কুয়াশাচ্ছন্ন, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৪ ডিসেম্বর ২০১৬, ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, রবিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ

বস্ত্র খাতের ৪৮ ভাগ কোম্পানির মুনাফা কমেছে

প্রকাশিত : ৯ ফেব্রুয়ারী ২০১৫

অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত বস্ত্র খাতের ৪৮ ভাগ কোম্পানির সর্বশেষ প্রান্তিকে মুনাফা কমেছে। তালিকাভুক্ত ৩৮ কোম্পানির মধ্যে ২১ কোম্পানি অর্ধবার্ষিকী প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে। এর মধ্যে মুনাফা কমেছে ১০, বেড়েছে ৬, লোকসান করেছে ৩টি এবং ১ কোম্পানি লোকসান থেকে মুনাফায় ফিরেছে। বাকি কোম্পানিগুলোর অর্থবছর ডিসেম্বরে শেষ হওয়ার কারণে লভ্যাংশ ঘোষণার অপেক্ষায় রয়েছে। ফলে ১৭ কোম্পানি বিবেচনায় আসেনি।

কোম্পানিগুলোর অর্ধবার্ষিকী (জুন ’১৪-ডিসেম্বর ’১৪) অনিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদনে বিশ্লেষণ করলে এমনই চিত্র পাওয়া গেছে।

ডিএসইর তথ্য অনুযায়ী, বছরের প্রথম ৬ মাসে সবচেয়ে বেশি মুনাফা কমেছে আলহাজ টেক্সটাইলের। এই কোম্পানি বছরের শেষ হওয়া প্রান্তিকে মুনাফা করেছে ৭৫ লাখ ১০ হাজার টাকা। যা আগের বছরের তুলনায় প্রায় ৪২ শতাংশ কম। আগের বছর একই সময় কোম্পানিটির মুনাফা ছিল ১ কোটি ৩০ লাখ টাকা।

আলোচ্য সময়ে শেয়ারপ্রতি আয় বা ইপিএসও কমেছে আলহাজ টেক্সটাইলের। এই সময়ে কোম্পানিটি ইপিএস করেছে ৪৯ পয়সা; যা আগের বছর ছিল ৮৬ পয়সা।

বছরের প্রথমার্ধে হামিদ ফেব্রিক্স মুনাফা করেছে ৮ কোটি ১৮ লাখ টাকা; যা আগের বছরের তুলনায় ৫ কোটি ৪২ লাখ টাকা বা ৩৯ শতাংশ কম। আগের বছর একই সময়ে এই কোম্পানির মুনাফা ছিল ১৩ কোটি ৬১ লাখ টাকা।

আলোচিত সময়ে হামিদ ফেব্রিক্স শেয়ারপ্রতি আয় করেছে ১ টাকা ৪ পয়সা; যা আগের বছর একই সময়ে ছিল ২ টাকা ৭৯ পয়সা।

হা-ওয়েল টেক্সটাইল মুনাফা করেছে ৭ কোটি ৪৬ লাখ টাকা; যা আগের বছর একই সময়ে ছিল ৮ কোটি ৮৩ লাখ টাকা।

প্যারামাউন্ট টেক্সটাইল মুনাফা করেছে ১০ কোটি ১৩ লাখ টাকা; যা আগের বছর একই সময়ে ছিল ১০ কোটি ২৯ লাখ টাকা।

এছাড়া অন্য কোম্পানির মধ্যে অনালিমা ইয়ার্ন ৭১ লাখ টাকা থেকে কমে ৬৬ লাখ, মালেক স্পিনিং ২১ কোটি টাকা থেকে কমে ১৬ কোটি টাকা, মেট্রো স্পিনিং ও প্রাইম টেক্সটাইলের ২ কোটি টাকা থেকে কমে ১ কোটি টাকা এবং সায়হাম টেক্সটাইলের ১১ কোটি টাকা থেকে কমে ৯ কোটি টাকা মুনাফা হয়েছে। সর্বশেষ প্রান্তিকে নতুন করে লোকসান করেছে মডার্ন ডায়িং ও তাল্লু স্পিনিং।

অর্ধবার্ষিকীতে তাল্লু স্পিনিং নামের কোম্পানিটির মোট লোকসানের পরিমাণ দাঁড়ায় ২ কোটি ৩০ হাজার টাকা। অর্থাৎ কোম্পানিটির প্রতিটি শেয়ারের লোকসানের পরিমাণ দাঁড়ায় ২৫ পয়সা। যেখানে আগের বছরে কোম্পানিটির প্রতিটি শেয়ারের লাভের পরিমাণ ছিল ১ দশমিক ৮০ টাকা।

বিশ্লেষকদের মতে, গত বছর হঠাৎ করেই বিশ্ববাজারে তুলার দাম কমে যায়। এতে চড়া দামে আমদানি করা তুলা থেকে সুতার দাম কমে যাওয়ায় লোকসানে পড়েছে বস্ত্র খাতের কোম্পানিগুলো। এর ফলে সর্বশেষ প্রান্তিকে বেশিরভাগ কোম্পানির মুনাফায় ধস নেমেছে বলে মনে করছেন বিশ্লেষকরা।

প্রকাশিত : ৯ ফেব্রুয়ারী ২০১৫

০৯/০২/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


ব্রেকিং নিউজ: