কুয়াশাচ্ছন্ন, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৩ ডিসেম্বর ২০১৬, ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, শনিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

বুঝতে হবে হৃদয় দিয়ে

প্রকাশিত : ২ ফেব্রুয়ারী ২০১৫
বুঝতে হবে হৃদয় দিয়ে

বিয়ের মতো পবিত্র বন্ধনে আবদ্ধ হয়ে সুখে দুখে জীবন পার করে দেয়াই আমাদের সমাজের রীতি। পরিবর্তিত বর্তমান সামাজিক প্রেক্ষাপটে এই রীতিই যেন অনেক সময় অনেকের ধাতে সয় না। বিয়ের কিছুদিন পরেই অনেক সংসারে দেখা দেয় কলহ, বিবাদ। কিন্তু কিছু কিছু ব্যাপার মেনে নিয়ে চললেই দেখা যায় সংসারে অনাবিল শান্তি বিরাজ করবে। মন থেকেই বুঝতে হবে দুজন দুজনকে। কিছু ব্যাপার অনুসরণ করলে সমাধান এগিয়ে যাবে আরেক ধাপ। দেখা যাক সেসব বিষয়।

স্ত্রীর কর্তব্য

১.স্বামী যখন তাঁর পছন্দের মিউজিক, বই বা সিনেমা নিয়ে সময় কাটাবেন তখন তাঁর সঙ্গ দেয়া উচিত। সেক্ষেত্রে তাঁর পছন্দের মিউজিক, বই বা সিনেমা আপনার পছন্দের কিনা, সে ব্যাপারকে অপেক্ষাকৃত কম গুরুত্ব দেয়াই ভাল।

২.মনে রাখতে হবে, একেক জনের চিন্তা, পছন্দ যেমন আলাদা তেমনি সবার সুখও এক জায়গায় নয়। আপনাকে বুঝতে হবে আসলে আপনি কী চান।

৩.কিছু জিনিস যা আপনার একান্ত পছন্দের, কিন্তু আপনার স্বামী এড়িয়ে যেতে চান। আবার এমন কিছু জিনিস আছে যা আপনার স্বামীর পছন্দের, কিন্তু আপনার অপছন্দ। আবার এমন কিছু নিশ্চয়ই আছে যা আপনাদের দু’জনেরই পছন্দ, অথচ আপনারা নিজেরা কখনও ভেবে দেখেননি। এমন নতুন কিছু খুঁজে বের করার চেষ্টা করুন।

৪.দু’জনের পছন্দ আলাদা হলে তা প্রতিদিনের কাজে কিছু সমস্যা তৈরি করতে পারে। তার মানে আপনারা পরস্পরের সঙ্গে থাকতে পারবেন না, এমন আশঙ্কার কোন কারণ নেই। প্রতিদিন টুকটাক ঝামেলা থেকেই আপনাদের মধ্যে যাতে বড় কোন ভুল বোঝাবুঝি না হয়, সেদিকে লক্ষ্য রাখুন।

৫.স্বামী ছাড়া অন্য কারও সঙ্গে আপনার পছন্দ মিলতেই পারে। তাই বলে তাঁর সঙ্গে আপনার স্বামীর তুলনা করবেন না। এতে আপনাদের সম্পর্কে বড় ধরনের সমস্যার সূত্রপাত হতে পারে।

৬.মনে রাখতে হবে আপনাদের সম্পর্ক সুন্দর করে তোলার জন্য নিজের পছন্দের সঙ্গে কমপ্রোমাইজ করবেন না। আপনার পছন্দের জিনিস এনজয় করুন। স্বামীর সঙ্গে তার ভাললাগাও শেয়ার করুন।

স্বামীর কর্তব্য

১.ভালবাসার মানুষের সঙ্গ পেলে অনেক অপ্রিয় জিনিসও প্রিয় হয়ে উঠতে পারে। সুতরাং স্ত্রীর পছন্দের সঙ্গে আপনার পছন্দ এক নাও হতে পারে। তাই আপনার পছন্দকে প্রাধান্য দেয়ার পাশাপাশি স্ত্রীর পছন্দকেও প্রাধান্য দিতে হবে। সঙ্গীর পছন্দকে গুরুত্ব দিয়ে নিজের পছন্দকে প্রতিষ্ঠা করুন। দেখবেন দু’জনের মধ্যে সম্পর্ক আরও গাঢ় হবে।

২.মাঝে মধ্যে দু’জনে মিলে দূরে কোথাও ঘুরে আসতে পারেন। দু’জনের ভাললাগা-মন্দলাগাগুলো শেয়ার করতে পারেন। এতে করে দু’জনের মধ্যে বোঝাপড়া ভাল হবে।

৩.স্ত্রীর মতের সঙ্গে আপনার মতের মিল না হলেই যে একসঙ্গে থাকা যাবে না এ ধারণা মন থেকে ঝেড়ে ফেলুন। চেষ্টা করুন দু’জনার মধ্যে কীভাবে সমঝোতা করা সম্ভব। তাই বলে এই নয় যে নিজের ব্যক্তিত্বকে বিসর্জন দিতে হবে

৪. যদি বুঝতে পারেন কেউ আপনাকে সত্যিই ফিল করে, আর আপনি যদি তার সাথেই সুখী হন, চোখ বন্ধ করে হাত ধরুন হয়ত সেই ফেলে যাওয়া বন্ধুটিই আপনাকে নিয়ে যাবে সুখের ঘরে।

৫.সব কিছুতেই প্রশ্নবোধক টানবেন না। আগে বুঝুন তারপর কথা বলুন। সংসারে বড় ব্যাপারগুলোর চেয়ে ছোট খাটো বিষয়গুলো নিয়েই বেশি কলহ বাধে। এসব মোটেও প্রশ্রয় দিবেনা না। মাথা ঠান্ডা রেখে বিষয়গুলো স্ত্রীকে বোঝলেই দেখবেন বুঝে যাবে।

ছবি : আজিম এলাহি

মডেল : শম্পা, সনি

ও রিংকি

প্রকাশিত : ২ ফেব্রুয়ারী ২০১৫

০২/০২/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


ব্রেকিং নিউজ: