হালকা কুয়াশা, তাপমাত্রা ১৮.৯ °C
 
৮ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, বৃহস্পতিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

পদ্মা সেতুর ট্রায়াল পাইল বসানোর হ্যামার এখন মাওয়ায়

প্রকাশিত : ১৫ ফেব্রুয়ারী ২০১৫
  • পরিবেশবিদদের প্রকল্প এলাকা পরিদর্শন

মীর নাসিরউদ্দিন উজ্জ্বল, মুন্সীগঞ্জ ॥ পদ্মা বহুমুখী সেতু প্রকল্প এলাকা পরিদর্শন করেছেন দু’জন পরিবেশবিদ। তারা পদ্মা সেতুর প্রকল্প এলাকা ঘুরে দেখেন। এছাড়া পদ্মা সেতুর ট্রায়াল (পরীক্ষামূলক) পাইল বসানোর হ্যামারটি শুক্রবার মাওয়ায় এসে পৌঁছেছে। আজ রবিবার এসে পৌঁছবে ট্রায়াল পাইল।

শুক্রবার সকালে পদ্মা সেতুর কন্সালট্যান্ট ও পরিবেশবিদ ড. নাহিদ আমিন ও ড. নাজিম উদ্দিন প্রকল্প এলাকা পরিদর্শন করেন। এ সময় তাদের সঙ্গে ছিলেন পদ্মা সেতুর নির্বাহী প্রকৌশলী (মূল সেতু) দেওয়ান মোঃ আব্দুল কাদের ও নির্বাহী প্রকৌশলী (নদী শাসন) সারফুল ইসলাম। পরিবেশবিদরা সেতুর শ্রমিক ও কর্মকর্তাদের স্বাস্থ্য ও নিরাপত্তার বিষয়সহ পরিবেশগত অন্যান্য বিষয় সম্পর্কে খোঁজখবর করেন। শ্রমিকদের চিকিৎসার জন্য যথাযথ ব্যবস্থা, তাদের কাজের সময় দুর্ঘটনা এড়ানো নিশ্চিত করা হয়েছে কি-না সে সম্পর্কে তারা সরেজমিন পরিদর্শন করেন। সূত্র জানায়, পরিবেশবিদদ্বয়, সেতু এলাকার কাজ দেখে সন্তোষ প্রকাশ করেন। তাছাড়া ছোটখাটো কোন ভুলত্রুটি থাকলে সে সম্পর্কে তারা পরে যথাযথ নির্দেশনা দেবেন।

এদিকে পদ্মা সেতুর ট্রায়াল পাইল বসনোর জন্য জার্মানির তৈরি ট্রায়াল (পরীক্ষামূলক) হ্যামারটি শুক্রবার চট্টগ্রাম থেকে নদীপথে মাওয়ায় এসে পৌঁছছে। রবিবার চট্টগ্রাম থেকে নৌপথে মাওয়ায় এসে পৌঁছবে ১০ ট্রায়াল পাইল। গত ২৩ জানুয়ারি চীন থেকে এ পাইল জাহাজে করে বাংলাদেশের উদ্দেশ্যে রওনা হয়। পথে ২৯ জানুয়ারি সিঙ্গাপুর হতে বিশাল ওজনের ট্রায়াল হ্যামারটি তুলে নেয়া হয় জাহাজে। এই চালানে ছিল ১০ পাইলের ৫০ টুকরো ও ১শ’ ৪৭ টন ওজনের জার্মানির তৈরি হ্যামার। হ্যামারটি ৫ খ-বিশিষ্ট। এরমধ্যে বড় খ-টির ওজন ৫৭ টন। এই ওজন সড়কপথে পরিবহন সহনীয় না হওয়ায় কাস্টমসের আনুষ্ঠানিকতা শেষে চট্টগ্রাম থেকে নদীপথে মাওয়ায় নিয়ে আসা হয়েছে। পরীক্ষামূলক এ ১০ পাইল দিয়ে পদ্মা সেতুর মাওয়া প্রান্তের দুই নম্বর পিলারের কাজ শুরু করা হবে। আগামী মার্চের ২০ তারিখ থেকে এই ট্রায়াল পাইলের কাজ শুরু হওয়ার কথা রয়েছে। তার আগে ১ মার্চ থেকে সরু এ্যাঙ্কর পাইল বসানোর কাজ শুরু হবে। গত ৫ ফেব্রুয়ারি এ ট্রায়াল পাইল ও হ্যামার চীন থেকে জাহাজে করে চট্টগ্রামে এসে পৌঁছে।

এসব পাইল বসাতে ইতোমধ্যে মাওয়ায় তৈরি করা হয়েছে মঞ্চ। এ মঞ্চ ব্যবহার করে ও নদীর ওপর ভাসমান ক্রেন হতে এসব পাইল বসানো হবে পদ্মার বুকে মাটির নিচে। এছাড়া ১২ ট্রায়াল পাইলের মধ্যে বাকি দু’টি কনস্ট্রাকশন পাইল তৈরি করা হবে সেতুস্থলের কনস্ট্রাকশন ইয়ার্ডে। চীনের এ পাইল কারখানাটি লৌহজংয়ের কুমারভোগের পদ্মা সেতু কনস্ট্রাকশন ইয়ার্ডে স্থানান্তর করা হবে। পরবর্তীতে এখানেই তৈরি হবে সেতুর সকল মূল পাইল। অবরোধ-হরতাল সত্ত্বেও মাওয়ায় দেশী- বিদেশী প্রায় ৬ হাজার সামরিক-বেসামরিক লোক কাজ করছে।

বিশেষ কালো পাথরের পুরোটাই মাওয়ায় পৌঁছবে চলতি সপ্তাহে ॥ চাঁপাইনবাবগঞ্জ থেকে স্টাফ রিপোর্টার জানান, পদ্মা সেতুর জন্য ভারত থেকে আমদানি করা বিশেষ কালো পাথরের মজুদ প্রায় শেষ হয়ে আসছে সোনামসজিদ স্থলবন্দরে।

প্রকাশিত : ১৫ ফেব্রুয়ারী ২০১৫

১৫/০২/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

অন্য খবর



ব্রেকিং নিউজ: