কুয়াশাচ্ছন্ন, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৫ ডিসেম্বর ২০১৬, ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, সোমবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

ওয়ানডেতেও লঙ্কানদের লজ্জায় ডোবাল কিউইরা

প্রকাশিত : ২৬ জানুয়ারী ২০১৫

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ বিশ্বকাপ যখন দোড়গোড়ায় তখন এ কী হতশ্রী অবস্থা শ্রীলঙ্কার! নিউজিল্যান্ড সফরে একের পর এক লজ্জায় মুহ্যমান টি২০’র শিরোপাধারীরা। টেস্ট ভরাডুবির পর এবার এক ম্যাচ বাকি থাকতে সাত ওয়ানডের সিরিজটাও খোয়াল এশিয়ার পরাশক্তি শ্রীলঙ্কা। সিরিজ বাঁচিয়ে রাখতে জিততেই হবে, এমন কঠিন সমীকরণের ষষ্ঠ ওয়ানডেতে ১২০ রানে বিশাল ব্যবধানে মাথা নোয়াল লাহিরু থিরিমান্নের দল। ডুনেডিনে ৮ উইকেটে ৩১৫ রানের চ্যালেঞ্জিং স্কোর গড়ে নিউজিল্যান্ড। জবাবে ৪০.৩ ওভারে অতিথি লঙ্কা গুটিয়ে যায় ১৯৫ রানে! ৪০ রানের কার্যকর ইনিংস খেলার পর বল হাতে ৪ উইকেট তুলে নিয়ে স্বাগতিকদের জয়ের নায়ক তারকা অলরাউন্ডার কোরি এ্যান্ডারসন।

শ্রীলঙ্কা টি২০’র শিরোপাধারী, ১৯৯৬-এর বিশ্বচ্যাম্পিয়ন, গতবারের ফাইনালিস্ট, দলে রয়েছে কুমার সাঙ্গাকারা, মাহেলা জয়াবর্ধনে, তিলকারতেœ দিলশানের মতো কিংবদন্তিতুল্য ক্রিকেটার। সর্বোপরি দরজায় কড়া নাড়া এবারের আসরের অন্যতম ফেবারিটÑ এই সেই নমুনা? আবহাওয়ার সঙ্গে মানিয়ে নিতে সেই ডিসেম্বরের দ্বিতীয় সপ্তাহে নিউজিল্যান্ডে পা রাখে লঙ্কানরা। ২ টেস্টের সিরিজে হোয়াইটওয়াশের পর অনেকের ধারণা ছিল ওয়ানডেতে ঠিকই ঘুরে দাঁড়াবে অতিথিরা। অথচ এক ম্যাচ বাকি থাকতে সিরিজ খুইয়ে আবারও অসহায় আত্মসমর্পণ অর্জুনা রানাতুঙ্গার উত্তরসূরিদের! কালও ন্যূনতম প্রতিরোধ গড়তে পারেনি তারা। ৫৯ রানে ২ উইকেট হারানো কিউদের তিন শ’র ওপরে সংগ্রহ এনে দেন কেন উইলিয়ামসন ও রস টেইলর। তৃতীয় উইকেট জুটিতে ২০ ওভারে ১১৭ রান যোগ করে তারা।

দু’জনেই সেঞ্চুরির দেখা পাননি অল্পের জন্য। ফর্মের তুঙ্গে থাকা প্রতিভাবান উইলিয়ামসন ৯৫ বলে ৮ চার ও ২ ছক্কায় ৯৭ রান করে এবং ১০২ বলে ৭ চার ও ২ ছক্কায় ব্যক্তিগত ৯৬ রানে সাজঘরে ফেরেন সাবেক অধিনায়ক রস টেইলর। ওয়ানডেতে ৯৫ বা তার বেশি রানের ইনিংস খেলে একই দলের দুই ব্যাটসম্যানের সেঞ্চুরি না পাওয়ার ঘটনা ইতিহাসে এই প্রথম! এছাড়া কোরি এ্যান্ডারসনের ২৮ বলে ৪০ রানের ঝড়ো ইনিংসে ছিল ৫টি চার ও ১টি ছক্কার মার। ওপেনার মার্টিন গাপটিল ২৮, গ্রান্ট ইলিয়ট ১৪ বলে ২১ রান করে অপারিজ থাকলেও শূন্য রানে সাজঘরে ফেরেন অধিনায়ক ব্রেন্ডন ম্যাককুলাম। শ্রীলঙ্কার হয়ে পেসার ধাম্মিকা প্রসাদ ২টি, থিসারা পেরেরা, স্পিনার রঙ্গনা হেরাথ, তিলকারতেœ দিলশান প্রত্যেকে নেন ১টি করে উইকেট। জবাবে নিয়মিত বিরতিতে উইকেট হারানো লঙ্কানদের হয়ে সর্বোচ্চ ৮১ রান করেন অভিজ্ঞ সাঙ্গাকারা। ৩৯৬ ওয়ানডেতে সাঙ্গার এটি ৯৩ নম্বর হাফ সেঞ্চুরি, সাবেক গ্রেট শচীন টেন্ডুলকরের (৯৬) পর যা দ্বিতীয় সর্বাধিক। সব মিলিয়ে ১১৩ হাফ সেঞ্চুরি বা ততোর্ধ রানের ইনিংস (৫০+), রিকি পন্টিংকে টপকে দ্বিতীয় (১১২টি ৫০+ ইনিংস), এক্ষেত্রেও সাঙ্গাকারার সামনে কেবলই শচীন (১৪৫টি ৫০+ ইনিংস)। ইনিংসে তুখোড় সাঙ্গাকারকে কেউ সঙ্গ দিতে পারেননি। এ্যাঞ্জেলো ম্যাথুসের অনুপস্থিতিতে ভারপ্রাপ্ত অধিনায়ক লাহিরু থিরিমান্নে ২৯ ও দিমুথ করুনারতেœ ২৬ ও দিলশান রান করে আউট হন। কিউইদের হয়ে ৪ উইকেট নিয়ে নায়ক এ্যান্ডারসন। ডুনেডিন ম্যাচের মধ্য দিয়ে সাবেক অধিনায়ক স্টিফেন ফ্লেমিংকে (২৭৯) টপকে নিউজিল্যান্ড হয়ে বেশি ওয়ানডে খেলা ক্রিকেটার বনে যান তারকা স্পিনার ড্যানিয়েল ভেট্টোরি (২৮০)।

প্রকাশিত : ২৬ জানুয়ারী ২০১৫

২৬/০১/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

খেলার খবর



ব্রেকিং নিউজ: