আংশিক মেঘলা, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৬ ডিসেম্বর ২০১৬, ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, মঙ্গলবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

সময় এখন কঙ্গনা ও শহীদের

প্রকাশিত : ৫ ফেব্রুয়ারী ২০১৫
  • লতিফুল বারী নিবিড়

দীর্ঘদিনের পরিণয়ের পর চূড়ান্ত পরিণয়ের অপেক্ষায় ছিল রানী মেহরা। পরিকল্পনা ছিল হানিমুনে ইউরোপ ভ্রমণের। কিন্তু হঠাৎ করেই বিয়ের ঠিক আগ মুহূর্তে বিজয়ের বেঁকে বসা। কি করবে রানী? জীবনকে পর্যবসিত করবে হতাশার সাগরে? কিন্তু সেটা তো কোন সমাধান নয়। নিজেকে সামলে নিয়ে পরিকল্পনা করল জীবনটাকে উপভোগ করার। একটাই তো জীবন। সেই বরফসম জীবনটা গলে যাওয়ার আগেই সেটির স্বাদ পাওয়া চাই। শুরু হলো একা একা ইউরোপ ভ্রমণ। তারপর? হ্যাঁ, এটি ‘কুইন’ ছবির প্লট আর রানী মেহরার চরিত্রে রূপদানকারী কঙ্গনা রনৌত এ ছবিতে অনবদ্য অভিনয়ের জন্য বলিউডের সবচেয়ে প্রশংসনীয় ফিল্মফেয়ার এ্যাওয়ার্ডে পেয়েছেন সেরা অভিনেত্রীর পুরস্কার। কারণ জোহরের প্রাণবন্ত উপস্থাপনায় ৬০তম এ আসর অনুষ্ঠিত হয় গত ৩১ জানুয়ারি মুম্বাইয়ে যশরাজ স্টুডিওতে। এ যেন সত্যিকার অর্থেই কুইনের হাতে মুকুটের শোভা। শুধু তাই নয়। সেরা অভিনেত্রীর পাশাপাশি কুইন জিতেছে আরও ছয়টি ক্যাটাগরিতে পুরস্কার। তার মাঝে সেরা চলচ্চিত্র তো বটেই, আছে সেরা পরিচালক যা কিনা লুফে নিয়েছেন বিকাশ বাল। এছাড়াও রয়েছে সেরা আবহ সঙ্গীত, সেরা এডিটিং ও সেরা সিনেমা ফটোগ্রাফারের পুরস্কারও। ‘কুইন’ ছবির জন্য কঙ্গনার এ পুরস্কার পাওয়া প্রমাণ করে পুরুষ অধ্যুষিত এই বলিউড ইন্ডাস্ট্রিতে একজন নারী অভিনেত্রীও পারে সিনেমার গল্পকে এগিয়ে নিতে। যদিও জমকালো এ আয়োজনে স্বশরীরে হাজির হতে পারেননি কঙ্গনা। তাঁর হয়ে পুরস্কার নিতে মঞ্চে এগিয়ে যান পরিচালক বিকাশ বাল। কিন্তু অভিনেত্রী রেখা সাফ জানিয়ে দেন এ পুরস্কার তিনি কঙ্গনাকে সরাসরি হাতে দিতে চান। সঙ্গে এও জানিয়ে দেন এবারের ফিল্মফেয়ার এ্যাওয়ার্ডের সঙ্গে তাঁর বিশেষ যোগ, ৬০তম এ আসরের শুরু আর তাঁর জন্ম একই সালে।

এতো গেল সেরা অভিনেত্রীর কথা। ওদিকে সেরা অভিনেতার পুরস্কার বগলদাবা করেছেন শহীদ কাপুর ‘হায়দার’ ছবিতে অসামান্য অভিনয়ের জন্য। তাঁর পথ ছিল আরও বন্ধুর। প্রতিযোগিতা করতে হয়েছে ‘পিকে’ এর আমির খানের সঙ্গে। তবে শেক্সপিয়রের ট্র্যাজেডি বলে কথা। সঙ্গে রয়েছে কাশ্মীরের মনোরম সব লোকেশনের নয়নাভিরাম সব চিত্রায়ন। হ্যাঁ, শেক্সপিয়রের অমর ট্র্যাজেডি হ্যামলেটের ভারতীয় প্রেক্ষাপটে বানানো ছবি হায়দার। আর এক্ষেত্রে পরিচালক বিশাল ভরদ্বাজ এক কাঠি সরেস। শেক্সপিয়র নিয়ে তার নাড়াচাড়া আরও আগে থেকেই যা কিনা শুরু হয়েছিল ‘মকবুল’ দিয়ে। এরপরে ‘ওমকারা’ দিয়ে অবশেষে হায়দার। আর শহীদ কাপুরের সঙ্গে তার রসায়নটাও বেশ পুরনো। যদিও শহীদকে নিয়ে কাজ করা বিশালের ‘কামিনি’ ও ‘মার্বেল’ সিনেমা দুইটি সেই অর্থে জমেনি বলিউডে। তবে দীর্ঘ ৫ বছরের বিরতিতে দুজনের জুটিটা দর্শক পছন্দ করেছে যার প্রমাণ মিলছে ভালবাসা ও প্রতিশোধের ছবি ‘হায়দার’ এর জন্য শহীদ কাপুরের সেরা অভিনেতার পুরস্কারপ্রাপ্তি। আর এ পুরস্কার পাওয়ার পর শহীদ শুধু একটা কথাই বলেছেন, ‘আমি বিশ্বাস করতে পারছি না। এখন পর্যন্ত করা আমার সেরা কাজ হায়দার’। এছাড়া হায়দারের ঝুলিতে জুটেছে আরও পাঁচটি পুরস্কার। যার মাঝে রয়েছে সেরা পুরুষ ও নারী পার্শ্বঅভিনেতা ও অভিনেত্রী, সেরা কস্টিউম ডিজাইন ও সেরা প্রোডাকশন ডিজাইন। বলিউডের এই মহানযজ্ঞে উপস্থিত ছিলেন অমিতাভ বচ্চন, জয়া বচ্চন, সালমান খান, রাজকুমার হিরানি, মাধবনসহ ভারতীয় চলচ্চিত্র জগতের রথী মহারথীরা। ছিলেন আমন্ত্রিত অতিথিদের অংশগ্রহণে নাচ ও গান। তবে ফিল্মফেয়ার এ্যাওয়ার্ডের সবচেয়ে সেরা আকর্ষণ থাকে কাকে লাইফ টাইম এ্যাচিভমেন্ট দেয়া হবে। এবারে ভারতীয় চলচ্চিত্রে অসামান্য অবদান রাখায় সে পুরস্কারের মাল্য পড়ল কামিনি কৌশলের গলায়। তিনি তাঁর অনুভূতি জানাতে এসে বললেন, ‘অনেক লম্বা সময় পেরিয়ে গিয়েছে, সেই সময়ের সহকর্মীদের মিস করছি অনেক, কিন্তু তাদের অনেকেই আজ হয়ত নেই’। ১৯৫৪ সালে শুরু হওয়া ফিল্মফেয়ার এ্যাওয়ার্ডকে বলা যেতে পারে বলিউডের অস্কার। প্রভাবশালী টাইমস গ্রুপের চলচ্চিত্রবিষয়ক ম্যাগাজিন ‘ফিল্মফেয়ার’ এর পাঠকদের ভোটে এবং বিশেষজ্ঞ জুরি বোর্ডের সমন্বয়ে প্রতিবছর দেয়া হয় এ এ্যাওয়ার্ড আর তারই ধারাবাহিকতায় শেষ হলো এবারের মহোৎসব। অপেক্ষা পরের বছরের।

প্রকাশিত : ৫ ফেব্রুয়ারী ২০১৫

০৫/০২/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


ব্রেকিং নিউজ: