মূলত পরিষ্কার, তাপমাত্রা ২১.১ °C
 
৯ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, শুক্রবার, ঢাকা, বাংলাদেশ

বাণিজ্যমেলার শেষ দিনে মানুষের ঢল

প্রকাশিত : ১১ ফেব্রুয়ারী ২০১৫

অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ শেষ দিনে বাণিজ্যমেলায় হরতাল-অবরোধ কোন কিছুই বাদ সাধেনি। শেষ মুহূর্তের কেনাকাটায় শামিল হতে সব শ্রেণীর-পেশার মানুষের ঢল নামে বাণিজ্যমেলায়। বিকেলের দিকে মেলায় তিল ধারণের ঠাঁই ছিল না। সন্ধ্যায় স্রোতের মতো মেলায় এসেই ক্রেতারা ছুটেছেন বিশেষ ছাড় কিংবা ডিসকাউন্টে পণ্য কিনতে। মেলার প্রায় পুরোটা সময়জুড়ে রাজনৈতিক অস্থিরতার মধ্যে শেষ ক’দিনের বিক্রিতে সান্ত¡না নিয়েই বিদায় নিয়েছেন বিক্রেতারা। এদিকে টানা অবরোধ ও হরতালের মধ্যেও ২০তম ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্যমেলায় রফতানি আদেশ পাওয়া গেছে ৯৫ কোটি ৬ লাখ টাকার। গত বছর রফতানি আদেশ ছিল ৮০ কোটি ৪৪ লাখ টাকা। গত বছরের চেয়ে এ বছর রফতানি আদেশ বেড়েছে ১৫ কোটি ৩৮ লাখ টাকা। মঙ্গলবার বাণিজ্যমেলা ঘুরে এ চিত্র দেখা গেছে।

মঙ্গলবার ছিল ঢাকা আন্তর্জাতিক মেলার শেষ দিন। টানা অবরোধ ও হরতালের কারণে ৩০ দিনের মেলা আরও ১০ দিন বাড়ানো হয়। টানা ৪১ দিনের কর্মযজ্ঞের শেষ দিনে মেলায় ঘুরে দেখা যায়, মঙ্গলবার মেলার সবটুকুই ছিল ক্রেতা-দর্শনার্থীদের দখলে। বিকেলের দিকে মানুষের ভিড়ে কানায় কানায় পূর্ণ ছিল গোটা মেলা প্রাঙ্গণ।

এদিকে মঙ্গলবার বিকেলে ২০তম ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্যমেলার টানা ৪১ দিনের কর্মযজ্ঞের ইতি টানতে আয়োজন করা হয় সমাপনী অনুষ্ঠান। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ। সমাপনী অনুষ্ঠানে স্বনামধন্য বিভিন্ন কোম্পানিকে (স্টল ও প্যাভিলিয়ন) পুরস্কৃত করা হয়। এর মধ্যে এবার মেলাতে প্রিমিয়ার প্যাভিলিয়ন ক্যাটাগরিতে ২য় পুরস্কার পেয়েছে দেশীয় ইলেকট্রনিক্স ও অটোমোবাইলস প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠান ওয়ালটন। বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদের কাছ থেকে পুরস্কার গ্রহণ করেন ওয়ালটনের ফার্স্ট সিনিয়র অতিরিক্ত পরিচালক (মার্কেটিং) মোঃ রায়হান। এছাড়া সর্বোচ্চ ভ্যাট প্রদানকারী প্রতিষ্ঠানের পুরস্কারও অর্জন করে ওয়ালটন। তাছাড়া প্রিমিয়ার প্যাভিলিয়ন ক্যাটাগরিতে ১ম হাতিল কমপ্লেক্স লিমিটেড, ২য় যৌথভাবে ওয়ালটন হাইটেক ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড ও আক্তার ফার্নিশার্স, ৩য় আবুল খায়ের মিল্ক প্রোডাক্টস। সাধারণ প্যাভিলিয়ন ক্যাটাগরিতে ১ম কারুপণ্য রংপুর লিমিটেড ও ২য় পুরস্কার পেয়েছে বিলট্রেড ফয়েলস। সর্বোচ্চ ভ্যাট প্রদানকারী প্রতিষ্ঠান হিসেবে ১ম পুরস্কার পেয়েছে মেসার্স ওয়ালটন হাইটেক ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড, ২য় মেসার্স সিঙ্গার বাংলাদেশ ও ৩য় পুরস্কার পেয়েছে মেসার্স র‌্যাংগস ইলেট্রনিক্স লিমিটেড। প্রিমিয়ার মিনি প্যাভিলিয়ন ক্যাটাগরিতে প্রথম বিআরবি ক্যাবল ইন্ডাস্টিজ, ২য় ওকে মোবাইল লিমিটেড, তৃতীয় পুরস্কার ওরিয়ন ফুটওয়্যার লিমিটেড। সংরক্ষিত মিনি প্যাভিলিয়ন ক্যাটাগরিতে মধুমতি ব্যাংক লিমিটেড। প্রিমিয়ার স্টল প্রথম আলী ন্যাচারাল ওয়েল মিলস ইন্ডাস্ট্রিজ, ২য় প্রিন্স ফুডস লিমিটেড, ৩য় পুরস্কার পেয়েছে হেলাল এ্যান্ড ব্রাদার্স। সাধারণ স্টল ক্যাটাগরি ১ম মেসার্স টুটাটুনি, ২য় যৌভাবে মেসার্স স্মার্ট সক্স লিমিটেড ও মেসার্স আনিশা কর্পোরেশন, ৩য় পুরস্কার পেয়েছে ড্রেস লাইন বাংলাদেশ। মহিলা উদ্যোক্তা ক্যাটাগরিতে ১ম মেসার্স কুষ্টিয়া হস্তশিল্প, ২য় মা এন্টারপ্রাইজ, ৩য় পুরস্কার পেয়েছে মেসার্স এওয়ান ট্রেড ইন্টা।

বিশেষ ক্যাটাগরিতে মেসার্স এমএক্সএন মর্ডান হারবাল ফুড লিমিটেড, চেমট্রেক ইন্ডাস্ট্রিজ ও জয়িতা। প্রধান অতিথির বক্তব্যে বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, হরতাল-অবরোধ মেলায় আগত মানুষকে রুখতে পারেনি। হরতাল-অবরোধে বাণিজ্যমেলা বাধাগ্রস্ত হয়নি বলে তিনি দাবি করেন। তিনি বলেন, ১ জানুয়ারি থেকে মেলার শুরু পর দুর্ভাগ্যবশত বিএনপি ৫ জানুয়ারি কর্মসূচী দিয়েছে। হরতাল-অবরোধ, অরাজকতা, বিশৃঙ্খলা, পেট্রোলবোমা মারা, জঙ্গী ও নাশকতা কার্যকলাপ না করলে মেলায় মানুষ আরও ভালভাবে অংশগ্রহণ করতে পারত।

প্রকাশিত : ১১ ফেব্রুয়ারী ২০১৫

১১/০২/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

অন্য খবর



ব্রেকিং নিউজ: