মূলত পরিষ্কার, তাপমাত্রা ২১.১ °C
 
৯ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, শুক্রবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

অস্ট্রেলিয়ার বর্ষসেরা স্টিভেন স্মিথ

প্রকাশিত : ২৮ জানুয়ারী ২০১৫

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ বছর জুড়ে দুরন্ত ব্যাটিং, সঙ্গে নেতৃত্বের অভিষেকে আলোড়ন তোলার পর বিষয়টা অনুমিতই ছিল। এ বছর অস্ট্রেলিয়ার বর্ষসেরা ক্রিকেটার হতে যাচ্ছেন তরুণ স্টিভেন স্মিথ। সোমবার জাঁকজমকপূর্ণ অনুষ্ঠানে ঘোষিত হলো তারই নাম। দেশটির ২০১৪ সালের বর্ষসেরা হিসেবে ‘বোর্ডার গাভাস্কার ট্রফি’ জিতে নিলেন বেবি ফেসের অধিকারী অসম্ভব প্রতিভাবান এই ক্রিকেটার। ২৪৩ ভোট পেয়ে ডেভিড ওয়ার্নার (১৭৫) ও আইসিসির বর্ষসেরা তারকা মিচেল জনসনকে (১২৬) পেছনে ফেলেন স্মিথ। দেশসেরার পাশাপাশি ‘টেস্ট প্লেয়ার অব দ্য ইয়ার’ এবং ‘ওয়ানডে প্লেয়ার অব দ্য ইয়ারের’ পুরস্কারও বগলদাবা করেন তিনি! গত দশ বছর ধরে প্রবর্তিত আয়োজনে স্মিথ তৃতীয় ক্রিকেটার যিনি একইসঙ্গে তিন তিনটি বিভাগে বাজিমাত করলেন, অপর দু’জন হলেন সাবেক অধিনায়ক রিকি পন্টিং (২০০৭) ও শেন ওয়াটসন (২০১১)।

সাম্প্রতিক ব্যাট হাতে অবিশ্বাস্য পারফর্মেন্স স্মিথের। ২০১৪ সালে ৯ টেস্টের ১৭ ইনিংসে ৮২ গড়ে ১১৪৬ রান সংগ্রহ করেন স্মিথ। সেঞ্চুরি ৫ ও হাফ সেঞ্চুরি ৪টি। সে ধারা অব্যাহত থাকে ঘরের মাটিতে ভারতের বিপক্ষে সিরিজেও। নিজের শেষ ২২ ইনিংসে ৬৮ গড়ে মোট রান ১৭৫৬, সেঞ্চুরি ৭ ও হাফ সেঞ্চুরি ৮টি! তার ওপর ইনজুরিগ্রস্ত মাইকেল ক্লার্কের অনুপস্থিতিতে সামনে থেকে নেতৃত্ব দিয়ে হন ম্যাচসেরা। সিরিজে চার টেস্টে চারটিতেই সেঞ্চুরি হাঁকান! চলমান কার্লটন মিড ত্রিদেশীয় সিরিজে ওয়ানডে অধিনায়ক হিসেবে অভিষেকেও সেঞ্চুরি উপহার দিয়ে হন ম্যাচসেরা। অস্ট্রেলিয়ার মতো একটি দলের ভবিষ্যত অধিনায়কের রেসে ভালমতোই এগিয়ে তরুণ স্টিভেন স্মিথ। ২৬ টেস্টে ৫২৪ গড়ে তার মোট রান ২৩০৪, সেঞ্চুরি ৮ ও হাফ সেঞ্চুর ১০টি। ৪৯ ওয়ানডেতে ৩৬ গড়ে রান ১১০৭, সেঞ্চুরি ও হাফ সেঞ্চুরি ৩টি করে।

‘অনুভূতি ভাষায় প্রকাশের নয়। এটি অনেক বড় সম্মানের। আমার আগে কিংবদন্তি অস্ট্রেলিয়ানরাই কেবল একসঙ্গে তিন তিনটি বিভাগে সেরা হতে পেরেছেন। সত্যি ভাল লাগছে।’ তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়ায় বলেন স্মিথ। এর আগে অস্ট্রেলিয়ান ক্রিকেটের গৌরবময় এই ‘এ্যালান বোর্ডার মেডেল’ জিতেছিলেন স্টিভ ওয়াহ, গ্লেন ম্যাকগ্রা, এ্যাডাম গিলক্রিস্ট ও মাইকেল ক্লার্ক। মেলবোর্নের জাঁকজমকপূর্ণ অনুষ্ঠানে অকাল প্রয়াত ফিলিপ হিউজেসকে স্মরণ করা হয়। মজার বিষয় হিউজেস-ঘাতক শন এ্যাবোট ‘ইয়াং ক্রিকেটার অব দ্য ইয়ার’ নির্বাচিত হন! গত নবেম্বরে যার একটি বাউন্সারে মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়েন জাতীয় তারকা হিউজেস। এছাড়া টি২০’র বর্ষসেরা হয়েছেন গ্লেন ম্যাক্সওয়েল, ঘরোয়া ক্রিকেটে জেসন বেহারেনড্রফ এবং প্রমীলা বিভাগে মেগ ল্যানিং।

একই অনুষ্ঠানে ৪০ ও ৪১তম ক্রিকেটার হিসেবে অস্ট্রেলিয়ান ক্রিকেটের ‘হল অব ফেমে’ জায়গা করে নেন সাবেক তারকা গিলক্রিস্ট এবং সাবেক অধিনায়ক ও নির্বাচক জ্যাক রাইডার। হল অব ফেমের নির্বাচক প্যানেলের প্রধান ডেভিড ক্রো বলেন, ‘হিউজেসের দুঃখ ভোলার নয়। আজ আমরা তাকে স্মরণ করছি। একই সঙ্গে মাঠে এ মৌসুমটা আমাদের দারুণ কেটেছে, যেখানে সামনে থেকে আলো ছড়িয়েছে স্টিভেন স্মিথ, ডেভিড ওয়ার্নার ও মিচেল জনসনরা। আর গিলির (গিলক্রিস্ট) কথা কী বলব, আধুনিক অস্ট্রেলিয়ান ক্রিকেটের চিত্তাকর্ষক পারফর্মার ছিল সে। মাঠ ও মাঠের বাইরে রাইডারও অনন্য।’

প্রকাশিত : ২৮ জানুয়ারী ২০১৫

২৮/০১/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

খেলার খবর



ব্রেকিং নিউজ: