আংশিক মেঘলা, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৭ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, বুধবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

রাজশাহীতে পুকুর দখল নিয়ে বিরোধে জখম ১০

প্রকাশিত : ৮ ফেব্রুয়ারী ২০১৫

স্টাফ রিপোর্টার, রাজশাহী ॥ বাগমারায় পুকুরের দখল নিয়ে বিরোধের জের ধরে দুই পক্ষের সংঘর্ষে অন্তত ১০ জন আহত হয়েছে। এদের মধ্যে আটজনকে কুপিয়ে জখম করা হয়েছে। এ সময় পায়ের রগ কেটে দেয়া হয়েছে দুইজনের। আহতদের উপজেলা স্বাস্থ্যকেন্দ্র ও রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। শনিবার বেলা ১১টার দিকে উপজেলার গোয়ালকান্দি ইউনিয়নের কনোপাড়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

জানা গেছে, উপজেলার গোয়ালকান্দি ইউনিয়নের কনোপাড়া গ্রামের একটি পুকুরের দখল নিয়ে আবদুর রশিদ ও ডাবলু নামের দুই ব্যক্তির মধ্যে বিরোধ চলে আসছিল।

শনিবার বেলা ১১টার দিকে আবদুর রশিদ তাঁর ভাতিজাদের নিয়ে পুকুরের পাশে এক চায়ের দোকানে বসে ছিলেন। এ সময় প্রতিপক্ষ ডাবলু ও তার লোকজন ধারালো অস্ত্র নিয়ে তাদের ওপর অতর্কিতভাবে হামলা চালায়। পরে উভয় পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ বেধে যায়।

এ সময় রশিদ পক্ষের জিন্নাহ, মতলেব, সামাদ, সিরাজ, আবদুল করিম, আদু, আজাদ ও আবদুর রশিদকে ধারাল অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে ও পায়ের রগ কেটে জখম করা হয়। সংঘর্ষে ডাবলু পক্ষের শাহিনুর রহমান ও চান মোহাম্মদ নামের আরও দুইজন আহত হন।

মাদারীপুরে হামলায় ২০

বাড়ি ভাংচুর

নিজস্ব সংবাদদাতা, মাদারীপুর থেকে জানান, শনিবার দুপুর ১টার দিকে সদর উপজেলার লক্ষ্মীগঞ্জ এলাকায় প্রতিপক্ষ ২০ বসতবাড়িতে কয়েক দফা হামলা চালিয়েছে। এতে প্রায় অর্ধকোটি টাকার ক্ষতি হয়েছে। এ সময় দুর্বৃত্তরা আতঙ্ক সৃষ্টি করতে কমপক্ষে ১০টি ককটেল বিস্ফোরণ ঘটায়। ককটেলের আঘাতে এক তরুণী আহত হয়েছে। পুলিশ ও র‌্যাব ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

জানা গেছে, মাদারীপুর সদর উপজেলার লক্ষ্মীগঞ্জ এলাকায় খেলাধুলাকে কেন্দ্র করে বৃহস্পতিবার নূর মোহাম্মদ কাজীর ছেলে বখতিয়ারকে মারধর করে। এ ঘটনায় আবার নূর মোহাম্মদ কাজীর লোকজন আক্কাস বেপারির ছেলে জুয়েলকে মারধর করে। এ এলাকায় আধিপত্য বিস্তার নিয়ে চলমান দু‘গ্রুপ সেলিম কাজী ও মান্নান লস্করের সঙ্গে দীর্ঘদিন যাবত বিবাদ চলে আসছে। নূর মোহাম্মদ কাজী এলাকার সেলিম কাজীর সমর্থক। অপরদিকে আক্কাস বেপারি মান্নান লস্করের সমর্থক। এ ঘটনাকে কেন্দ্র করেই প্রতিপক্ষের হামলায় নূর মোহাম্মদ ফকির, হালান বেপারি, মোতালেব লস্কর, জাকির মাতুব্বর, নূরুমাতুব্বর, আজাদ মাতুব্বর, মিজান বেপারি, মোকসেদ বেপারি, আমিনুল বেপারি, রাসেদুল বেপারি, রমিজ সরদার, শাহআলম সরদার হাই সরদার, আকুবালি বেপারি, আক্কাস বেপারির বসতঘরসহ দুইপক্ষের প্রায় ২০টি বাড়িতে হামলা চালিয়ে ভাংচুর করে। এ সময় কমপক্ষে ১০টি ককটেল বিস্ফোরণ ঘটায়। এই ককটেলের আঘাতে আবু লস্করের কলেজ পড়ুয়া মেয়ে রোকসানা আহত হয়েছে। এসব বসতঘর কুপিয়ে প্রতিপক্ষরা ব্যাপক ক্ষতি সাধন করে। ক্ষতিগ্রস্তদের অভিযোগ, হামলার সময় নগদ টাকা, স্বর্ণাঙ্কারসহ মূল্যবান জিনিসিপত্র লুট করে দুর্বৃত্তরা।

প্রকাশিত : ৮ ফেব্রুয়ারী ২০১৫

০৮/০২/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

দেশের খবর



ব্রেকিং নিউজ: