হালকা কুয়াশা, তাপমাত্রা ১৮.৯ °C
 
৮ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, বৃহস্পতিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

সাগর নয় তবু নাম রামসাগর

প্রকাশিত : ২৪ জানুয়ারী ২০১৫

দীঘির নাম রামসাগর। সাগরের পানির মতো নীল পানি বক্ষে ধারণ করে হ্রদের বিশাল বিস্তৃতি নিয়ে এর অবস্থান। সাগরের মতো বিশাল না হলেও হ্রদের মতো বড়। দিনাজপুর শহর হতে মাত্র আট কিলোমিটার দূরে এই দীঘির পানিতে মিশে রয়েছে এক অনন্য ইতিহাস আর কিংবদন্তি। রামসাগর শুধু ঐতিহাসিক কীর্তিই নয়- প্রাকৃতিক শোভা ও সৌন্দর্যের লীলাভূমিও। দীঘির পাড়ের উচ্চ টিলার ওপর অবস্থিত সুন্দর মনোরম ডাকবাংলোটি দেশী ও বিদেশী অসংখ্য কৌতূহলী পর্যটকের কাছে যেমন প্রতিনিয়ত স্বপ্নিল আকর্ষণ, তেমনি অনেক রসিক ব্যক্তির নিকেতনও বটে! এই দীঘির মুগ্ধ ও স্নিগ্ধ পরিবেশে শ্রান্তি ও ক্লান্তি বিনোদনের জন্য সারাবছরে অগণিত ক্লান্ত মানুষ ছুটে আসেন। তাঁরা অনেকে প্রশান্তি মন নিয়ে ঘুরে বেড়ান কিছুক্ষণের জন্য নিজেকে নিজের মধ্যে খুঁজে পাবার বাসনায়। মরীচিকার হাতছানি এভাবে এসেই থেমে গেছে সবুজের অভ্যন্তরে।

দিনাজপুরে ভ্রমণকারীদের জন্য অন্যতম আকর্ষণীয় স্থান রামসাগর। দীঘির চারপাশ ঘিরে রয়েছে লাল মাটির ছোট ছোট টিলা। এর পরেই সবুজ প্রান্তর। তটভূমিসহ দীঘির আয়তন ৪ লাখ ৩৭ হাজার ৩১ মিটার, প্রস্থ ৩৬৪ মিটার। গভীরতা গড়ে প্রায় ১০ মিটার। রামসাগর শুধু দিনাজপুরের নয়, বাংলাদেশের দীঘিগুলোর মধ্যে সর্বশ্রেষ্ঠ। এ দীঘিকে নিয়ে ছড়িয়ে রয়েছে বহু কিংবদন্তি ও উপাখ্যান। রামসাগর দিনাজপুর বন বিভাগের আওতায়, সংরক্ষিত বনাঞ্চল। বন বিভাগ এখানে ৪শ’ প্রজাতির বৃক্ষ রোপণ করেছে। এর মধ্যে রয়েছে ২শ’ প্রজাতির উন্নতমানের গোলাপ। দীঘির চারিপাশের প্রায় আড়াই কিলোমিটার সড়কের দুই ধারে লাগানো হয়েছে দেবদারু, ঝাউ ও মুছকন্দ ফুলের গাছ। দুই একর জমির ওপর নির্মিত হয়েছে কৃত্রিম শিশুপার্ক। এই পার্কে জিরাফ, বনমানুষ, ভাল্লুক, হাতিসহ প্রায় ২০টি প্রাণীর প্রমাণ সাইজ প্রতিকৃতি রয়েছে। রামসাগরকে পর্যটনের আওতায় নিয়ে আসার পর বন বিভাগের ব্যাপক উন্নয়ন কার্যক্রম করেছে।

-সাজেদুর রহমান শিলু

দিনাজপুর থেকে

প্রকাশিত : ২৪ জানুয়ারী ২০১৫

২৪/০১/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


ব্রেকিং নিউজ: