আংশিক মেঘলা, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৮ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, বৃহস্পতিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

দুই লাখ টাকা আমানত বীমা সুরক্ষা করবে বাংলাদেশ ব্যাংক

প্রকাশিত : ৪ ফেব্রুয়ারী ২০১৫

অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ ব্যাংক জমা রাখা গ্রাহকের ২ লাখ টাকা পর্যন্ত আমানত বীমা সুরক্ষার আওতায় আনা হচ্ছে। এছাড়া সুরক্ষার আওতায় আনা হচ্ছে আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলোর আমানতও। মঙ্গলবার বাংলাদেশ ব্যাংকের প্রধান কার্যালয়ে সফটওয়ার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে এ তথ্য জানান গবর্নর ড. আতিউর রহমান। স্বয়ংক্রিয়ভাবে আমানত বীমা ট্রাস্ট তহবিলের প্রিমিয়াম আদায় ও হিসাব সংরক্ষণে এ সফটওয়ার তৈরি করা হয়।

জানা যায়, ‘ব্যাংক আমানত বীমা আইন ২০০০’-এর আওতায় বীমাযোগ্য আমানতের ওপর নির্ধারিত প্রিমিয়াম গ্রহণ করে ক্ষুদ্র আমানতকারীদের সুরক্ষা দেয়া হচ্ছে। বর্তমানে আমানত বীমা ট্রাস্টে ফান্ডের পরিমাণ ৩ হাজার ৬৬১ কোটি টাকা। ব্যাংকের আমানত বীমা প্রিমিয়াম গ্রহণ করা হয় ষান্মাসিক ভিত্তিতে। বাংকের ঝুঁকি বিবেচনায় প্রিমিয়ামের হার নির্ধারণ করা হয়। প্রবলেম ব্যাংকগুলোকে দশমিক ১০ শতাংশ এবং আরলি ওয়ার্নিংভুক্ত ব্যাংককে দশমিক ৯ শতাংশ এবং অন্যান্য ব্যাংককে দশমিক ৮ শতাংশ প্রিমিয়াম দিতে হয়। তহবিলের টাকা পাঁচ ও দশ বছর মেয়াদী ট্রেজারি বিলে এবং স্বল্পমেয়াদে রেপো খাতে বিনিয়োগ করা হয়। এতদিন বীমাযোগ্য প্রত্যেক আমানতের হিসাবায়নসহ প্রিমিয়াম নির্ধারণী ম্যানুয়ালি করা হতো। গতকাল ইনফর্মেশন ফর ডিপোজিট ইন্স্যুরেন্স প্রিমিয়াম এ্যাসিসমেন্ট (আইডিআইপিএ) সফটওয়ার উদ্বোধন করেছেন বাংলাদেশ ব্যাংকের গবর্নর। এখন সফটওয়ারের মাধ্যমে প্রতিদিনের ব্যাংক আমানত বীমা তহবিলের পরিমাণ জানা যাবে। কেন্দ্রীয় ব্যাংকে সংশ্লিষ্ট ব্যাংকের হিসাব থেকে এই টাকা নিয়ে নেবে।

গবর্নর বলেন, বাংলাদেশ ব্যাংক থেকে সম্প্রতি ২০০০ সালের ব্যাংক আমানত বীমা আইন পরিবর্তন করে নতুন ‘আমানত সুরক্ষা আইন’ করার প্রস্তাব অর্থ মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হয়েছে। নতুন ‘আমানত সুরক্ষা আইনে’ সুরক্ষা আমানতের আওতা ১ লাখ টাকা থেকে বাড়িয়ে ২ লাখ টাকা করা হচ্ছে। এছাড়া আর্থিক প্রতিষ্ঠানের আমানতকেও সুরক্ষার আওতায় আনা হচ্ছে। নতুন আইন পাস হলে বর্তমানে যেখানে আমানতকারীর আমানত ৮৫ শতাংশ সুরক্ষা পেত তা বেড়ে ৯৩ শতাংশ হবে। কোন ব্যাংক যদি অবসায়ন হয়ে যায় তাহলে গ্রাহকের আমানত এই বীমা তহবিল থেকে সহজেই ফেরত দেয়া যাবে। ইনফর্মেশন ফর ডিপোজিট ইন্স্যুরেন্স প্রিমিয়াম এ্যাসেসমেন্ট সফটওয়ার বাংলাদেশ ব্যাংকের নিজস্ব নিজস্ব সফটওয়ার ইঞ্জিনিয়াররা তৈরি করেছেন উল্লেখ করে গবর্নর বলেন, বাংলাদেশ ব্যাংকের নিজস্ব সফটওয়ার ইঞ্জিনিয়াররা এ ধরনের ৮০টি সফটওয়ার তৈরি করেছেন। এতে খরচ একদিকে যেমন কম হয়েছে, অন্যদিকে এর ব্যবহার সহজ হয়েছে। বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্বাহী পরিচালক আব্দুল হক’র সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ ব্যাংকের ডেপুটি গবর্নর এসকে সুর চৌধুরী, আবু হেনা রাজি হাসান, নাজনীন সুলতানা প্রমুখ।

প্রকাশিত : ৪ ফেব্রুয়ারী ২০১৫

০৪/০২/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


ব্রেকিং নিউজ: