কুয়াশাচ্ছন্ন, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৫ ডিসেম্বর ২০১৬, ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, সোমবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

হলিউড

প্রকাশিত : ২২ জানুয়ারী ২০১৫
হলিউড
  • অস্কার ঘিরে বিতর্ক তুঙ্গে

এবারের অস্কারের নমিনেশনগুলো দেখেই ভ্রু কুঁচকেছেন অনেকেই। কারণ সেখানে শুধুই সাদাদের ভিড়। তাহলে কি পশ্চিম তাদের চিরাচরিত বর্ণবৈষম্য থেকে বের হতে পারেনি। ২০১৪-তে কিন্তু আশার আলো দেখিয়েছিল অস্কার। সেরা চলচ্চিত্রের পুরস্কার ছিনিয়ে নিয়েছিলেন কৃষ্ণাঙ্গ পরিচালক স্টিভ ম্যাককুইনের সিনেমা ‘টুয়েলভ ইয়ার্স আ সেøভ’। সেরা অভিনেতা-অভিনেত্রীর লড়াইয়ে ২০ জনের মধ্যে সবাই শেতাঙ্গ। পরিসংখ্যানবিদরা জানাচ্ছেন, ১৯৯৮ সালের পর থেকে গত ১৭ বছরে নাকি এমন নজির নেই। এ বছর আলোচনার শীর্ষে ছিলেন কৃষ্ণাঙ্গ পরিচালক এভা ডু ভারনের চলচ্চিত্র ‘সেলমা’। অনেকেই বলেছিলেন এবার মাত করবেন এভা কিন্তু বিধি বাম।

এভার চলচ্চিত্রের প্রেক্ষাপট ১৯৬৫ সাল, আলবামা। কালোদের ভোটাধিকারের দাবিতে সেলমা থেকে মন্টগোমারি পর্যন্ত মার্টিন রুথার কিংয়ের যে বিক্ষোভ মিছিল সেটিই এই চলচ্চিত্রের উপজীব্য। পুরস্কারের আশা করলেও মনোনয়নই পেলেন না এভা। মার্টিন লুথারের চরিত্রে যিনি অভিনয় করেছেন সেই ডেভিড ওয়েলোয়ো ও মনোনয়ন পাননি। তবে অস্কার দৌড় থেকে ছিটকে পড়লেও হতাশ নন এভা। তিনি টুইট করেছেন, ‘শুভ জন্মদিন ডক্টর কিং, লড়াই চালিয়ে যাও’। অবশ্য গানের বিভাগে সেরার তালিকায় রয়েছেন ‘সেলমা’।

তবে কালোদের মধ্যে সবেধন নীলমণি হয়ে আলো ছড়িয়েছেন সেরা পরিচালক বিভাগে বার্ডম্যান ছবির পরিচালক মেক্সিকান আলসান্দ্রো গঞ্জালেস। এর বাইরে কৃষ্ণাঙ্গরা আর কেউ নমিনেশনেই নেই। সবাইকে চমকে দিয়ে সেরা অভিনেত্রীর ক্যটাগরিতে ‘টু ডেজ, ওয়ান নাইট’ চলচ্চিত্রের জন্য মনোনয়ন পেয়েছেন ম্যারিয়ন কটিলার্ড। মনোনয়ন তালিকায় নেই দক্ষিণ এশীয় কোন চলচ্চিত্র। অনেকেই মন্তব্য করেছেন বর্ণবৈষম্য হয়ে আসছে নাকি আগাগোড়াই। অনেকেই মন্তব্য করেছেন এবার একবারে ‘হোয়াইটওয়াশ’ হয়ে গিয়েছে অস্কার নমিনেশন। অবশ্য ভিন্ন মতও আছে। কারো কারো মতে, ‘গত বছর যা ঘটেছিল, তা কেবল কালেভদ্রেই ঘটে। এ বছর যা ঘটেছে তা দুঃখজনক। কিন্তু অপ্রত্যাশিত নয়। কারণ অস্কার ভোটারদের ৯৪ শতাংশই যে শেতাঙ্গ। অবশ্য শুধু বর্ণবৈষম্যই নয় মহিলারা ও বৈষম্যের শিকার এমন অভিযোগ উঠেছে। ২০১৩ সালে ‘জিরো ডাক থার্টি’র জন্য সেরা পরিচালক হয়েছিলেন ক্যাথেরিন বিগলো। সেই শেষ। এবারও পরিচালক বিভাগে কোন মেয়ের নাম নেই। এই পরিচালক ক্যাতেরিন বিগলোই একমাত্র নারী পরিচালক যিনি ২০০৮ সালে ‘হার্ট লকার’ সিনেমার জন্য অস্কার জিতেছিলেন। আনব্রোকেন চলচ্চিত্রের জন্য আলোচনায় ছিলেন অভিনেত্রী এ্যাঞ্জেলিনা জোলি। কিন্তু ভাগ্যে শিকে ছেড়েনি এই অভিনেত্রীর। সব মিলিয়ে কিছুটা বিতর্ক রেখেই শেষ হলো এবারের অস্কার মনোনয়নের প্রথম ধাপ। কার কার হাতে উঠবে একাডেমি এ্যাওয়ার্ড সেটা দেখার জন্য পাঠককে আরও কিছুটা সময় অপেক্ষা করতেই হচ্ছে।

প্রকাশিত : ২২ জানুয়ারী ২০১৫

২২/০১/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


ব্রেকিং নিউজ: