কুয়াশাচ্ছন্ন, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৩ ডিসেম্বর ২০১৬, ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, শনিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

ফোরকান মল্লিক চাচাকে গুলি করে হত্যার পর চাচাত বোনকে নিয়ে যায়

প্রকাশিত : ৫ ফেব্রুয়ারী ২০১৫
  • যুদ্ধাপরাধী বিচার
  • প্রসিকিউশনের পঞ্চম সাক্ষীর জবানবন্দী

স্টাফ রিপোর্টার ॥ একাত্তরের মুক্তিযুদ্ধের সময় মানবতাবিরোধী অপরাধের অভিযোগে অভিযুক্ত পটুয়াখালীর রাজাকার ফোরকান মল্লিক ও কিশোরগঞ্জের রাজাকার পলাতক হাসান আলীর বিরুদ্ধে প্রসিকিউশনের সাক্ষীগণ জবানবন্দী প্রদান করেছেন। ফোরকান মল্লিকের বিরুদ্ধে প্রসিকিউশনের পঞ্চম সাক্ষী সেলিম হাওলাদার জবানবন্দীতে বলেছেন, আসামি আমার চাচাতো বোন আলেয়াকে নিয়ে টানাহেঁচড়া করলে চাচা হাতেম আলী এগিয়ে এসে বলে আমার মেয়েকে নেবেন না। নিলে আমি মেজর সাহেবকে জানাবো। এ কথা বলার সঙ্গে সঙ্গে ফোরকান তার কাছে থাকা অস্ত্র দিয়ে গুলি করে চাচা হাতেম আলী হাওলাদারকে হত্যা করে। পরে বোন আলেয়াকে নিয়ে যায়। সে সুস্থ হলে মা-চাচীদের কাছে তার ওপর পাশবিক নির্যাতনের কথা বলে। জবানবন্দী শেষে আজ সাক্ষীকে জেরা করার জন্য দিন নির্ধারণ করা হয়েছে। অন্যদিকে কিশোরগঞ্জের রাজাকার হাসান আলীর বিরুদ্ধে প্রসিকিউশনের পঞ্চম সাক্ষী মোঃ কাইয়ুম জবানবন্দীতে বলেছেন, আসামি হাসান আলী নিজ হাতে গুলি করে আমার বাবা আব্দুর রশিদকে হত্যা করেছে। জবানবন্দী শেষে রাষ্ট্র নিয়োজিত আসামি পক্ষের আইনজীবী সাক্ষীকে জেরা করেন। আজ পরবর্তী সাক্ষীর জন্য দিন নির্ধারণ করা হয়েছে। বুধবার আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল-১ ও ২ এ আদেশগুলো প্রদান করেছেন।

মানবতাবিরোধী অপরাধের মামলায় পটুয়াখালীর রাজাকার ফোরকান মল্লিকের বিরুদ্ধে ৫ম সাক্ষী জবানবন্দী প্রদান করেছেন। জবানবন্দী শেষে আজ পর্যন্ত মামলার কার্যক্রম মুলতবি করা হয়েছে। চেয়ারম্যান বিচারপতি ওবায়দুল হাসান শাহীনের নেতৃত্বে তিন সদস্যবিশিষ্ট আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল-২ এ আদেশ প্রদান করেছেন। ট্রাইব্যুনালে অন্য দুই সদস্য ছিলেন বিচারপতি মোঃ মুজিবুর রহমান মিয়া ও বিচারপতি মোঃ শাহিনুর ইসলাম। সাক্ষীকে জবানবন্দীতে সহায়তা করেন প্রসিকিউটর মোখলেসুর রহমান বাদল ও প্রসিকিউটর সাবিনা ইয়াসমিন খান মুন্নি। অন্যদিকে আসামি পক্ষে ছিলেন এ্যাডভোকেট আব্দুস সালাম খান।

প্রসিকিউশনে সাক্ষী জবানবন্দীতে বলেন, আমার নাম মোঃ সেলিম হাওলাদার, পিতা- কালু হাওলাদার, মাতা- ফুলবড়ু। গ্রাম- কাঁকড়াবুনিয়া, থানা- মির্জাগঞ্জ, জেলা- পটুয়াখালী। আমার বর্তমান বয়স ৫৯ বছর। আমি সপ্তম শ্রেণী পর্যন্ত পড়ালেখা করেছি। আমি চাউলের ব্যবসা এবং সাংসারিক কাজ করি। ১৯৭১ সালের বাংলা ৫ ভাদ্র অনুমান বেলা দেড়টা থেকে ২টার মধ্যে একটি গানবোটের শব্দ পাই। আমাদের বাড়ি বাজারের একবারেই পাশে। আমরা বাড়ি থেকে বেরিয়ে দেখি সামনে একটি স্পীডবোটে করে ৮-১০ জন রাজাকার ও পাকসেনারা আসে এবং তারা এলোপাথাড়ি গুলি করতে থাকে। পিছনে পিছনে একটি গানবোট ১০ মিনিটের মধ্যে কাঁকড়াবুনিয়া বাজারের পাশে এসে অবস্থান নেয়। গানবোট থেকে আকাববর গাজি ও ফোরকান মল্লিক গুলি করতে করতে নেমে আসে।

হাসান আলী ॥ কিশোরগঞ্জের রাজাকার হাসান আলীর বিরুদ্ধে প্রসিকিউশনের পঞ্চম সাক্ষী মোঃ কাইয়ুম জবানবন্দীতে বলেছেন, আসামি হাসান আলী নিজ হাতে গুলি করে আমার বাবা আব্দুর রশিদকে হত্যা করেছে। জবানবন্দী শেষে রাষ্ট্র নিয়োজিত আসামি পক্ষের আইনজীবী সাক্ষীকে জেরা করেন। আজ পরবর্তী সাক্ষীর জন্য দিন নির্ধারণ করা হয়েছে। চেয়ারম্যান বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিমের নেতৃত্বে তিন সদস্যবিশিষ্ট আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল-১ এ আদেশ প্রদান করেছেন। ট্রাইব্যুনালে অন্য দু’সদস্য ছিলেন বিচারপতি জাহাঙ্গীর হোসেন সেলিম ও বিচারপতি আনোয়ারুল হক। সাক্ষীকে জাবানবন্দীতে সহায়তা করেন প্রসিকিউটর আবুল কালাম। সাক্ষীকে জেরা করেন রাষ্ট্র নিয়োজিত আইনজীবী আব্দুস শুকুর।

প্রকাশিত : ৫ ফেব্রুয়ারী ২০১৫

০৫/০২/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

শেষের পাতা



ব্রেকিং নিউজ: