আংশিক মেঘলা, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৭ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, বুধবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

সর্বোচ্চ শক্তি প্রয়োগে নাশকতা বন্ধ করার আহ্বান

প্রকাশিত : ১০ ফেব্রুয়ারী ২০১৫
  • রাজধানীতে সামাজিক সাংস্কৃতিক পেশাজীবী সংগঠনের বিভিন্ন কর্মসূচী পালন

স্টাফ রিপোর্টার ॥ রাষ্ট্রের সর্বোচ্চ শক্তি প্রয়োগ করে চলমান সহিংসতা বন্ধ ও জাতিসংঘসহ বিশ্ববাসীর কাছে বিএনপি-জামায়াত জোটের ধ্বংসাত্মক কর্মকা- তুলে ধরতে সরকারের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে বিভিন্ন সংগঠন। রাজনৈতিক কর্মসূচীর নামে বিএনপি-জামায়াত জোটের হরতাল-অবরোধসহ মানুষ হত্যার প্রতিবাদে সোমবার রাজধানীতে বিভিন্ন সামাজিক, সাংস্কৃতিকসহ পেশাজীবী সংগঠনের পক্ষ থেকে পৃথক পৃথক কর্মসূচী পালন করা হয়। এসব আয়োজন থেকে বক্তারা এ আহ্বান জানান। এদিকে মানবাধিকার কমিশনের চেয়ারম্যান অধ্যাপক মিজানুর রহমান বলেন, এই ধরনের হামলা রাষ্ট্রের বিরুদ্ধে বিদ্রোহ ঘোষণা করে, রাষ্ট্রের মূলে আঘাত করে এবং রাষ্ট্রকে চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দেয়।

প্রতীক অনশনে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকরা ॥ রাজনৈতিক কর্মসূচীর নামে গণহত্যা করে এসএসসি পরীক্ষাসহ দেশের শিক্ষাব্যবস্থাকে ধ্বংসের ষড়যন্ত্রের প্রতিবাদে এবার ‘প্রতীক অনশন’ কর্মসূচীতে পালন করেছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকরা। সোমবার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কলাভবনস্থ বটতলায় এই কর্মসূচীর আয়োজন করে বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতি। এতে সমিতির সভাপতি অধ্যাপক ফরিদ উদ্দিন আহমেদ, সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক এএসএম মাকসুদ কামাল, কলা অনুষদের ডিন এবং শিক্ষক নেতা অধ্যাপক আখতারুজ্জামান, অধ্যাপক আ ব ম ফারুক, অধ্যাপক নিজামুল হক ভূঁইয়া, অধ্যাপক আ জ ম শফিউল আলম ভূঁইয়াসহ প্রায় দেড় শতাধিক শিক্ষক অংশ নেন।

এ সময় সমিতির সভাপতি অধ্যাপক ফরিদ উদ্দিন আহমেদ বলেন, নিজের শিক্ষাগত যোগ্যতা কম, নিজের সন্তানদেরও সেভাবে পড়াশুনা করাতে পারেননি, তাই এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষার সময় হরতাল-অবরোধ দিয়ে খালেদা জিয়া দেশের মানুষকে মূর্খের জাতিতে পরিণত করতে চান।

শিক্ষকদের এ কর্মসূচীতে সংহতি জানিয়ে জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের চেয়ারম্যান ও বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগের অধ্যাপক মিজানুর রহমান বলেন, পেট্রোলবোমা হামলা নিন্দনীয়, পরিত্যাজ্য ও অগ্রহণযোগ্য। এই ধরনের হামলা রাষ্ট্রের বিরুদ্ধে বিদ্রোহ ঘোষণা করে, রাষ্ট্রের মূলে আঘাত করে এবং রাষ্ট্রকে চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দেয়। বর্তমানে দেশে যে অবস্থার সৃষ্টি হয়েছে তাতে মানবাধিকার চরম হুমকির সম্মুখীন হয়েছে। মানবাধিকার কমিশন চেয়ারম্যান খালেদা জিয়াকে ইঙ্গিত করে বলেন, আপনাদের হয়ত ক্ষমতা রয়েছে দিনের পর দিন, মাসের পর মাস হোটেল থেকে খাবার এনে ক্ষুধা নিবারণ করার। কিন্তু আমাদের ভ্যানচালক, রিক্সাচালক, ট্রাকের হেলপার, ড্রাইভার, যাদের নিত্যদিন খাদ্যের সংস্থান করতে হয় এবং একদিন কাজে না গেলে খাবার জোটানো সম্ভব হয় না, টিফিন ক্যারিয়ারে করে খাবার আসে না। তাদের কথা তো চিন্তায় রাখতে হবে। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ঠিকমতো ক্লাস-পরীক্ষা চলছে উল্লেখ করে অধ্যাপক আখতারুজ্জামান বলেন, দেশের ৩৬টি পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকদের প্রতি আহ্বান, আপনারা আপনাদের স্বাভাবিক শিক্ষা কার্যক্রম অব্যাহত রাখতে যা যা করার সবই করুন।

ইমারত নির্মাণ শ্রমিক ইউনিয়ন ॥ জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে ইমারত নির্মাণ শ্রমিক ইউনিয়ন বাংলাদেশ (ইনসাব) কেন্দ্রীয় কমিটির উদ্যোগে সন্ত্রাস, জঙ্গীবাদ, পেট্রোলবোমায় মানুষ পুড়িয়ে হত্যা, হরতাল-অবরোধ প্রত্যাহার এবং শ্রমিক পেশাজীবী মানুষের নিরাপত্তা নিশ্চিত করার দাবিতে এক মানববন্ধন কর্মসূচী অনুষ্ঠিত হয়। এতে সভাপতিত্ব করেন ইনসাফ’র সহসভাপতি মোঃ নূর হোসেন। বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ ট্রেড ইউনিয়ন কেন্দ্রের সাধারণ সম্পাদক ডাঃ ওয়াজেদুল ইসলাম খান, সম্মিলিত সামাজিক আন্দোলনের সাধারণ সম্পাদক সালেহ আহমেদ, আব্দুর রাজ্জাক, মিজানুর রহমান বাবুল, আবুল কাশেম, রফিকুল ইসলাম প্রমুখ। মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, আগামী বৃহস্পতিবার ১২ ফেব্রুয়ারি সকাল ১০টায় রামপুরা ব্রিজে রামপুরা-বাড্ডা ও খিলগাঁও থানার উদ্যোগে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হবে।

হাজারীবাগ নাগরিক নিরাপত্তা কমিটি ॥ সন্ত্রাস নৈরাজ্য অগ্নিকা-, পেট্রোলবোমা নিহত নিরীহ মানুষকে হত্যার প্রতিবাদে হাজারীবাগ নাগরিক নিরাপত্তা কমিটি মানববন্ধনের আয়োজন করে। রাজধানীর জিগাতলা বাসস্ট্যান্ড মোড় থেকে শুরু করে ধানম-ি ১৫ নম্বর পর্যন্ত এই আয়োজনে যোগ দেন স্থানীয় বাসিন্দারা। এতে সভাপতিত্ব করেন হাজী মোঃ রবিউল্লাহ। মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন শওকত রায়হান, আবুল কালাম আজাদ, আব্দুল মালেক, হাজী ইলিয়াছুর রহমান বাবুল, মোহাইমেন বয়ান, দিলজাহান ভূইয়া, উপ অধ্যক্ষ কাওসার আলম, ডাঃ সারমিন আক্তার প্রিয়া, এম এ খান মজলিশ চপল সামসুল ইসলাম, হুমায়ুন আহমেদ মন্টু, আব্দুল লতিফ প্রমুখ।

ভাসানী অনুসারী পরিষদ ॥ দেশের চলমান সঙ্কট অবসান ও শান্তির বাংলাদেশের লক্ষ্যে ভাসানী অনুসারী পরিষদের সাত দিনব্যাপী ধারাবাহিক কর্মসূচীর অংশ হিসেবে সোমবার জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে শান্তি সমাবেশের আয়োজন করা হয়। এতে অংশ নিয়ে ডাঃ জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেন, সরকার একতরফা নির্বাচনের মাধ্যমে ক্ষমতায় এসে মানুষের গণতান্ত্রিক অধিকার হরণ করেছে। বক্তব্য রাখেন জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাক্তন উপাচার্য ও ভাসানী অনুসারী পরিষদের নির্বাহী চেয়ারম্যান ড. জসীম উদ্দিন আহমদ, শেখ রফিকুল ইসলাম বাবলু, জামাল উদ্দিন জামাল, হান্নান আহমেদ খান, জসিম উদ্দিন আহমদ প্রমুখ। বক্তারা বলেন, রাজনৈতিক সহিংসতায় প্রতিনিয়ত নিরীহ মানুষ প্রাণ হারাচ্ছেন। তাই অচিরেই সঙ্কট সমাধানে সুশীল সমাজসহ সবাইকে এগিয়ে আসতে হবে।

স্বাভাবিক লঞ্চ যোগাযোগ ॥ রাজধানীর সদরঘাট লঞ্চ টার্মিনালে এ হরতালের প্রভাব ছিল না। দিনভর নদীপথে যোগাযোগ স্বাভাবিক ছিল। সোমবার সকাল থেকে সরেজমিনে সদরঘাট লঞ্চ টার্মিনাল ঘুরে এমন চিত্র দেখা যায়। এমভি পূবালীর (ঢাকা-মহনপুর-দুলারচর) সুপারভাইজার মোহাম্মদ গিয়াস উদ্দিন বলেন, হরতালেও যাত্রীর সংখ্যা স্বাভাবিকই আছে।

প্রেসক্লাবের সামনে বিভিন্ন সংগঠনের প্রতিবাদ ॥ পেট্রোলবোমা মেরে মানুষ হত্যা, ধ্বংসাত্মক কর্মকা- অবিলম্বে বন্ধ করার জন্য প্রধান দুই রাজনৈতিক দলের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে বিভিন্ন ব্যক্তি ও সংগঠন। সোমবারও জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে পৃথকভাবে আয়োজিত মানববন্ধনে এ আহ্বান জানিয়েছে বাংলাদেশ হিন্দু ঐক্যজোট, শেখ রাসেল জাতীয় শিশু কিশোর পরিষদ ও বাংলাদেশ গার্মেন্টস শ্রমিক ঐক্য পরিষদ। বাংলাদেশ গার্মেন্টস শ্রমিক ঐক্য পরিষদের সভাপতি বাবুল আক্তার বলেন, দেশের অর্থনৈতিক চাকা সচল রাখা, শিল্প প্রতিষ্ঠানের কর্মরত শ্রমিকসহ সর্বস্তরের মানুষ আজ আতঙ্ক এবং ক্ষতিগ্রস্ত। দেশের পণ্য উৎপাদন থেকে শুরু করে পরিবহন সেক্টরকে ধ্বংসের দিকে টেলে দিয়ে কোন রাজনৈতিক কর্মকা- হতে পারে না।’

বাংলাদেশ হিন্দু ঐক্যজোট চেয়ারম্যান প্রশান্ত কু-ু বলেন, ‘আজকে আমরা যে সহিংসতার মধ্য দিয়ে দিন পার করছি তাতে দেশ না এগিয়ে পিছিয়ে যাচ্ছে। অবরোধের নামে পেট্রোলবোমা মেরে মানুষ হত্যা বন্ধ করে ও অপরাধীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণে সরকারের কাছে দাবি জানান শেখ রাসেল জাতীয় শিশু কিশোর পরিষদের মহাসচিব মোজাফফর হোসেন পল্টু। মানববন্ধনে উপস্থিত ছিলেন শেখ রাসেল জাতীয় শিশু কিশোর পরিষদ সাংগঠনিক সচিব কে এম শহিদউল্লাহ, সাংগঠনিক সম্পাদক মোজাহিদুর রহমান, বাংলাদেশ গার্মেন্টস শ্রমিক ঐক্য পরিষদের সমন্বয়ক এম দেলোয়ার হোসেন, সদস্যসচিব মঈনউদ্দিন, বাংলাদেশ হিন্দু ঐক্যজোটের মহাসচিব কার্তিক কর্মকার, সাংগঠনিক সম্পাদক জয়ন্ত গাঙ্গুলি প্রমুখ।

জনগণই খালেদাকে গ্রেফতার করবে- হাছান মাহমুদ ॥ আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, আন্দোলনের নামে এই জ্বালাও-পোড়াও ও মানুষ হত্যা বন্ধ না করলে কাঁটাতারের বেড়াই নয়, লোহার বেড়া দিয়েও খালেদা জিয়া রক্ষা পাবেন না। জনগণই খালেদাকে গ্রেফতার করবে। জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে আয়োজিত এক সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন। আয়োজক সংগঠনের সভাপতি এ্যাডভোকেট আসাদুজ্জামান দুর্জয়ের সভাপতিত্বে সমাবেশে উপস্থিত ছিলেন ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক আব্দুল হক সবুজ, বলরাম পোদ্দার, মুন্সী এবাদুল ইসলাম প্রমুখ।

ইসলামী আন্দোলন ॥ দেশের চলমান রাজনৈতিক সঙ্কট ও সহিংসতা বন্ধের দাবিতে সারাদেশে মানববন্ধন কর্মসূচী পালন করেছে চরমোনাই পীরের সংগঠন ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ। তবে রাজধানী ঢাকাতে কর্মসূচী পালনে প্রশাসনের অনুমতি পায়নি দলটি। ঢাকার আশপাশের উপজেলায় কর্মসূচী পালন করেছে দলটি। ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের আমির মুফতি সৈয়দ মোহাম্মদ রেজাউল করীম দেশবাসীকে কর্মসূচী পালনে অভিনন্দন জানান।

গণতান্ত্রিক লীগ ॥ হরতাল-অবরোধের নামে মানুষ খুনের অভিযোগে বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়াকে গ্রেফতার করে বিচারের আওতায় আনার দাবিতে মানববন্ধন করেছে জাতীয় গণতান্ত্রিক লীগ। জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে এ মানববন্ধন কর্মসূচী পালন করা হয়। এতে সভাপতিত্ব করেন জাতীয় গণতান্ত্রিক লীগের সভাপতি এমএ জলিল। প্রধান অতিথি ছিলেন সাবেক স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী এ্যাডভোকেট শামসুল হক টুকু।

মানববন্ধনে উপস্থিত ছিলেন হাবিবুর রহমান খান, খন্দকার শামসুল আলম দুদু, ঢাকা মহানগর শাহে আলম মুরা কবি মুহাম্মদ আবদুল খালেক, এমএ করিম, নাহিদ রোকসানা, কাজী মাসুদ আহমেদ প্রমুখ।

প্রকাশিত : ১০ ফেব্রুয়ারী ২০১৫

১০/০২/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

প্রথম পাতা



ব্রেকিং নিউজ: