মূলত পরিষ্কার, তাপমাত্রা ২১.১ °C
 
১১ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, রবিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

হরতালে ঢাকায় বন্দুকযুদ্ধে শিবির কর্মীর মৃত্যু

প্রকাশিত : ২ ফেব্রুয়ারী ২০১৫

স্টাফ রিপোর্টার ॥ বিচ্ছিন্ন ঘটনার মধ্যদিয়ে বিএনপি নেতৃত্বাধীন ২০ দলীয় জোট দেশব্যাপী অবরোধ-হরতাল পালন করেছে। যদিও রাজধানীতে অবরোধ-হরতালের কোন প্রভাবই ছিল না। ঢাকায় যানবাহন চলাচল ছিল একেবারেই স্বাভাবিক। রাজধানী থেকে নিয়মিত ট্রেন ও লঞ্চ ছেড়ে গেছে। তবে মহাখালী, গাবতলী ও সায়েদাবাদ থেকে দূরপাল্লার যানবাহন চলাচল খানিকটা বিঘিœত হয়েছে। সচিবালয়ের পাশে একটি হাতবোমার বিস্ফোরণ ঘটেছে। ঢাকায় নাশকতাকারীদের ধরিয়ে দিতে আবারও পুরস্কার ঘোষণা করেছেন ডিএমপি কমিশনার আছাদুজ্জামান মিয়া। এদিকে গত ২৩ জানুয়ারি অবরোধের মধ্যে রাজধানীর যাত্রাবাড়ীতে পেট্রোলবোমার আগুনে দগ্ধদের মধ্যে একজনের মৃত্যু হয়েছে। এছাড়া দেশব্যাপী যৌথবাহিনীর চলমান অভিযানে ঢাকায় বন্দুকযুদ্ধে এক ছাত্রশিবির সদস্যের মৃত্যু হয়েছে। তার কাছ থেকে উদ্ধার হয়েছে পেট্রোলবোমা ও শক্তিশালী বোমা তৈরিসহ মারাত্মক নাশকতা চালানোর গানপাউডার। চলমান অভিযানে নিহত শিবির সদস্যের তথ্যমতে, ১১ শিবির সদস্য, বিএনপির জাতীয়তাবাদী সাংস্কৃতিক জোটের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আইনুল হক, ঢাকা মহানগর বিএনপির ৬৮ নম্বর ওয়ার্ডের প্রেস সচিব মোশারফ হোসেনসহ ঢাকা থেকে ৩২ জনসহ সারাদেশ থেকে শতাধিক গ্রেফতার হয়েছে।

ঢাকা ॥ রবিবার অবরোধ-হরতালে নেতাকর্মীদের মাঠে দেখা যায়নি। রাস্তায় ছিল তীব্র যানজট। ঢাকার জীবনযাত্রা ছিল একেবারেই স্বাভাবিক। বেলা এগারোটার দিকে সচিবালয়ের পশ্চিম পাশে গণপূর্ত বিভাগের স্টোররুমের কাছে হাতবোমা বিস্ফোরিত হয়। এতে বিদ্যুত ভবনের পঞ্চম তলায় একটি কক্ষের কাঁচ ভেঙে যায়। তবে কোন হতাহতের ঘটনা ঘটেনি। এ ঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য বিদ্যুত বিভাগের উপ সহকারী প্রকৌশলী আইয়ুব আলীসহ বিদ্যুত ভবনের সিসিটিভি অপারেটর ও একজন নিরাপত্তারক্ষীকে শাহবাগ থানায় নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করছে পুলিশ।

অন্যদিকে গত ২৩ জানুয়ারি রাতে যাত্রাবাড়ীতে যাত্রীবাহী বাসে পেট্রোলবোমার আগুনে দগ্ধ ২৭ যাত্রীর মধ্যে নূর আলম (৪০) নামে একজনের মৃত্যু হয়েছে। রবিবার দুপুর একটার দিকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়। নিহত নূর আলম নাটোর জেলা সদর থানাধীন পাটল গ্রামের ওহেদ আলীর পুত্র ছিলেন। তিনি নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জের ভুলতা গাউসিয়া এলাকায় বসবাস করতেন।

এদিকে সারাদেশে চলমান যৌথ বাহিনীর অভিযানে শনিবার সকাল ৬টা থেকে রবিবার রাত আটটা পর্যন্ত রাজধানী থেকে গ্রেফতার হয়েছে অন্তত ৫০ জন। শনিবার রাতে রাজধানীর মিরপুর-১০ নম্বর গোলচত্বর এলাকায় অভিযানকালে কাগজের শপিংব্যাগে দুটি পেট্রোলবোমাসহ গ্রেফতার হয় এমদাদ উল্লাহ (২৩)। এমদাদের বরাত দিয়ে পুলিশ জানায়, এমদাদ জব্দকৃত পেট্রোলবোমা দুইটি দিয়ে যাত্রাবাহী বাসে আগুন লাগিয়ে বহু মানুষকে হত্যার জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছিল। একাজে তার বহু সহযোগী রয়েছে। পরে এমদাদের তথ্যমতে, মিরপুর মডেল থানাধীন ২ নম্বর সেকশনের বি ব্লকের ২ নম্বর সড়কের ১ নম্বর বাড়ির দ্বিতীয় তলায় শিবিরের মেসে অভিযান চালানো হয়। সেখান থেকে গ্রেফতার হয় ছাত্র শিবিরের আরও ১১ সদস্যকে। তারাও রাজধানীতে নাশকতার সঙ্গে জড়িত। সেখান থেকে পেট্রোলবোমা, গানপাউডারসহ ছাত্রশিবিরের নানা ধরনের লিফলেট উদ্ধার হয়।

পরে এমদাদকে নিয়ে শনিবার রাত তিনটার দিকে রাজধানীর রূপনগর এলাকায় দ্বিতীয় দফায় অভিযান চালাতে গেলে ছাত্রশিবির এমদাদকে ছিনিয়ে নিতে পুলিশকে লক্ষ্য করে বোমা হামলা করে ও গুলি চালায়। পুলিশও পাল্টা গুলি চালায়। পরে ঘটনাস্থল থেকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় এমদাদকে উদ্ধার করে দ্রুত ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। ভোরে চারটার দিকে কর্তব্যরত চিকিৎসকরা এমদাদকে মৃত ঘোষণা করেন।

নিহত এমদাদের পিতার নাম মৃত জামাল উদ্দিন। মাতা আনোয়ারা বেগম। বাড়ি জামালপুর জেলা সদরের বানিয়ারপাড় গ্রামে। ঢাকা কলেজে পরিসংখ্যান বিভাগের অনার্স প্রথম বর্ষের ছাত্র ছিল। শিবিরের প্রশিক্ষিত বোমাবাজ ছিল। তিনি ছাত্রশিবিরের ঢাকা মহানগর পশ্চিম শাখার শাহআলী থানার ৯৩ নম্বর ওয়ার্ড ছাত্রশিবিরের সভাপতি ছিলেন। এদিকে চলমান অভিযানে রবিবার ভোরে চাঁদাবাজির অভিযোগের ভিত্তিতে সন্দেহভাজন হিসেবে বনানী থেকে আনিসুর রহমান, মোহাব্বত হোসেন সবুজ ও সোহেল শেখ নামে তিনজনকে আটক করেছে পুলিশ। গ্রেফতারকৃতদের মধ্যে আনিসুর রহমান বনানী থানা ছাত্রলীগের সভাপতি এবং অন্যরা ছাত্রলীগের সমর্থক বলে প্রাথমিকভাবে জানা গেছে।

এদিকে রবিবার মতিঝিলের বকচত্বরে বোমাবাজ, অগ্নিসংযোগকারী, ভাংচুরকারীসহ নাশকতাকারীদের ধরিয়ে দিতে জনসাধারণের সহায়তা চেয়ে সচেতনতামূলক লিফলেট বিতরণ ও নাশকতাকারীদের সম্পকে তথ্য প্রদানকারীদের পুরস্কার হিসেবে নগদ টাকা দেয়ার আগাম ঘোষণার কথা আবার স্মরণ করিয়ে দেন ডিএমপি কমিশনার মোঃ আছাদুজ্জামান মিয়া। কমিশনার বলেন, অগ্নিসংযোগ ও ভাংচুরের তথ্য প্রদানকারীদের একলাখ টাকা দেয়া হবে। আর ককটেল বা হাতবোমা অথবা পেট্রোলবোমা নিক্ষেপকালে গ্রেফতারে সহায়তা করলে ৫০ হাজার টাকা আর পেট্রোলবোমা বা হাতবোমা অথবা ককটেল প্রস্তুতকারীদের সম্পর্কে তথ্য দিলে ২৫ হাজার টাকা বিশেষ করে তথ্যদাতার পরিচয় গোপন রাখা হবে। তিনি বলেন, রাজধানীতে হরতাল-অবরোধে প্রতিদিন গড়ে ৩০ লাখ যানবাহন চলাচল করে।

সাভার ॥ শনিবার রাতে ঢাকা-আরিচা মহাসড়কের সাভারের উলাইলে দূরপাল্লার একটি যাত্রীবাহী বাসে আগুন দেয় অবরোধকারীরা। এতে দুইজন দগ্ধ হন।

যশোর ॥ যশোর-সাতক্ষীরা-বেনাপোল মহাসড়কের যশোর সদর উপজেলার নতুনহাট এলাকায় চালবাহী একটি ট্রাক, একটি প্রাইভেটকার, জেলার ঝিকরগাছায় একটি ধানের চাতাল ও চালমিলসহ কয়েকটি বাড়িতে ভাংচুরের পর পেট্রোল বোমা মেরে আগুন ধরিয়ে দেয় অবরোধকারীরা। এতে অন্তত ৫ জন দগ্ধ হন।

দিনাজপুর ॥ জেলা শহরের মডার্ন মোড়ে রবিবার দুপুরে অবরোধ হরতালে ক্ষতিগ্রস্ত কৃষকদের ক্ষতিপূরণের দাবিতে মানববন্ধন ও সমাবেশ কর্মসূচী পালিত হয়েছে। বাংলাদেশ কৃষক সমিতি আয়োজিত ওই কর্মসূচী পালিত হয়। বাংলাদেশ কৃষক সমিতি দিনাজপুর জেলা কমিটির সভাপতি বদিউজ্জামান বাদলের সভাপতিত্বে কর্মসূচী পালিত হয়।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া ॥ শহরের বিভিন্ন জায়গায় প্রচুর ককটেলের বিস্ফোরণ ঘটে। ভাংচুর করা হয় ১৫টি যানবাহন। রবিবার সকালে ঢাকাগামী সুবর্ণ এক্সপ্রেস ট্রেনটি রেলগেট এলাকায় পৌঁছলে হরতালকারীরা ট্রেনে কয়েকটি ককটেল ছুড়ে মারে।

বগুড়া ॥ জেলার প্রথম বাইপাসের নিশিন্দারা এলাকায় একটি আলু বোঝাই ট্রাক, চারমাথা সংলগ্ন এলাকায় ২টি ট্রাক ও শহরের ঠনঠনিয়া এলাকায় একটি সিএনজি চালিত অটোরিক্সায় পেট্রোলবোমা হামলা চালিয়ে আগুন ধরিয়ে দেয় অবরোধকারীরা। এতে অন্তত ৩ জন দগ্ধ হন।

কিশোরগঞ্জ ॥ জেলার করিমগঞ্জ উপজেলায় স্ট্যান্ডে পার্কিং করা একটি মাইক্রোবাসে পেট্রোল দিয়ে আগুনে ধরিয়ে দিয়েছে অবরোধকারীরা। এ সময় কয়েকটি মাইক্রোবাস ভাংচুর করে।

সিলেট ॥ রবিবার বিকেলে নগরীর সাগরদিঘীর পাড় এলাকায় পুলিশের উপর জামায়াত-শিবির পর পর চারটি বোমা হামলা চালায়। এ সময় ব্যাপক সংঘর্ষ হয়। সংঘর্ষে অন্তত ৫ জন আহত হয়। পুলিশ কয়েকজনকে আটক করেছে।

হবিগঞ্জ ॥ জেলা শহরের বিভিন্ন জায়গায় বিচ্ছিন্নভাবে একটি ট্রাক, একটি প্রাইভেটকার ও ইট বোঝাই একটি ট্রাক্টর ভাংচুর করে করে তাতে আগুন ধরিয়ে দেয় অবরোধকারীরা।

লক্ষ্মীপুর ॥ জেলার রায়পুরে রবিবার দুপুরে সোলাখালি ব্রিজ ও সিকদার রাস্তার মাথা এলাকায় অন্তত ৮টি অটোরিক্সা ও কয়েকটি মোটরসাইকেল ভাংচুর করে। আর শনিবার রাতে রায়পুর-চাঁদপুর সড়কের খাইল্যারপুল এলাকায় পেট্রোল ঢেলে দুটি অটোরিক্সা পুড়িয়ে দেয় অবরোধকারীরা।

প্রকাশিত : ২ ফেব্রুয়ারী ২০১৫

০২/০২/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

প্রথম পাতা



ব্রেকিং নিউজ: