কুয়াশাচ্ছন্ন, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৪ ডিসেম্বর ২০১৬, ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, রবিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

সন্ত্রাসীদের সঙ্গে কোন সংলাপ হতে পারে না ॥ ড. মিজানুর

প্রকাশিত : ৮ ফেব্রুয়ারী ২০১৫

স্টাফ রিপোর্টার ॥ রাষ্ট্রবিরোধী গোষ্ঠী ও সন্ত্রাসী চক্র দ্বারা দেশে আজ মানবাধিকার লঙ্ঘন হচ্ছে। সন্ত্রাসীদের সঙ্গে কোন সংলাপ হতে পারে না। সন্ত্রাস বা অগণতান্ত্রিক পন্থায় গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা করা যায় না বলে মন্তব্য করেছেন মানবাধিকার কমিশনের চেয়ারম্যান ড. মিজানুর রহমান।

শনিবার ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটি (ডিআরইউ) মিলোনায়তনে ‘সংঘাত নয়-সমঝোতা, সহিংসতা নয়-শান্তি’ গোলটেবিল আলোচনায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এই মন্তব্য করেন। ফেডারেশন অব বাংলাদেশ হিউম্যান রাইটস অর্গানাইজেশন (এফবিএইচআরও) এ গোলটেবিল আলোচনার আয়োজন করে।

মানবাধিকার কমিশনের চেয়ারম্যান বলেন, শক্তি প্রয়োগের সর্বোচ্চ ও একমাত্র ক্ষমতা থাকে রাষ্ট্রের ওপর। আজ রাজনৈতিক আন্দোলনের নামে রাষ্ট্রের শক্তি প্রয়োগের ক্ষমতাকে চ্যালেঞ্জ করা হচ্ছে। রাষ্ট্রের কাঠামোকে চ্যালেঞ্জ করা রাষ্ট্রদ্রোহিতার শামিল ও ফৌজদারি অপরাধ। চলমান এ সহিংস আন্দোলন সাধারণ মানুষের বিরুদ্ধে। এই রাষ্ট্রই সাধারণ মানুষের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে পারছে না। রাষ্ট্রের আইন-শৃঙ্খলারক্ষাকারী বাহিনীর যোগ্যতা ও দক্ষতা নিয়েও প্রশ্ন তোলেন মানবাধিকার কমিশনের চেয়ারম্যান। তিনি বলেন, বিএনপি-জামায়াত জোট আন্দোলনের নামে রাষ্ট্রীয় কাঠামোর বিরুদ্ধে চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে দিচ্ছে। এটি অবশ্যই রাষ্ট্রদ্রোহিতার শামিল। বিএনপি-জামায়াত জোটের উদ্দেশে মানবাধিকার কমিশনের চেয়ারম্যান বলেন, সন্ত্রাসের পথ থেকে সরে আসতে হবে। কারণ রাষ্ট্রীয় কাঠামোতে আঘাতকারী সন্ত্রাসীর সঙ্গে কোন আলোচনা হতে পারে না।

ড. মিজানুর রহমান বলেন, দেশে আন্দোলনের নামে যেভাবে মানুষ পুড়িয়ে মারা হচ্ছে তাকে আর যাই হোক রাজনীতি বলা চলে না। এটি অবশ্যই সন্ত্রাস ও পৈশাচিকতা। আমরা লক্ষ্য করছি রাষ্ট্র শক্তি দিন দিন দুর্বল হয়ে পড়ছে। অন্যদিকে, সরকারের মন্ত্রী-এমপিরা শুধু কথার ফুলঝুরি ঝরাচ্ছে। সরকার ঘোষণা দিল ৭ দিনের মধ্যে সব ঠিক হয়ে যাবে। আজ এক মাস অতিবাহিত হয়েছে; এখন পর্যন্ত সরকারকে দৃশ্যমান কোনো পদক্ষেপ নিতে দেখা যায়নি।

এসএসসি পরীক্ষার প্রসঙ্গ টেনে মানবাধিকার কমিশনের চেয়ারম্যান বলেন, ‘এ’ লেভেল, ‘ও’ লেভেল পরীক্ষার সময় রাজনীতিবিদরা যদি তাঁদের নিজ নিজ কর্মসূচি থেকে বিরত থাকতে পারেন তাহলে এসএসসি পরীক্ষা চলাকালে কেন হরতাল প্রত্যাহার করা হয়নি? ধনীর সন্তানের পাশাপাশি কৃষক-শ্রমিকের সন্তানের পরীক্ষা দেয়ার অধিকার দিতে হবে দাবি করে রাজনীতিকদের উদ্দেশে ড. মিজানুর রহমান বলেন, সন্তানের নিরাপত্তার জন্য আপনাদের আছে বুলেটপ্রুফ গাড়ি। গরিব মানুষ সিএনজি অটোরিকশায় চলাচলের নিরাপত্তা চায়।

লিখিত বক্তেব্য এফবিএইচআরও’র আহ্বায়ক ড. মোঃ শাহজাহান বলেন, সমঝোতা ছাড়া এই সঙ্কট থেকে উত্তরণের কোন পথ নেই।

এতে অন্য বক্তারা বলেন, দেশের উদ্ভূত রাজনৈতিক সহিংসতায় সর্বস্তরের জনগণের মানবাধিকার লঙ্ঘিত হয়ে চলেছে। দেশের যোগাযোগ ব্যবস্থা পর্যুদস্ত। মানুষ স্বাধীনভাবে চলাফেরা করতে পারছে না। হরতাল-অবরোধে অর্থনীতি বাধাগ্রস্ত হচ্ছে। খেটে খাওয়া মানুষের জীবনযাত্রা ব্যাহত হচ্ছে। ভীতি-শঙ্কা, অস্থিরতা ও অনিশ্চয়তা দানা বেঁধেছে। মৃত্যুভয় ও কালো ছায়া তাদের আচ্ছন্ন করেছে। এছাড়া নারী-শিশু নির্বিশেষে প্রতিদিন অসংখ্য মানুষ ভয়াবহ অগ্নিদগ্ধ হওয়াসহ নানা ধরনের নৃশংসতার শিকার হচ্ছে। আর কোন সংঘাত নয়, সহিংসতা নয় সংলাপের মাধ্যমে দেশবাসীকে এই সঙ্কট থেকে মুক্তি দিতে প্রধানমন্ত্রী ও ২০ দলীয় জোট নেত্রীর প্রতি আহ্বান জানান বক্তারা।

আয়োজক সংগঠনের আহ্বায়ক ড. মোঃ শাহজাহানের সভাপতিত্বে গোলটেবিল আলোচনায় আরও বক্তব্য রাখেন সাবেক মন্ত্রী ও সেনাপ্রধান নূর উদ্দিন খান, সাবেক সংসদ সদস্য গোলাম মাওলা রনি, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের দর্শন বিভাগের অধ্যাপক ড. আনিসুজ্জামান, সাবেক আইজিপি ড. এম. এনামুল হক, সাবেক সচিব জাফর আহমেদ চৌধুরী, বিচারপতি আবু কাউসার মোঃ দাবিরুশ্বান প্রমুখ।

প্রকাশিত : ৮ ফেব্রুয়ারী ২০১৫

০৮/০২/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

শেষের পাতা



ব্রেকিং নিউজ: