কুয়াশাচ্ছন্ন, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৫ ডিসেম্বর ২০১৬, ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, সোমবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

বেরোবির একাডেমিক ও প্রশাসনিক ভবনে তালা

প্রকাশিত : ৩ ফেব্রুয়ারী ২০১৫
  • কার্যক্রম পুরোপুরি অচল

স্টাফ রিপোর্টার, রংপুর ॥ পক্ষে-বিপক্ষে নানা দাবিদাওয়া নিয়ে নতুন করে আবারও উত্তপ্ত হয়ে উঠেছে রংপুরের বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়। উপাচার্যের অপসারণ দাবিতে আন্দোলনরত শিক্ষক-কর্মকর্তা-কর্মচারীদের সঙ্গে একাত্মতা প্রকাশ করে সোমবার সাধারণ শিক্ষার্থীদের একটি অংশ ছাত্র ধর্মঘট ডেকে একাডেমিক ভবনে তালা দিয়েছে। এর আগে গত ২ ডিসেম্বর আন্দোলনকারীরা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক ভবনে তালা দেয়ে। প্রশাসনিক ও একাডেমিক ভবনে তালা ঝোলানোর এই ঘটনায় সোমবার থেকে বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয় কার্যত অচল হয়ে পড়েছে। যদিও নীলদলের পক্ষে দু’একটি বিভাগের শিক্ষকরা খোলা আকাশের নিচে ক্লাস নিয়েছে। জানা গেছে, বকেয়া বেতন এবং পদোন্নতির দাবিতে মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় প্রগতিশীল শিক্ষক সমাজের ব্যানারে শিক্ষকরা গত অক্টোবর থেকে আন্দোলন চালিয়ে আসছিল। দাবি আদায়ে পরবর্তীতে তাদের সঙ্গে যোগ দেয় কর্মকর্তা-কর্মচারী এবং শিক্ষার্থীদেরও একটি অংশ। ধারাবাহিক আন্দোলনের এক পর্যায়ে আন্দোলনকারীরা গত ২ ডিসেম্বর প্রশাসনিক ভবনে তালা লাগিয়ে দেয়। এতে করে বন্ধ হয়ে যায় ১৪-১৫ শিক্ষাবর্ষের ভর্তি পরীক্ষা। যা গত ৪,৫,৬ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত হবার কথা ছিল। কিন্তু এই ভর্তি পরীক্ষা না হওয়ার ফলে প্রায় সাড়ে ৯০ হাজার শিক্ষার্থীর ভবিষ্যত এখন অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে। সোমবার সকালেই সাধারণ শিক্ষার্থীদের ব্যানারে কিছু ছাত্রছাত্রী সকল একাডেমিক ভবনে তালা লাগিয়ে দেয় এবং ক্যাম্পাসে মিছিল-সমাবেশ শুরু করে। বেলা অনুমান ১টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকদের অপর সংগঠন নীলদল অপর কিছু সাধারণ শিক্ষার্থীকে নিয়ে ভর্তি পরীক্ষার তারিখ ঘোষণা এবং শিক্ষা কার্যক্রম চালিয়ে যাবার দাবিতে ওই তালা ভাঙ্গার চেষ্টা করলে উভয়পক্ষের মাঝে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। পরে আন্দোলনরত শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের প্রতিরোধের মুখে তারা তালা খুলতে পারেনি। এ নিয়ে উভয়পক্ষের মাঝে ছড়িয়ে পড়ে উত্তেজনা। বিশ্ববিদ্যালয়ের সাধারণ শিক্ষার্থীর একটি অংশ ভর্তি পরীক্ষার নির্দিষ্ট তারিখ ঘোষণা ও গ্রহণ, ছাত্রদের আবাসিক হল, ক্যাফেটেরিয়া চালুসহ উপাচার্যকে অপসারণ করে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার সুষ্ঠু পরিবেশ ফিরিয়ে আনার দাবিতে ধর্মঘট চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দিলেও অপর অংশ বলছে সাধারণ শিক্ষার্থীদের নামে এই আন্দোলন করা হলেও তারা এই আন্দোলনের সঙ্গে নেই। তারা চাইছেন শিক্ষা কার্যক্রম অব্যাহত থাকুক।

সিলেটের দুলাভাইয়ের হাতে শ্যালক খুন

স্টাফ রিপোর্টার, সিলেট অফিস ॥ সিলেটের গোয়াইনঘাট উপজেলার জাফলং গুচ্ছগ্রামে দুলাভাইয়ের হাতে শ্যালক খুন হয়েছে। নিহত যুবকের নাম শাকিল হোসেন সুজন (১৯)। হামলায় গুরুতর আহত হয়েছে আরেক শ্যালক সোহরাব হোসেন। সোমবার ভোর রাতে এই ঘটনাটি ঘটে।

জানা যায়, রবিবার রাতে শাকিল হোসেন সুজন ও তার ভাই সোহরাব হোসেন নরসিংদী থেকে জাফলংয়ের গুচ্ছগ্রামে দুলাভাই হোসেন মিয়ার বাড়িতে বেড়াতে আসেন। রাতে তারা দুলাভাই হোসেনের সাথে একই কক্ষে ঘুমিয়ে পড়ে। সোমবার ভোর রাতে হোসেন মিয়া কাঠ দিয়ে ঘুমন্ত অবস্থায় থাকা সুজন ও সোহরাবের মাথায় এলোপাতাড়ি আঘাত করতে থাকে। এতে ঘটনাস্থলেই সুজন নিহত ও সোহরাব গুরুতর আহত হয়। ঘটনার পর ঘাতক হোসেন মিয়া পালিয়ে যায়।

প্রকাশিত : ৩ ফেব্রুয়ারী ২০১৫

০৩/০২/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

দেশের খবর



ব্রেকিং নিউজ: