনের কোন পদক্ষেপ নেয়া হয়নি। তাই আগামী বাজেটে এবং আসন্ন সপ্তম পঞ্চবার্ষিকী পরিকল্পনায় পরিবেশবান্ধব কারখানা প্রতিষ্ঠার দিকে সুনজর দিতে সরকারের প্রতি আহ্বান জানান তিনি। গবর্নর বলেন, বাংলাদেশে প্রধান রফতানি আয়ের উৎস পোশাক খাত। এ খাতে বর্তমানে ৪০ লাখ মানুষ কর্মরত। এর ৮০ শতাংশই নারী। পোশাক খাতে পরিবেশবান্ধব কারখানার অভাবে রফতানি বাণিজ্য ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে। তাই আমাদের পোশাক খাতসহ রফতানি আয়ের প্রধান খাতগুলো পরিবেশবান্ধব করতে হবে। মূল ধারার পাশাপাশি পরিবেশবান্ধব অর্থায়নে সংশ্লিষ্ট সবাইকে এগিয়ে আসতে হবে। আতিউর রহমান আরও বলেন, ৫০০ মিলিয়ন ডলারের রফতানি উন্নয়ন তহবিল (ইডিএফ) গঠন করতে যাচ্ছে বাংলাদেশ ব্যাংক। যাঁরা পরিবেশবান্ধব খাতে বিনিয়োগ করতে চান তাঁরা এ তহবিল থেকে সহায়তা পাবেন। ২০২১ সালের মধ্যে আমাদের রফতানি লক্ষ্যমাত্রা ৫০ বিলিয়ন ডলারে উন্নীত করতে পরিবেশবান্ধব কারখানার বিকল্প নেই। অনুষ্ঠানে ফিন্যান্সিয়াল এক্সিলেন্স লিমিটেডের চেয়ারম্যান মামুন রশিদ, স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড ব্যাংকের সিইও আবরার এ আনোয়ার, বিজিএমইএর সাবেক সহ-সভাপতি ফারুক হাসান, ডিবিএল গ্রুপের এমডি মোহাম্মদ আবদুল জব্বার প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।

সেমিনারে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন ড. আহসান এইচ মনসুর ও এটি ক্যাপিটালের ম্যানেজিং পার্টনার ইফতি ইসলাম। প্রবন্ধে বলা হয়, বাংলাদেশের রফতানি আয়ের ৮০ শতাংশ আসে পোশাক খাত থেকে। এ খাতে ৩ দশমিক ৬ মিলিয়ন মানুষ কাজ করেন। এদের ৮৫ শতাংশ নারী। বর্তমানে এ খাতে সংকটের মধ্য দিয়ে যাচ্ছে। রানাপ্লাজা দুর্ঘটনা ও তাজরীনে অগ্নিকা-ের পর থেকে এ অবস্থা সৃষ্টি হয়েছে বলে জানানো হয় প্রবন্ধে। সেমিনারে বক্তারা বলেন, পোশাক শিল্পের কারখানাগুলোকে সবুজায়ন করার ক্ষেত্রে অর্থের সংস্থান একটা বড় চ্যালেঞ্জ। এছাড়া এ শিল্পের সঙ্গে জড়িতদের সার্বিকভাবে সচেতন করে তোলার কোন বিকল্প নেই। কেবল বিনিয়োগ নিরাপদ নয়, দেশের মানুষকে নিরাপদ রাখার জন্য শিল্প-কারখানাগুলোকে সঠিকভবে সবুজায়ন করা দরকার। আর তা করতে কৌশলগত অবস্থান ঠিক করলেই উদ্দেশ্য সফল হবে।

প্রকাশিত : ১৫ ফেব্রুয়ারী ২০১৫

১৫/০২/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

অন্য খবর



ব্রেকিং নিউজ: