রৌদ্রজ্জ্বল, তাপমাত্রা ২৩.৯ °C
 
৮ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, বৃহস্পতিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

বইমেলা হোক রাহুমুক্ত

প্রকাশিত : ১০ ফেব্রুয়ারী ২০১৫

বাঙালীর প্রাণের মেলা বাংলা একাডেমি আয়োজিত অমর একুশের বইমেলা। এ উৎসব অন্যান্য উৎসবের চেয়ে একটু ভিন্ন আমেজ নিয়ে আসে। ক্রমশ এটা প্রসারিত হতে হতে জাতীয় উৎসবে পরিণত হয়। মেলার প্রসার ঘটতে ঘটতে তা বাংলা একাডেমি প্রাঙ্গণ ছাড়িয়ে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানেও প্রসারিত হয়েছে। মননশীলতা, সৃজনশীলতা, সৃষ্টিশীলতার আবরণে সমৃদ্ধ বইমেলা। ভাষার মাস ফেব্রুয়ারিতে অমর একুশে গ্রন্থমেলার আয়োজন দেশের প্রধান সাংস্কৃতিক ঘটনা। এই বইমেলা লেখক-পাঠকের প্রকৃত মিলনমেলায় পরিণত হয়। উদযাপিত হয়ে আসছে নতুন বইয়ের মহোৎসব হিসেবে। বছরের আর কোন সময় বাংলা ভাষায় এত বিপুলসংখ্যক বই প্রকাশিত হয় না। এবারের বইমেলায় আন্তর্জাতিক সাহিত্য সম্মেলনের আয়োজন করা হয়েছে, যাতে ১১টি দেশ ও ভাষার প্রায় পঞ্চাশজন আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন সৃষ্টিশীল ও মননশীল লেখক অংশ নিচ্ছেন।

এবারের বইমেলা শুরু হয়েছে টানা অবরোধ ও হরতালের মধ্য দিয়ে। বিএনপি-জামায়াত জোটের সহিংসতায় সারাদেশে পুড়ছে জনসম্পদ, দগ্ধ হয়ে মরছে মানুষ। যানবাহনসহ রাস্তাঘাটে মানুষ আতঙ্কিত। জানমালের নিরাপত্তা নিয়ে শঙ্কিত দেশবাসী। এমনি অবস্থায় সারাদেশ থেকেই মানুষ তথা বইপ্রেমীরা আসে বইমেলায়। সেক্ষেত্রে এবার অবরোধ-হরতাল বাধা হয়ে দাঁড়িয়েছে অনেকখানি। টিকেট কেটে মেলায় প্রবেশ করতে হয় না, তাই সব শ্রেণীর মানুষেরই সমাগম ঘটে বেশি। বোমাবাজদের কাছে মেলার কোন মূল্য নেই, তাদের লক্ষ্যই যেখানে মানুষ হত্যা, সেখানে মেলাকে নিরাপদ ভাবা সবার জন্য সহজতর নয়।

বাংলা একাডেমি বইমেলায় গতবার অগ্নিসংযোগ করা হয়েছিল যখন বিএনপি-জামায়াত জোট দেশব্যাপী সহিংস কর্মসূচী পালন করছিল। পাকিস্তানী চেতনাধারী এবং রাজাকার, আলবদর ও তাদের উত্তরসূরিরা বইমেলার বিরোধী, বাঙালী সংস্কৃতি বিরোধিতার কারণেই। তাই দেখা যায়, গত জানুয়ারিতে বগুড়ায় অনুষ্ঠিত বইমেলায় বোমা হামলা চালিয়েছিল বাঙালী বিরোধীরা। এবারও খুলনার বইমেলায় অগ্নিসংযোগ করা হয়েছে। হালাকু খান, চেঙ্গিস খানের উত্তরসূরিরা চায় মানুষ অশিক্ষিত থাক। তাই কি তারা বইয়ের বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়েছে? মিসরের আলেকজান্দ্রিয়ার পাঠাগার ধ্বংস করা হয়েছিল সেকালে, একালে ইরাকেও ঘটিয়েছে। তালেবান, আল কায়েদা, আইএসসহ সব জঙ্গীই গ্রন্থবিমুখ। তারা শিক্ষার বিরোধী। তাদের অনুসারীরাও শিক্ষার বিরুদ্ধে বলেই এসএসসি পরীক্ষা এবং বইমেলা চলাকালে হরতাল ও অবরোধ দিয়ে জাতিকে ধ্বংস করার ব্রত নিয়ে নেমেছে। জনগণের সম্মিলিত প্রতিরোধই পারে এসব কর্মকা- রুখে দিতে।

প্রকাশিত : ১০ ফেব্রুয়ারী ২০১৫

১০/০২/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


ব্রেকিং নিউজ: