কুয়াশাচ্ছন্ন, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৪ ডিসেম্বর ২০১৬, ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, রবিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

সন্ত্রাস নৈরাজ্য রুখতে রাজপথে নামার আহ্বান ১৪ দলের

প্রকাশিত : ২৯ জানুয়ারী ২০১৫
  • কাল গায়েবানা জানাজা

বিশেষ প্রতিনিধি ॥ আন্দোলনের নামে বিএনপি-জামায়াতের সন্ত্রাস ও জঙ্গীবাদী কর্মকাণ্ড রুখে দিতে সর্বস্তরের জনগণের রাজপথে নামার আহ্বান জানিয়েছে আওয়ামী লীগের নেতৃত্বাধীন ১৪ দলীয় জোট। বুধবার দুপুরে ধানমণ্ডির আওয়ামী লীগ সভানেত্রীর রাজনৈতিক কার্যালয়ে কেন্দ্রীয় ১৪ দলের সঙ্গে শ্রমিক, কর্মচারী, পেশাজীবী ও মুক্তিযোদ্ধা সমন্বয় পরিষদের এক মতবিনিময় সভায় এ আহ্বান জানিয়ে বলা হয়, শুধু প্রশাসন দিয়ে বিএনপি-জামায়াতের নাশকতা মোকাবেলা করা যাবে না। জনগণকে সঙ্গে নিয়ে সবাইকে মাঠে নামতে হবে। জনগণ মাঠে নামলে অপশক্তির অপতৎপরতা বন্ধ হয়ে যাবে। জনগণকে মাঠে নামানোর উদ্যোগ নেয়ার জন্য ১৪ দলীয় জোটের নেতৃবৃন্দের পাশাপাশি শ্রমিক, কর্মচারী, পেশাজীবী ও মুক্তিযোদ্ধা সমন্বয় পরিষদের নেতারা অঙ্গীকার ব্যক্ত করেন।

সভা শেষে কেন্দ্রীয় ১৪ দলের মুখপাত্র, আওয়ামী লীগের সভাপতিম-লীর সদস্য এবং স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম প্রেস ব্রিফিংয়ে বলেন, বিএনপি-জামায়াতের সন্ত্রাস ও পেট্রোল বোমায় নিহতদের আত্মার মাগফেরাত ও অগ্নিদগ্ধদের আশু রোগমুক্তি কামনায় শুক্রবার রাজধানী ঢাকা মহানগরসহ সারাদেশের জেলা-উপজেলায় দোয়া, মিলাদ ও গায়েবানা জানাজার কর্মসূচী পালন করবে ১৪ দল। একই সঙ্গে নাশকতার প্রতিবাদে ওই দিন বিকেল আড়াইটায় ঐতিহাসিক সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে শ্রমিক, কর্মচারী, পেশাজীবী ও মুক্তিযোদ্ধা সমন্বয় পরিষদের সমাবেশের সঙ্গে একাত্মতা ঘোষণা করেছে ক্ষমতাসীন এ জোট।

মোহাম্মদ নাসিম বলেন, কেন্দ্রীয় ১৪ দলের উদ্যোগে ঢাকায় জাতীয় মসজিদ বায়তুল মোকাররমের দক্ষিণ গেটসহ সারাদেশে শুক্রবার বাদ জুমা দোয়া, মিলাদ ও গায়েবানা জানাজা অনুষ্ঠিত হবে এবং দেশের প্রতিটি মন্দির, গির্জা ও প্যাগোডাতেও বিশেষ প্রার্থনা অনুষ্ঠিত হবে। গায়েবানা জানাজা শেষে ১৪ দলের নেতাকর্মীরা সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে শ্রমিক, কর্মচারী, পেশাজীবী ও মুক্তিযোদ্ধা সমন্বয় পরিষদের সমাবেশ কর্মসূচীতে একাত্মতা প্রকাশ করে অংশ নেবেন।

তিনি বলেন, নাশকতা মোকাবেলায় প্রশাসন কাজ করছে, তবে প্রশাসনকে আরও কঠোর হতে হবে। মনে রাখতে হবে শান্তির প্রয়োজনে শক্তি প্রয়োগ জরুরী। তিনি বলেন, ইতোমধ্যে চোরাগোপ্তা হামলা কমে এসেছে। এই যুদ্ধে কোনদিন সন্ত্রাসীরা জয়লাভ করতে পারবে না। অবশ্যই সত্যের জয় হবে। খালেদা জিয়াকে উদ্দেশে করে তিনি বলেন, মঙ্গলবার আমরা একজন ব্যথাতুর মায়ের মুখ দেখেছি। প্রধানমন্ত্রী তাঁকে সমবেদনা জানাতে ছুটে গিয়েছিলেন। একজন মা গিয়েছিলেন আরেকজন মায়ের কাছে। কিন্তু তাঁর (প্রধানমন্ত্রীর) সঙ্গে অসৌজন্যমূলক আচরণ করা হয়েছে। ১৪ দল এর তীব্র নিন্দা জানিয়েছে। আগামী ২ ফেব্রুয়ারি থেকে শুরু হতে যাওয়া এসএসসি পরীক্ষার জন্য শিক্ষামন্ত্রী ও অভিভাবকদের দুশ্চিন্তা না করার আহ্বান জানিয়ে মোহাম্মদ নাসিম বলেন, পরীক্ষা সঠিক সময়ে হবে। প্রশাসন, জনগণ ও ১৪ দল আছে। এ যুদ্ধে সন্ত্রাসীদের নয়, সাধারণ মানুষের জয় হবে। শুক্রবার সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের সমাবেশে সফর করার জন্য কেন্দ্রীয় ১৪ দলসহ আওয়ামী লীগের সহযোগী, ভ্রাতৃপ্রতিম সংগঠন ও সর্বস্তরের জনগণের প্রতি আহ্বান জানান তিনি।

সূত্র জানায়, বৈঠকে ১৪ দলের নেতারা গার্মেন্টস শ্রমিকসহ সর্বস্তরের মানুষের নৈরাজ্যের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানোর আহ্বান জানিয়ে বলেন, এমন অস্বাভাবিক পরিস্থিতি চলতে থাকলে ক্ষতি সবার। এক পর্যায়ে তো গার্মেন্টস মালিকরা বেতন দিতে পারবে না। এ সময় গার্মেন্টস শ্রমিক ঐক্য পরিষদের নেতাকর্মীরা নৈরাজ্যের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানোর অঙ্গীকার ব্যক্ত করেন।

হত্যা বন্ধ না করলে খালেদা জিয়া মানবতাবিরোধী অপরাধী হবেন- তোফায়েল ॥ বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াকে উদ্দেশ করে আওয়ামী লীগের প্রবীণ নেতা ও বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ বলেছেন, আপনি যদি পেট্রোল বোমা মেরে মানুষ হত্যা বন্ধ না করেন, তাহলে জাতিসংঘের রুল অনুযায়ী আপনাকে মানবতাবিরোধী অপরাধে অপরাধী করা হবে। তিনি বলেন, খালেদা ছেলের স্বাভাবিক মৃত্যু হয়েছে। আর এ শোকে খালেদাকে ইনজেকশন দিয়ে ঘুম পারিয়ে রাখা হয়েছিল। আমার দৃঢ় বিশ্বাস এবার খালেদা জিয়ার উপলব্ধি হবে এবং অন্য মায়ের কথা চিন্তা করে তিনি মানুষ হত্যা বন্ধ করবেন।

বুধবার বিকেলে রাজধানীর বঙ্গবন্ধু এভিনিউয়ে জাতীয় শ্রমিক লীগ আয়োজিত ‘বিএনপি নেত্রী খালেদা জিয়ার মানুষ পুড়িয়ে হত্যা, জ্বালাও-পোড়াও ও শিল্প ধ্বংসের ষড়যন্ত্রের প্রতিবাদে’ শ্রমিক সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখতে গিয়ে তোফায়েল আহমেদ আরও বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সমস্ত কিছু ভুলে আপনার (খালেদা জিয়া) ছেলের মৃত্যুতে সমবেদনা জানাতে গিয়েছিলেন। কিন্তু আপনি দরজা খুললেন না। মানুষ ভেবেছিল, অবরোধ প্রত্যাহার হবে। কিন্তু আপনি তা করলেন না। আপনার ছেলের নামাজে জানাজায় গাড়ি নিয়ে বিএনপি-জামায়াতের নেতারা এসেছেন। তাদের জন্য অবরোধ ছিল না। আপনার অবরোধ শুধু শ্রমিক ও সাধারণ মানুষের জন্য।

খালেদা জিয়াকে উদ্দেশ করে তিনি আরও বলেন, অবরোধে যারা নিহত হয়েছেন তাদের মধ্যে ১৮ জনই শ্রমিক। তারা তো কোন রাজনীতি করে না? আর এসব নাশকতা-সহিংসতা কোন রাজনীতি না। ৫ জানুয়ারির নির্বাচন বানচাল করতে চেয়েছিলেন। পারেননি, পরাজিত হয়েছেন। এবারও পরাজিত হবেন, হবেন, হবেনই।

নাশকতাকারীদের দেখামাত্র গুলি করুন- মুক্তিযুদ্ধ মন্ত্রী ॥ মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক বিএনপি-জামায়াত জোটের ডাকা অনির্দিষ্টকালের অবরোধ ও হরতালে নাশকতাকারীদের দেখা মাত্রই গুলি করার জন্য আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন। বুধবার জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে ‘বোমা মেরে মানুষ হত্যা ও খালেদা জিয়ার প্রতিহিংসার রাজনীতি বন্ধের’ দাবিতে আয়োজিত এক সমাবেশে তিনি এ কথা বলেন।

মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী বলেন, মানি লন্ডারিংয়ের দায়ে অভিযুক্ত কোকোর জন্য তার মা খালেদা আর্তনাদ করছেন, আর তিনি যে অবরোধ-হরতালের নামে নিরীহ মানুষগুলো পুড়িয়ে মারছেন, সেই সব সন্তানহারা মায়েদের আর্তনাদ কে শুনবে? তিনি বলেন, খালেদা জিয়া মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসী নয়। আইএসআইয়ের দালাল হয়ে বাংলাদেশকে পাকিস্তান সৃষ্টি করতেই তাঁর এই অবরোধ। বাংলাদেশ যখন অর্থনীতিতে সমৃদ্ধ হয়ে বিশ্বের দরবারে মাথা উঁচু করে দাঁড়াচ্ছে, তখন অর্থনীতিকে একমাত্র বাধাগ্রস্ত করছে এই অবরোধ। তিনি বলেন, মানুষ হত্যা করা খালেদা জিয়ার নেশায় পরিণত হয়েছে। আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর কাছে আমার আহ্বান- নাশকতাকারীদের দেখা মাত্রই যেন গুলি করা হয়।

অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন সাবেক ছাত্রনেতা এ্যাডভোকেট বলরাম পোদ্দার, বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোটের সাধারণ সম্পাদক অরুন সরকার রানা প্রমুখ।

প্রকাশিত : ২৯ জানুয়ারী ২০১৫

২৯/০১/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

প্রথম পাতা



ব্রেকিং নিউজ: