মূলত পরিষ্কার, তাপমাত্রা ২১.১ °C
 
৯ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, শুক্রবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

ফাইনালের আশা বেঁচে থাকল ভারতের

প্রকাশিত : ২৭ জানুয়ারী ২০১৫
  • বৃষ্টিতে পরিত্যক্ত অস্ট্রেলিয়া-ভারত ফিরতি ম্যাচ, ২ পয়েন্ট নিয়ে রেসে বিশ্বচ্যাম্পিয়নরা, শেষ ম্যাচে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে জিততেই হবে ধোনিদের

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ কার্লটন মিড ত্রিদেশীয় ওয়ানডে সিরিজে সোমবার অস্ট্রেলিয়া-ভারত ম্যাচ বৃষ্টিতে পরিত্যক্ত হয়েছে। ফলে ২ পয়েন্ট নিয়ে ফাইনালের রেসে টিকে থাকল বিশ্বচ্যাম্পিয়নরা! টানা তিন জয়ে ইতোমধ্যে ফাইনাল নিশ্চিত করেছে অস্ট্রেলিয়া। ৪ খেলায় ৩ জয় এই কালকের ম্যাচের পয়েন্ট ভাগাভাগি করে অসিদের পয়েন্ট সর্বোচ্চ ১৫। ৩ খেলায় ২ হারের বিপরীতে ১ জয়ে বোনাসহ ৫ পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে অপর দল ইংল্যান্ড। শুক্রবার ইংলিশদের বিপক্ষে লীগ পর্বের শেষ ম্যাচে জিতলেই ফাইনালে উঠবে ভারত, টাই বা পরিত্যক্ত হলে চলবে না! তার চেয়ে বড়, সিডনিতে এদিন অসিদের কাছে হারলে এক ম্যাচ বাকি থাকতেই স্বপ্ন শেষ হয়ে যেত মহেন্দ্র সিং ধোনিদের।

এমন সমীকরণে জিততে মরিয়া ছিল বিশ্বচ্যাম্পিয়নরা। ইনজুরি কাটিয়ে অলরাউন্ডার রবিন্দ্র জাদেজা ও পেসার ইশান্ত শর্মার একাদশে ফেরা সফরকারীদের চনমনে করেও তুলেছিল। যদিও টসে হেরে ব্যাটিং নেমে শুরুটা আশাপ্রদ ছিল না। ৪৪ ওভারে নেমে আসা ম্যাচে ১৬ ওভারে ৬৯ রান তুলতে শিখর ধাওয়ান (৮) ও আমাবাতি রাইডুর (২৩) উইকেট হারায় ভারত। খেলা পরিত্যক্ত হওয়ার সময় ওপেনার অজিঙ্কা রাহানে ২৮ ও বড় তারকা বিরাট কোহলি ৩ রান নিয়ে ব্যাট করছিলেন। অসিদের হয়ে দুটি উইকেট ভাগাভাগি করেন দুই পেসার মিচেল স্টার্ক ও মিচেল মার্শ। অস্ট্রেলিয়া সফরে ভারতের অবস্থা মোটেই সুবিধার নয়। চার টেস্টের সিরিজ ২-০তে হারের পর ত্রিদেশীয় এই সিরিজে এখনও পর্যন্ত জয় নেই ক্রিকেট-মোড়লদের। অথচ বিশ্বকাপ ট্রফি ধরে রাখার মিশনে নামার আগে ধোনিদের এটিই শেষ প্রস্তুতির সুযোগ।

সে সুযোগটা কাজে লাগাতে পারল কই মাথা মোটা ভারতীয়রা? ৮ উইকেটে ২৬৭ রান করেও বোলারদের ব্যর্থতায় নিজেদের প্রথম ম্যাচে এই অস্ট্রেলিয়ার কাছে ৪ উইকেটে হার। স্বাগতিক অসিরা অন্যতম ফেবারিট, ব্যাটে-বলে দারুণ ছন্দে তারা। অনেকে তাই ভেবেছিলেন ঘরে-বাইরে সমস্যায় জর্জরিত ইংল্যান্ডের বিপক্ষেই ঘুরে দাঁড়াবে ধোনির দল। কিন্তু সেখানে অত্যন্ত হতাশ করে ধোনি এন্ড কোং। ৩৯.৩ ওভারে মাত্র ১৫৩ রানে গুটিয়ে গিয়ে ৯ উইকেটের বড় ব্যবধানে মাথা নোয়ায় তারা। বিশ্বকাপের আগে এমন একটি বড় সিরিজের ফাইনালে রেসে টিকে থাকতে অবশ্য মরিয়া ছিল ভারত। সিডনি ম্যাচের আগের দিন ড্রেসিং রুমে সতীর্থদের উদ্দেশে অধিনায়ক ধোনি যেমন বলেন, ‘তোমরা এই ম্যাচটাকেই বিশ্বকাপের কোয়ার্টার ফাইনাল মনে কর! ধর যে হারলে বিশ্বকাপ থেকে ছিটকে পড়তে হবে, সুতরাং কী করণীয় সেটি আর না-ই বা বললাম।’

বিশ্বকাপের ঠিক আগ মুহূর্তে এই মারকাটারি সিরিজ। প্রশ্ন উঠছে, বিশ্বকাপ যখন কড়া নাড়ছে, তখন ভারত আস্থার একটা একাদশ খুঁজে পেল কোথায়? ধোনির উত্তর, ‘আমরা তো সেরা একাদশ নিয়েই খেলছি। কিন্তু চোটের জন্য সব এলোমেলো হয়ে যাচ্ছে। ভারত দলে পরীক্ষার বিষয়টি দীর্ঘদিন ধরে অনুপস্থিত। আমরা এখন একদমই পরীক্ষা করি না, তবে হাতে থাকা সেরা একাদশই মাঠে নামাই।’ ত্রিদেশীয় সিরিজে কঠিন সমীকরণের শেষ ম্যাচেই কেবল জয় নয় এমএস ধোনির মাথায় আরও এক ‘ক্যালকুলেশন।’ সেটি বিশ্বকাপেও ইনজুরি থাকলে একাদশের ব্যবস্থাপনা কী হবে? ওয়ানডেতে ব্যাট হাতে ড্যাশিং তারকা রোহিত শর্মার হ্যামস্ট্রিং চোট নেহায়েত ঠুনকো নয়।

ইশান্ত, জাদেজা, রোহিতদের চোট নিয়ে ভারতীয় শিবির এতটাই তটস্থ ছিল যে, ত্রিদেশীয় সিরিজ উপলক্ষে দুটি দিনও ভালমতো প্র্যাকটিস করতে পারেনি। চ্যাম্পিয়ন দলের বেশিরভাগ খেলোয়াড়ই ছিলেন বিশ্রামে। অস্ট্রেলিয়া-নিউজিল্যান্ডের কন্ডিশনের সঙ্গে মানিয়ে নিতে বিশ্বকাপের আড়াই মাস আগে গিয়ে টেস্ট সিরিজ খেলার সিদ্ধান্ত বুমেরাং হয় কি না, সেই প্রশ্নই উঠতে শুরু করেছে। কারণ শেষ ম্যাচের আগেও প্র্যাকটিস নয়, উল্টো বিশ্রামকেই বড় করে দেখছেন অধিনায়ক। ‘সুইচ অন-অফটা খুব জরুরী। এই ধরনের বিশ্রাম আমাদের সেটা করতেই সাহায্য করবে। যা অবস্থা তাতে একদিন প্র্যাকটিস করলে পরদিন বিশ্রমটা গুরুত্বপূর্ণ হয়ে পড়ছে!’

প্রকাশিত : ২৭ জানুয়ারী ২০১৫

২৭/০১/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

খেলার খবর



ব্রেকিং নিউজ: