মূলত পরিষ্কার, তাপমাত্রা ২১.১ °C
 
১০ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, শনিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ

যুক্তরাষ্ট্রে ভয়াবহ তুষারঝড়

প্রকাশিত : ২৮ জানুয়ারী ২০১৫
  • নিউইয়র্কসহ ছয়টি অঙ্গরাজ্যে জরুরী অবস্থা, সাত হাজারের বেশি ফ্লাইট বাতিল

যুক্তরাষ্ট্রের উত্তর-পূর্বাঞ্চলে ভয়াবহ তুষারঝড় আঘাত হেনেছে। এতে দেশটির ২০ শতাংশ মানুষ আক্রান্ত হয়েছে। সোমবার সকাল থেকে শুরু হওয়া তুষারঝড়ে নিউইয়র্কসহ ছয়টি অঙ্গরাজ্যে জরুরী অবস্থা ঘোষণা করা হয়েছে। ঝড়ে বিমানের সাত হাজারের বেশি ফ্লাইট বাতিল করা হয়েছে, যা রেকর্ড। বন্ধ রয়েছে স্কুল, ব্যবসাপ্রতিষ্ঠান, গাড়ি চলাচলের রাস্তা ও সাবওয়ে ট্রেন। মার্কিন আবহওয়া দফতর এই তুষারঝড়কে বিগত সময়ের তুলনায় সবচেয়ে বড় তুষারঝড় হিসেবে উল্লেখ করেছে। খবর বিবিসি ও টেলিগ্রাফের।

যুক্তরাষ্ট্রের ন্যাশনাল ওয়েদার সার্ভিস (এনডব্লিউএস) হুঁশিয়ার করে বলেছে, এবারের ভয়াবহ তুষারপাত নতুন রেকর্ড সৃষ্টি করেছে। তুষারঝড়ে বিভিন্ন এলাকায় তিন ফুট (প্রায় এক মিটার) বরফ জমেছে। এর আগে ২০০৬ সালে সর্বোচ্চ ২৬ দশমিক ৯ ইঞ্চি বরফ পড়েছিল। শুধু তুষারপাতই নয়, এর সঙ্গে ঘণ্টায় ৬০ মাইল বেগে দমকা বাতাস ধেয়ে আসছে শীতকালীন ঝড় জুনো। এজন্য তুষারঝড়ের সতর্কতার সঙ্গে বন্যার সতর্কতা জারি করা হয়েছে। নিউইয়র্ক, নিউজার্সি, কানেটিকাট, রোডস আইল্যান্ড, ম্যাসাচুসেটস ও নিউহ্যাম্পশায়ার অঙ্গরাজ্যে জরুরী অবস্থা ঘোষণা করা হয়েছে। ম্যাসাচুসেটস, ব্রুকলিন শহরে অধিকাংশ দোকান বন্ধ রয়েছে। নিউইয়র্কের মেট্রোপলিটন অঞ্চলে ভূগর্ভ পথ, লং আইল্যান্ডের রেলপথেও রয়েছে পুরু বরফের স্তর। বাতিল করা হয়েছে সোমবার রাতের ব্রডওয়ে পারফরম্যান্স, নিউইয়র্ক নিক ও ব্রুকলিন নেটের হোম গেম, বন্ধ রয়েছে নিউইয়র্কের চিড়িয়াখানাও। জাতিসংঘ সদর দফতর মঙ্গলবার ছুটি ঘোষণা করা হয়েছে। এছাড়া ছুটি রয়েছে হার্ভার্ড ইউনিভার্সিটি ও ম্যাসাচুসেটস ইনস্টিটিউট অব টেকনোলজিও। সোমবার সকাল থেকে স্কুল ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠানগুলো বন্ধ রাখা হয়েছে এবং স্কুলগুলো বুধবারের আগে খোলার সম্ভাবনা নেই। নিউইয়র্ক শহরের দক্ষিণের ১৩টি কাউন্টিতে জরুরীকালীন ছাড়া যানবাহন চলাচল নিষিদ্ধ ঘোষণা করেছেন নিউইয়র্কের গবর্নর এ্যান্ড্রু কুওমো। এর মধ্যে রয়েছে ওয়েস্টচেস্টার শহরতলী ও লং আইল্যান্ডও। তিনি বলেছেন, সোমবার রাত ১১টা থেকে নিউইয়র্ক নগরের যোগাযোগ ব্যবস্থা বন্ধ রাখা হয়েছে। এই নগরের ১৩টি কাউন্টিতে রাস্তার যান চলাচল অপরাধমূলক কাজ হিসেবে ঘোষণা করা হয়। যারা এই নির্দেশ ভঙ্গ করবে তাদের ৩০০ ডলার জরিমানা করা হবে। তিনি জরুরী অবস্থা জারির পাশাপাশি ন্যাশনাল গার্ডের সদস্য মোতায়েন করেছেন। তিনি আরও বলেন, মার্কিন ইতিহাসে এটিই ভয়ঙ্করতম তুষারঝড়। ১৮৭২ ও ২০০৬ সালের তুষারঝড়কেও ছাপিয়ে গেছে এবারের তুষারঝড়। এখনও পর্যন্ত নিউইয়র্কের ইতিহাসে রেকর্ড তুষারপাত হয়েছিল ২০০৬ সালের ১১ ও ১২ ফেব্রুয়ারি। ২৬ দশমিক ৯ ইঞ্চি (৬৮ সেমি) বরফের স্তূপে চাপা পড়ে গিয়েছিল শহরের এমার্জেন্সি ম্যানেজমেন্ট অফিস।

নিউইয়র্কের মেয়র ও পুলিশ কমিশনার এক সংবাদ সম্মেলনে দুর্যোগ মোকাবেলার প্রস্তুতির কথা নাগরিকদের জানান। জরুরী প্রয়োজন ছাড়া কাউকে বাইরে না যেতে পরামর্শ দেয়া হয়েছে। মেয়র বিল ডি ব্লাসিও বলেছেন, এই নির্দেশকে জরুরী হিসেবে বিবেচনা করুন, এটি স্বাভাবিক পরিস্থিতি নয়। এ ঝড়কে ছোট করে দেখবেন না। পরিস্থিতি মোকাবেলার জন্য নিয়ন্ত্রণ কক্ষ খোলা হয়েছে। বরফ সরানোর জন্য দুই হাজার ৩০০ গাড়ি ও পরিচ্ছন্নতা কর্মী প্রস্তুত রাখা হয়েছে। শুধু নিউইয়র্কের বরফ গলানোর জন্য এক লাখ ২৬ হাজার মেট্রিক টন লবণ মজুত রাখা হয়েছে।

প্রকাশিত : ২৮ জানুয়ারী ২০১৫

২৮/০১/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


ব্রেকিং নিউজ: