রৌদ্রজ্জ্বল, তাপমাত্রা ২৩.৯ °C
 
৯ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, শুক্রবার, ঢাকা, বাংলাদেশ

মুন্সীগঞ্জে পরীক্ষার্থীদের বাড়তি টাকা ফেরত দাবিতে বিক্ষোভ

প্রকাশিত : ৩০ জানুয়ারী ২০১৫

স্টাফ রিপোর্টার, মুন্সীগঞ্জ ॥ উচ্চ আদালতের নির্দেশ থাকা সত্ত্বেও মুন্সীগঞ্জের শ্রীনগর উপজেলার কুকুটিয়া ইউনিয়নের রুসদী উচ্চ বিদ্যালয়ের এ বছরের এসএসসি পরীক্ষার্থীদের কাছ থেকে নেয়া ফরম ফিলাপের অতিরিক্ত টাকা ফেরত দেয়া হয়নি। টাকা ফেরত না দেয়ায় ক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীরা বিদ্যালয়ে বিক্ষোভ প্রদর্শন ও ভাংচুর করেছে।

জানা গেছে, শ্রীনগর উপজেলার কুকুটিয়া ইউনিয়নে অবস্থিত রুসদী উচ্চ বিদ্যালয় থেকে এ বছর এসএসসি পরীক্ষা দেয়ার জন্য ১২৬ ছাত্রছাত্রী ফরম ফিলাপ করেছে। এই ছাত্রছাত্রীরা ফরম ফিলাপের জন্য সাড়ে পাঁচ হাজার টাকা প্রদান করেছে। অতিরিক্ত টাকা প্রদানের ক্ষেত্রে দরিদ্র শিক্ষার্থীরাও রক্ষা পায়নি। ফরম ফিলাপের জন্য সরকার নির্ধারিত টাকা হচ্ছে মোট এক হাজার ৪শ’।

এসএসসি পরীক্ষার্থী সায়মা আক্তার জানায়, ফরম ফিলাপের জন্য তাকে পাঁচ হাজার ৪শ’ টাকা প্রদান করতে হয়েছে। উচ্চ আদালতের রায়ের খবর পেয়ে ছাত্রছাত্রীরা স্কুল কর্তৃপক্ষের কাছে অতিরিক্ত টাকা ফেরত চাইলে তারা টালবাহানা শুরু করে। কয়েকদিন আগে তারা মাত্র দেড় হাজার টাকা তাকে ফেরত দিয়েছে। আরেক পরীক্ষার্থী ইলমাম আক্তারের বাবা আব্দুর রশীদ খান জানান, তার মেয়েকে ফরম ফিলাপের জন্য পাঁচ হাজার ৪শ’ টাকা প্রদান করতে হয়েছে। তাকে মাত্র দেড় হাজার টাকা ফেরত দেয়া হয়। এমন আরও একাধিক শিক্ষার্থী ও অভিভাবকের সঙ্গে কথা বললে তারা একই অভিযোগ করেন। এদিকে ফরম ফিলাপের অতিরিক্ত টাকা গ্রহণ ছাড়াও অভিভাবকরা আরও অভিযোগ করেন, ছেলে-মেয়েদের কাছ থেকে সাড়ে পাঁচ হাজারের বাইরেও তারা কোচিং ক্লাসের কথা বলে আরও ৫শ’ টাকা করে নিয়েছেন। এক বিষয়ে অকৃতকার্য হয়েছে এমন ছাত্রছাত্রীদের কাছ থেকে অতিরিক্ত আরও এক হাজার টাকা করে নিয়েছেন।

তবে অতিরিক্ত টাকা গ্রহণের বিষয়টি স্বীকার করে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোঃ মিজানুর রহমান জানিয়েছেন, ব্যবস্থাপনা কমিটির সিদ্ধান্তের আলোকে এই টাকা গ্রহণ করা হয়েছে। তবে যাদের কাছ থেকে সাড়ে পাঁচ হাজার টাকা করে নেয়া হয়েছে তাদের দেড় হাজার টাকা করে ফেরত দেয়া হয়েছে। তবে ব্যবস্থাপনা কমিটির সভাপতি জাকির হোসেন দাবি করেন, সরকার নির্ধারিত টাকা ছাড়া বাকি সম্পূর্ণ টাকা তারা ফেরত দিয়েছেন। তবে কত টাকা ফেরত দিয়েছেন সেটা তিনি বলতে পারেননি।

পটিয়া ভূমি অফিসে হঠাৎ প্রতিমন্ত্রী ॥ দুই কর্মকর্তা বদলি

নিজস্ব সংবাদদাতা,পটিয়া, ২৯ জানুয়ারি ॥ চট্টগ্রামের পটিয়া উপজেলা ভূমি অফিসে ভূমি প্রতিমন্ত্রী সাইফুজ্জামান চৌধুরী জাবেদ আকস্মিক পরিদর্শনে এসে দুই ভূমি কর্মকর্তাকে বদলির নির্দেশ দিয়েছেন। ওই ভূমি কর্মকর্তারা হলেন, কোরবান আলী ও সাজ্জাদ শাহ আমজাদ। বৃহস্পতিবার দুপুর ১২টার দিকে ভূমি প্রতিমন্ত্রী পরিদর্শনে এসে বিভিন্ন অনিয়মের কারণে তাদের দুইজনকে বদলির নির্দেশ দেন। এ সময় উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) মোহাম্মদ ইলিয়াছ হোসেন, উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান অধ্যাপক মোজাফফর আহমদ চৌধুরী টিপু, পৌরসভার মেয়র অধ্যাপক হারুনুর রশিদ, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্র্তা রোকেয়া পারভীন। প্রতিমন্ত্রী পৌনে এক ঘণ্টা পটিয়া ইউনিয়ন ভূমি অফিস পরিদর্শনকালে ভুক্তভোগীদের বিভিন্ন অভিযোগও শুনেন। ইউনিয়ন ভূমি অফিসের দুই ভূমি কর্মকর্তার কাছে নিয়মবহির্ভূত ৩১ হাজার ১২৮ টাকা পাওয়ার কারণে তাদের দুইজনকে বদলি করে অন্যত্র সরিয়ে নিতে অতিরিক্ত জেলা প্রশাসককে (রাজস্ব) নির্দেশ দেন। তবে পটিয়া ভূমি সহকারী কমিশনার গৌতম বাড়ৈ উপস্থিত সাংবাদিকদের জানিয়েছেন, ভূমি উন্নয়ন করের টাকা বুধবার ব্যাংকে জমা করতে না পারার এসব টাকা পাওয়া গেছে। তিনি (সহকারী কমিশনার ভূমি) যোগদানের পর থেকে পটিয়া ভূমি অফিসের অনিয়ম অনেকটা হ্রাস পেয়েছে বলে দাবি করেন।

প্রকাশিত : ৩০ জানুয়ারী ২০১৫

৩০/০১/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

দেশের খবর



ব্রেকিং নিউজ: