রৌদ্রজ্জ্বল, তাপমাত্রা ২৩.৯ °C
 
৮ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, বৃহস্পতিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

বিএনপি জোট ও জঙ্গী গোষ্ঠীর নাশকতা একই সূত্রে গাথা

প্রকাশিত : ১১ ফেব্রুয়ারী ২০১৫
  • গোয়েন্দা বিশ্লেষণ

শংকর কুমার দে ॥ বিএনপি-জামায়াত জোটের নেতৃত্বে অবরোধ ও হরতালের নামে যে নাশকতা চালানো হচ্ছে তাতে সক্রিয়ভাবে অংশগ্রহণ করছে নিষিদ্ধ ঘোষিত জঙ্গী সংগঠনের জঙ্গীরা। তাদের সঙ্গে রয়েছে ছাত্রদল-যুবদল, ছাত্রশিবির ও পেশাদার দুর্বৃত্তরা। গোপনে পোস্টার ও লিফলেট ছেড়েছে নিষিদ্ধ ঘোষিত জঙ্গী সংগঠন হিযবুত তাহ্রীর। জামা’আতুল মুজাহিদীন বাংলাদেশ (জেএমবি), হরকাতুল জিহাদ (হুজি)র সদস্যদেরও মাঠে নামানোর তথ্য পেয়েছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী ও গোয়েন্দারা। আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যদের এই বিষয়ে নজরদারি ও সতর্ক থাকার নির্দেশ দেয়া হয়েছে। গোয়েন্দা সংস্থা ও পুলিশের উচ্চ পর্যায় সূত্রে এ খবর পাওয়া গেছে। বিএনপি-জামায়াতের নেতৃত্বাধীন জোটের অনির্দিষ্টকালের অবরোধ-হরতালের সময়ে পেট্রোলবোমার আগুন ধরিয়ে দেয়ার নাশকতার ঘটনাগুলো বিশ্লেষণ করেছেন গোয়েন্দা সংস্থা ও পুলিশের উচ্চ পর্যায়ের কর্মকর্তারা। জামায়াতÑশিবিরের সঙ্গে সম্পৃক্ত নিষিদ্ধ ঘোষিত জঙ্গী সদস্যদের অতীতের নাশকতার হামলার সঙ্গে জঙ্গী কৌশলের সাদৃশ্য আছে বলে মনে করেন তারা। গোয়েন্দা নজরদারি করার ওপর গুরুত্বারোপ করে এই ধরনের কিছু পদক্ষেপ নিয়েছেন তারা। অবরোধ ও হরতালের নামে যেসব ছাত্রদল-যুবদল ও শিবির পরিচয়ের নামধারী যুবক ধরা পড়েছে তাদের অনেকেই আবার নিষিদ্ধ ঘোষিত জঙ্গী সংগঠনের সদস্যও। গ্রেফতার হওয়ার পর পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদে জঙ্গী পরিচয় আড়াল করে সহিংস সন্ত্রাসী কর্মকা-ে জড়িত হওয়ার কথা স্বীকারও করেছে তারা।

পুলিশ ও গোয়েন্দা সংস্থার সূত্র জানিয়েছেন, অতীতের রাজনৈতিক দলগুলোর কোন আন্দোলনে এই ধরনের পেট্রোলবোমার আগুনে পুড়িয়ে মারার নাশকতার ঘটনা ছিল না। রাজনৈতিক সরকারের বিরুদ্ধে শুধু উদীচী, ছায়ানট, একুশে আগস্ট, সিলেটের শাহজালাল মাজার, গোপালগঞ্জের গীর্জা, কিবরিয়া হত্যা, ময়মনসিংহের সিনেমা হলসহ বিভিন্নস্থানে যেসব গ্রেনেড বোমা হামলা হয়েছে তা করেছে নিষিদ্ধ ঘোষিত জঙ্গীরা। এখন জঙ্গীদের সঙ্গে যুক্ত হয়েছে ছাত্রদল-যুবদল ও শিবিরের ক্যাডাররা। বিএনপির নেতৃত্বাধীন ২০ দলীয় জোটের টানা অবরোধ-হরতালে চলমান সহিংসতায় ককটেল, পেট্রোলবোমা তৈরি ও হামলা চালাতে প্রশিক্ষণ নিয়ে মাঠে নেমেছে তারা। তাদের সঙ্গে যুক্ত করা হয়েছে পেশাদার দুবর্ৃৃত্তদেরও। এই ধরনের দুর্বৃত্তদের প্রশিক্ষণ দেয়ানো হচ্ছে বলে খবর পেয়েছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী ও গোয়েন্দারা।

গোয়েন্দা সংস্থার একজন কর্মকর্তা বলেছেন, বিএনপি-জামায়াতের নেতৃত্বাধীন ২০ দলীয় জোট হরতাল অবরোধের নামে নাশকতার মাধ্যমে অস্থিতিশীল পরিস্থিতি তৈরি করে অগণতান্ত্রিক পন্থায় রাষ্ট্রক্ষমতা দখলের যে অপতৎপরতা চালাচ্ছে, তার সঙ্গে জঙ্গী গোষ্ঠীগুলোর নাশকতার কাজের হুবুহু মিল আছে। এখন যে আন্দোলনের নামে পেট্রোলবোমার আগুনে পুড়িয়ে মারার নাশকতা চালানো হচ্ছে, তা অগণতান্ত্রিক শক্তি, প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত জঙ্গী গোষ্ঠীগুলোর নাশকতার আদর্শ ও উদ্দেশ্যের সঙ্গে সঙ্গতিপূর্ণ, এক ও অভিন্ন।

প্রকাশিত : ১১ ফেব্রুয়ারী ২০১৫

১১/০২/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

শেষের পাতা



ব্রেকিং নিউজ: