আংশিক মেঘলা, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৬ ডিসেম্বর ২০১৬, ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, মঙ্গলবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

প্রশ্ন ইইউ দূতের ॥ মানুষ কিভাবে এই বর্বরতা করতে পারে?

প্রকাশিত : ১২ ফেব্রুয়ারী ২০১৫

স্টাফ রিপোর্টার ॥ রাজনৈতিক কর্মসূচীর নামে আগুন দিয়ে সাধারণ মানুষ হত্যার ঘটনাকে বর্বরোচিত ও মর্মান্তিক বলে মন্তব্য করেছেন ইউরোপীয় ইউনিয়নের রাষ্ট্রদূত পিয়েরে মায়াডোন। প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে বুধবার সৌজন্য সাক্ষাতকালে তিনি বলেন, এই ধরনের সহিংসতা মঙ্গল বয়ে আনবে না। প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে এই সাক্ষাত শেষে প্রধানমন্ত্রীর উপ-প্রেস সচিব এম নজরুল ইসলাম এ বিষয়ে সাংবাদিকদের জানান। এছাড়া সহিংসতা নিরসনে সংলাপের উদ্যোগ নেয়ার জন্যও আহ্বান জানান পিয়েরে মায়াডোন।

ইউরোপীয় ইউনিয়নের রাষ্ট্রদূত প্রশ্ন রাখেন, একজন মানুষ কিভাবে এমন বর্বরোচিত কাজ করতে পারে? এ সময় প্রধানমন্ত্রীও তাঁকে সকালে বার্ন ইউনিট ঘুরে আসার কথা বলেন। দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আগে অন্তর্বর্তীকালীন সরকারে বিএনপিকে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের দায়িত্ব দেয়ার প্রস্তাবের কথাও সাক্ষাতে উল্লেখ করেন প্রধানমন্ত্রী। মঙ্গলবার ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিট পরিদর্শনের অভিজ্ঞতাও এ সময় তুলে ধরেন পিয়েরে মায়াডোন। প্রধানমন্ত্রী বলেন, জামায়াতে ইসলামী নির্বাচনে অংশ নিতে না পারায় বিএনপিও নির্বাচনে অংশ নেয়নি। প্রধানমন্ত্রী বলেন, বর্তমানে রাজনৈতিক কর্মসূচীর নামে বিএনপি পেট্রোলবোমা মেরে মানুষ হত্যা করছে। তাদের হাত থেকে শিশু ও অন্তঃসত্ত্বাও রেহাই পাচ্ছে না। অবরোধের মধ্যে সংঘটিত সন্ত্রাসী কর্মকা-কে ইসলামী জঙ্গীবাদী সংগঠন আইএসের কর্মকা-ের সঙ্গে তুলনা করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, এটা সন্ত্রাসী কর্মকা-, আইএসের মতো কাজ।

ইউরোপীয় ইউনিয়নকে বাংলাদেশের বিশ্বস্ত অর্থনৈতিক সহযোগী হিসেবে অভিহিত করেন পিয়েরে মায়াডোন। বাংলাদেশ ও ইউরোপীয় ইউনিয়নের মধ্যে ব্যবসা-বাণিজ্য ও বিনিয়োগ বৃদ্ধির লক্ষ্যে ইইউ বিজনেস কাউন্সিল গঠনের কথাও বলেন তিনি। ‘ব্লু-ইকোনমি’ এবং বাংলাদেশের তথ্য-প্রযুক্তি ও যোগাযোগ খাতের ওপর ইউরোপীয় ইউনিয়নের গুরুত্ব দেয়ার কথা জানিয়ে মায়াডোন বলেন, বাংলাদেশ এ বিষয়ে ইউরোপীয় ইউনিয়নের সঙ্গে অভিজ্ঞতা বিনিময় করতে পারে। কৃত্রিম উপগ্রহের জন্য বাংলাদেশকে সহায়তা দেয়ার আগ্রহ প্রকাশ করেন ইউরোপীয় ইউনিয়নের নতুন রাষ্ট্রদূত। পাঁচ হাজার ২৭৫টি ডিজিটাল সেন্টারের কথা উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, এতে করে কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টি হচ্ছে।

এছাড়া তথ্য প্রযুক্তির ব্যবহারে দুর্নীতি দূর করার পাশাপাশি স্বচ্ছতা নিশ্চিতে অগ্রগতির আশা প্রকাশ করেন প্রধানমন্ত্রী। তৈরি পোশাক রফতানিতে ২০২১ সালের মধ্যে বাংলাদেশ ৫০ বিলিয়ন মার্কিন ডলারের যে লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করছে, তা নিশ্চিত করতে ইউরোপীয় ইউনিয়ন সহায়তা দেবে বলেও জানান পিয়ারে মায়াডোন। বাংলাদেশের অভ্যন্তরীণ নৌপথের উন্নয়ন কর্মকা-ে অংশীদার হওয়ার আগ্রহ প্রকাশ করেন তিনি। নদীর নাব্য বাড়ানোর ওপর গুরুত্বারোপ করেন প্রধানমন্ত্রী। সাক্ষাতকালে প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব আব্দুস সোবহান সিকদার উপস্থিত ছিলেন।

এদিকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে ইউরোপীয় ইউনিয়নের রাষ্ট্রদূত পিয়েরে মায়াডোনের সাক্ষাতের বিষয়ে সংস্থাটির ঢাকা অফিস থেকে পাঠানো এক বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, সহিংসতায় নিরপরাধ সাধারণ মানুষ চরমভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছেন বলে প্রধানমন্ত্রীকে জানিয়েছেন ইউরোপীয় ইউনিয়নের রাষ্ট্রদূত। সাক্ষাতে পিয়েরে মায়াডোন বলেছেন, অর্থনৈতিক উন্নয়নের জন্য শান্তি ও স্থিতিশীলতা প্রয়োজন। সকল প্রকার সহিংসতারও বিপক্ষে ইউরোপীয় ইউনিয়ন। তবে সহিংসতা নিরসনে সংলাপের উদ্যোগ নেয়ার আহ্বান জানান তিনি। ব্লু ইকোনমি ও তথ্য প্রযুক্তি বাংলাদেশের জন্য নতুন একটি উন্নয়নের খাত। এই খাতে বাংলাদেশকে সহযোগিতা করতে ইউরোপীয় ইউনিয়ন প্রস্তুত রয়েছে বলেও জানান মায়াডোন।

প্রকাশিত : ১২ ফেব্রুয়ারী ২০১৫

১২/০২/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

প্রথম পাতা



ব্রেকিং নিউজ: