কুয়াশাচ্ছন্ন, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৪ ডিসেম্বর ২০১৬, ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, রবিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ

প্রতিবন্ধী ফারুকের দৃষ্টিশক্তি ফিরে পেতে এগিয়ে আসুন

প্রকাশিত : ২৫ জানুয়ারী ২০১৫

স্টাফ রিপোর্টার ॥ প্রিয় দেশবাসী, দৃষ্টি প্রতিবন্ধী ফারুক আহম্মেদের চিকিৎসায় সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিন। ১৯৯৬ সালে নবম শ্রেণীতে অধ্যয়নরত অবস্থায় খেলতে গিয়ে চোখে প্রচ- আঘাত পান তিনি। ধীরে ধীরে দৃষ্টিশক্তি হারিয়ে ফেলেন। কিন্তু নিজের চেষ্টা ও সৃষ্টিকর্তার করুণায় তাঁর লেখাপড়া থেমে যায়নি। দৃষ্টিহীন অবস্থায় ২০০৩ ও ২০০৫ সালে তিনি যথাক্রমে এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষায় কৃতিত্বের সঙ্গে উত্তীর্ণ হন। পরবর্তীতে মানবিক সহযোগিতায় বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ার সুযোগ হয়। এরপর দৈনিক জনকণ্ঠের ঠাকুরগাঁও সংবাদদাতার সহযোগিতায় জনকণ্ঠের প্রধান কার্যালয়ে যোগাযোগ করেন। এই কার্যালয়ের সংশ্লিষ্ট এক প্রতিবেদক ঢাকার বিভিন্ন চক্ষু বিশেষজ্ঞকে দেখিয়ে পর্যবেক্ষণ শেষে চিকিৎসার জন্য ভারতের চেন্নাইয়ের শংকর নেত্রালয়ে পাঠান। এরপর প্রতিবেদক জনকণ্ঠ পত্রিকায় বিষয়টি প্রতিবেদন আকারে প্রকাশ করলে চিকিৎসার যাবতীয় অর্থ সংগ্রহ হয়। এরপর ফারুক আহম্মেদ তাঁর একজন সহযোগীকে নিয়ে ২০০৬ সালে জুন মাসে চিকিৎসার জন্য চেন্নাইয়ে যান। সেখানে ২০০৬ সালের ১৪ জুন তাঁর ডান চোখে রেটিনা সার্জারি করা হয়। এরপর চার সপ্তাহ পরে ফারুক ধীরে ধীরে দৃষ্টিশক্তি ফিরে পেতে শুরু করেন। নিয়মিত পর্যবেক্ষণের জন্য চেন্নাইয়ের চিকিৎসক দু’মাস পর পর সেখানে যেতে বলেন। সর্বশেষ পর্যবেক্ষণের সময় ডাঃ কুখরাজ ঋষী বছরে কমপক্ষে দু’বার চেন্নাইয়ে যেতে বলেন। কিন্তু অর্থনৈতিক সঙ্কট ও উচ্চতর ডিগ্রিতে লেখাপড়া করার কারণে গত ৫ বছর ধরে সেখানে যেতে না পারায় বর্তমানে তিনি দৃষ্টিশক্তি হারাতে বসেছেন। ঠাকুরগাঁও সদর থানার কুমারপুর গ্রামে তাঁর বাড়ি। বর্তমানে তিনি জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় হতে বিএসএস (অনার্স) ও এমএসএস (মাস্টার্স) ডিগ্রি সম্পন্ন করে কর্মসংস্থানের সন্ধানে ছোটাছুটি করছেন। টাকার অভাবে তাঁর চিকিৎসা বন্ধ রয়েছে। এমতাবস্থায়, নিজের চিকিৎসার জন্য সকল হৃদয়বান ও দানশীল ব্যক্তির আন্তরিক সহযোগিতা কামনা করেছে পিতৃহীন ফারুক আহম্মেদ। চিকিৎসায় সহযোগিতা দিতে সরাসরি যোগাযোগ করুন এই মোবাইল নম্বরে-০১৯২৩৬২৪৭০২। আর সাহায্য দিন এই সঞ্চয়ী হিসাবে-ফারুক আহম্মেদ, ইসলামী ব্যাংক, সদরঘাট শাখা, ঢাকা, হিসাব নং ৭৪৪২।

ঘোষণা : দৈনিক জনকণ্ঠ মানুষ মানুষের জন্য বিভাগে খবর প্রকাশের মাধ্যমে সহৃদয় ব্যক্তিদের সঙ্গে যোগাযোগ ঘটিয়ে দিয়ে থাকে। সাহায্য সরাসরি সাহায্যপ্রার্থীর ব্যাংক এ্যাকাউন্টে জমা দিতে হবে। অথবা সাহায্যপ্রার্থীর দেয়া মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করতে হবে। দৈনিক জনকণ্ঠ এ বিষয়ে কোন দায়ভার গ্রহণ করবে না।

প্রকাশিত : ২৫ জানুয়ারী ২০১৫

২৫/০১/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


ব্রেকিং নিউজ: