কুয়াশাচ্ছন্ন, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৫ ডিসেম্বর ২০১৬, ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, সোমবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

এশিয়ান কাপ ফুটবল ॥ দক্ষিণ কোরিয়া-ইরাক সেমির লড়াই আজ

প্রকাশিত : ২৬ জানুয়ারী ২০১৫

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ এএফসি এশিয়ান কাপের প্রথম সেমিফাইনালে আজ দক্ষিণ কোরিয়ার বিপক্ষে খেলতে নামবে ইরাক। সিডনিতে দুই দলেরই লক্ষ্য ফাইনালের টিকেট নিশ্চিত করা। গত শুক্রবার কোয়ার্টার ফাইনালে ইরানকে হারিয়ে এএফসি এশিয়ান কাপের সেমিফাইনালে উঠে ইরাক। রোমাঞ্চকর টাইব্রেকারে ১০ জনের ইরানকে হারিয়ে টুর্নামেন্টের শেষ চারের টিকেট নিশ্চিত করে তারা। অস্ট্রেলিয়ার ক্যানবেরা স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত কোয়ার্টার ফাইনালের ম্যাচটি অতিরিক্ত সময়ে ৩-৩ ব্যবধানে ড্রয়ে শেষ হয়। এরপর টাইব্রেকারে ইরাক ৭-৬ গোলে হারায় ইরানকে। সেমিফাইনালে উঠার পর ইরাক এখন স্বপ্ন দেখছে ২০০৭ সালের পর আবারও চ্যাম্পিয়ন হওয়ার। আর সে জন্য সেমিফাইনালে দক্ষিণ কোরিয়াকে হারাতেই হবে তাদের। এ বিষয়ে ইরাকের সেরা তারকা ইউনুস মাহামুদ বলেন, ‘দক্ষিণ কোরিয়া খুবই শক্তিশালী একটি দল। কিন্তু আমার স্মৃতি কেবলই ২০০৭ সালের দিকে ফিরে যাচ্ছে। কোনভাবেই যেন নিজেকে সেই স্মৃতি থেকে ফিরিয়ে আনতে পারছি না। আমি মনে করি সেটা আবারও ঘটবে।’

এশিয়া কাপের সর্বোচ্চ চারবারের চ্যাম্পিয়ন জাপান। এরপর তিনবার করে শিরোপা জয়ের স্বাদ পেয়েছে সৌদি আরব ও ইরান। আর এই ইরানকে হতাশ করে সেমিফাইনালে উঠে গর্বিত ইরাক। তবে কাজটা যে সহজ ছিল না তা অনুমিতই। তবে এর পেছনে স্ট্রাইকার ইউনুস মাহমুদের ভূমিকা ছিল গুরুত্বপূর্ণ। শুধু মাঠের পারফর্মেন্সেই নয় বরং সতীর্থদের সাহসও যোগাতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখেছেন তিনি। এ বিষয়ে মাহমুদ বলেন, ‘ইরানের বিপক্ষে ম্যাচের ফলাফল যখন পেনাল্টিতে নির্ধারণ হয় তখন অনেকেই কিছুটা বিচলিত হয়ে পড়ে। কিন্তু আমি তখন তাদের ভরসা দেই। তাদের বলি যে পেনাল্টিতে গোল করাটা কঠিন কোন কাজ নয়। আমার মনে হয় সেটাই কাজে লেগেছে। কারণ প্রত্যেকেই তাদের পেনাল্টি শট দারুণভাবে নিতে সক্ষম হয়েছে।’

আল সাদ স্পোর্টস ক্লাব থেকে ২০১৩ সালে আল আহলীতে যোগ দেন ইউনুস মাহমুদ। কিন্তু ইনজুরির কারণে খুব বেশি ম্যাচ খেলতে পারেননি তিনি। আল আহলীর জার্সিতে মাত্র ছয় ম্যাচ খেলেছেন মাহমুদ। আর এই সময়ের মধ্যে প্রতিপক্ষের জালে তিনবার বল জড়িয়েছেন তিনি। পেনাল্টিসহ ইরানের বিপক্ষেও দুটি গোল করেন মাহমুদ। আর তাই ম্যাচ শেষে ইরাকের কোচ রাধি সেনাইশিলও মাহমুদের ভূয়সী প্রশংসা করেছেন। এ বিষয়ে কোচ বলেন, ‘তাকে (মাহমুদ) নিয়ে জনগণের অনেক সংশয় ছিল। কেননা শারীরিকভাবে সে যে এত বেশি ফিট ছিল তা না। কিন্তু তারপরও ইরানের বিপক্ষে ম্যাচে অসাধারণ পারফর্মেন্স উপহার দিয়েছে সে।’ এ সময় তিনি আরও বলেন, ‘আমাদের দলটা একেবারেই তরুণ। যে কারণে একজন অভিজ্ঞ নেতার প্রয়োজন। কিন্তু মাহমুদ সে তার দেশের তারকা। তার অসাধারণ পারফর্মেন্সর জন্য আমিও তার প্রতি কৃতজ্ঞ।’

এশিয়ান কাপে দুইবারের চ্যাম্পিয়ন দক্ষিণ কোরিয়া। ১৯৫৬ সালে প্রথমবারের মতো শিরোপা জিতেছিল তারা। আর সর্বশেষ ১৯৬০ সালে। প্রায় অর্ধশতকেরও বেশি সময় আগে শেষবার শিরোপা জয়ের স্বাদ পেয়েছিল দক্ষিণ কোরিয়া। এবার সেই দীর্ঘ অপেক্ষার অবসান ঘটাতে চায় কোরিয়ানরা। আর তাই আজ ইরাককে হারানোর লক্ষ্য নিয়েই খেলতে নামছে তারা।

কোয়ার্টার ফাইনালে সংযুক্ত আরব আমিরাতের কাছে হেরে এশিয়া কাপ থেকে বিদায় নিয়েছে জাপান। আর এএফসি এশিয়া কাপের কোয়ার্টার ফাইনাল থেকেই বিদায় নেয়ার কারণে সবচেয়ে বড় খেসারত দিতে হতে পারে জাপানের কোচ জাভিয়ের এ্যাগুইরেকে। জাপান ফুটবল এ্যাসোসিয়েশন (জেএফএ) হয়ত খুব শীঘ্রই বরখাস্ত করতে পারে তাকে। ব্রাজিল বিশ্বকাপের পর এবার এশিয়া কাপ থেকেও বিদায় নেয়ায় কোচের পারফর্মেন্স প্রশ্নবিদ্ধ হয়ে পড়ে।

প্রকাশিত : ২৬ জানুয়ারী ২০১৫

২৬/০১/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

খেলার খবর



ব্রেকিং নিউজ: