আংশিক মেঘলা, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৭ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, বুধবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

উৎসাহ উদ্দীপনায় সরস্বতী পুজো উদযাপন

প্রকাশিত : ২৬ জানুয়ারী ২০১৫

স্টাফ রিপোর্টার ॥ বিপুল উৎসাহ-উদ্দীপনা ও ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্যের মধ্য দিয়ে রবিবার সারাদেশে বিদ্যাদেবী সরস্বতী পুজো উদযাপিত হয়েছে। হিন্দু সম্প্রদায়ের অন্যতম ধর্মীয় এ উৎসবকে ঘিরে সারাদেশেই ব্যাপক উৎসাহ-উদ্দীপনার সৃষ্টি হয়। তিথি অনুযায়ী শনিবার দুপুর থেকেই পঞ্চমী তিথি শুরু হওয়ায় কার্যত সারাদেশে শনিবার দুপুর থেকে রবিবার সকাল সোয়া ৯টার মধ্যে সারাদেশে আড়ম্বরভাবে পালিত হয় বিদ্যাদেবীর পুজো। সারাদেশের মন্দির ও গুরুত্বপূর্ণ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ভক্তরা বিদ্যা ও জ্ঞানের অধিষ্ঠার্থী দেবী সরস্বতীর পাদপ™ে§ পুষ্পাঞ্জলি অর্পণ করেছেন। ম-পে ম-পে পুজোর আনুষ্ঠানিকতা ছাড়াও হাতেখড়ি, প্রসাদ বিতরণ, আলোচনা সভা, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, সন্ধ্যারতি, আলোকসজ্জা ও মেলা বসেছে।

বিএনপি-জামায়াত জোটের ডাকা টানা ৩৬ ঘণ্টার হরতালের মধ্যেও প্রতিটি পুজোম-পের বাণী অর্চণায় সমবেত হন নানা সাজে সজ্জিত নারী, পুরুষ, আবাল, বৃদ্ধ-বনিতা। আবহমান বাঙালির অসাম্প্রদায়িক সাংস্কৃতিক ঐতিহ্য ধারণ করে হিন্দুদের পাশাপাশি অন্য ধর্মাবলম্বী মানুষও এ উৎসবে যোগ দিতে দেখা যায়। দর্শনার্থীদের উপচে পড়া ভিড়ে ছিল মন্দিরগুলোতে।

তবে এবার ব্যতিক্রম হচ্ছে স্বাধীনতার পর এই প্রথম জাতীয় সংসদ সচিবালয়ের আয়োজনে রাজধানী হাইস্কুল মাঠে সরস্বতী পুজো অনুষ্ঠিত হয়। পুজো ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে যোগ দিয়ে বক্তব্য রাখেন জাতীয় সংসদের স্পীকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী, ডেপুটি স্পীকার এ্যাডভোকেট ফজলে রাব্বি মিয়া, চীফ হুইপ আসম ফিরোজ, আয়োজক কমিটির পক্ষে সংসদ সদস্য পংকজ দেবনাথ, ছবি বিশ্বাস এবং সংসদের সিনিয়র সচিব আশরাফুল মকবুল। প্রথম পুজোতেই মানুষের উপচে পড়া ভীড় ছিল উল্লেখ্যযোগ্য।

রাজধানীর ঢাকেশ^রী জাতীয় মন্দির মেলাঙ্গনে মহানগর সার্বজনীন পুজো কমিটি আয়োজিত সরস্বতী পুজোয় সকাল থেকে হাজার হাজার পূজারী ও ভক্তবৃন্দ উপস্থিত হন। পুজোর পর পুষ্পাঞ্জলি শেষে বিতরণ করা হয় প্রসাদ। মন্দির প্রাঙ্গণের মেলায় ছিল বাহারি পণ্যের বিকিকিনি। গোপীবাগের রামকৃষ্ণ মিশন যমুনা মাঈ আশ্রমে ও মঠ মন্দিরেও উৎসবমুখর পরিবেশ দেখা গেছে। সেখানেও বিপুল দর্শনার্থী বিদ্যাদেবীর কৃপা প্রার্থনা করেছেন। রমনা কালীমন্দির ও মা আনন্দময়ী আশ্রম ম-পেও পুজো ও পুষ্পাঞ্জলি প্রদান করা হয়।

ঢাকা বিশ^বিদ্যালয়ের জগন্নাথ হল, রোকেয়া হল, শামসুন্নাহার হল, কুয়েত মৈত্রী হল, ফজিলাতুননেছা মুজিব হল ও নবাব ফয়জুন্নেছা হলসহ বিভিন্ন হলে সাড়ম্বরে সরস্বতী পুজো উদযাপিত হয়। জগন্নাথ হলে কেন্দ্রীয় ম-প ছাড়াও এখানকার খেলার মাঠে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ৫৫টি বিভাগ, ইনস্টিটিউট ও অনুষদ মিলিয়ে ৬০-এর অধিক পুজোম-প স্থাপন করা হয়। এর মধ্যে কয়েকটি ছিল হল কর্মচারীদের সন্তানদের উদ্যোগে স্থাপিত।

জগন্নাথ হলের প্রতিটি বিভাগের ম-প তৈরি করা হয় নিজস্ব বিভাগীয় থিম অনুযায়ী। কয়েকটি বিভাগ অতীত সময়ে সংঘটিত সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের ওপর হামলা ও নির্যাতনের চিত্র প্রতীকীভাবে ফুটিয়ে তুলেছে। প্রতিবছরের ন্যায় এবারও সবার দৃষ্টি কাড়ে জগন্নাথ হলের পুকুরের মাঝখানে ভাসমান মঞ্চে নির্মিত চারুকলা বিভাগের ব্যতিক্রমীয় পুজোর আয়োজন। এটি বাংলার লোকঐতিহ্যের ‘ট্যাপা পুতুলের’ আদলে তৈরি করা হয়েছে। এছাড়াও হলজুড়ে বিভিন্ন বিভাগ ও ইনস্টিটিউটের বিদ্যার্থীরা তৈরি করেছে বিভিন্ন মোটিফের ওপর ভিত্তি করে প্রতিমা ও বিভিন্ন মেটাফোরিক্যাল ম-প। দৃষ্টিনন্দন এ মহোৎসবে প্রতিফলিত হয়েছে চিরায়ত বাঙালী সংস্কৃতির শ্বাশ্বত মহিলা এবং একই সময় রয়েছে বিভিন্ন আধুনিক প্রযুক্তির কলাকৌশল ও বিজ্ঞানের সমন্বিত শিল্পরূপ।

এছাড়া জয়কালী মন্দির রোডের রামসীতা মন্দির, ইসকন মন্দির, জজকোর্ট প্রাঙ্গণে ঢাকা আইনজীবী সমিতির ম-প, সুপ্রীমকোর্ট প্রাঙ্গণ, অফিসার ক্লাব, সেগুনবাগিচার মহাহিসাব নিয়ন্ত্রকের কার্যালয় প্রাঙ্গণে অডিট এ্যান্ড একাউন্টস পুজো উদযাপন পরিষদের ম-প, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়, ব্যাংকার্স পুজো পরিষদ, ঠাঁটারীবাজার শিব মন্দির, বিহারী লাল জিউ মন্দির, রাধাগোবিন্দ জিও ঠাকুর মন্দির, রাধামাধব বিগ্রহ মন্দির, মিরপুর কেন্দ্রীয় মন্দির, ইডেন মহিলা কলেজ, ঢাকা কলেজ, কবি নজরুল কলেজ, তিতুমীর কলেজ, তেজগাঁও কলেজ, মিটফোর্ড হাসপাতাল ও কলেজ, বাংলা কলেজ, ভিকারুন্নিসা নুন স্কুল এ্যান্ড কলেজ, ইমপিরিয়াল কলেজসহ বিভিন্ন সংগঠন ও বিভিন্ন স্কুল-কলেজে সরস্বতী পুজো অনুষ্ঠিত হয়।

প্রকাশিত : ২৬ জানুয়ারী ২০১৫

২৬/০১/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

অন্য খবর



ব্রেকিং নিউজ: