কুয়াশাচ্ছন্ন, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৫ ডিসেম্বর ২০১৬, ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, সোমবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

সৌদিতে শ্রমিক নিষেধাজ্ঞা উঠে যাচ্ছে

প্রকাশিত : ২২ জানুয়ারী ২০১৫

স্টাফ রিপোর্টার ॥ বাংলাদেশ থেকে শ্রমিক নেয়ার ওপর নিষেধাজ্ঞা শীঘ্রই তুলে নেয়া হচ্ছে বলে জানিয়েছে সৌদি আরব সরকার। মধ্যপ্রাচ্যের তেলসমৃদ্ধ এ দেশটির শ্রমমন্ত্রী আবদেল ফকিহকে উদ্ধৃত করে আরব নিউজ বুধবার এ খবর প্রকাশ করে। এদিকে প্রবাসীকল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থানমন্ত্রী খন্দকার মোশাররফ হোসেন জানিয়েছেন, বাংলাদেশী শ্রমিকরা মাত্র ২০ হাজার টাকায় সৌদি আরব যেতে পারবেন। আরব নিউজের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, রবিবার রিয়াদে বাংলাদেশের প্রবাসীকল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থানমন্ত্রী খন্দকার মোশাররফ হোসেনের সঙ্গে প্রায় এক ঘণ্টা বৈঠকে এ বিষয়ে আলোচনা করেন সৌদি মন্ত্রী। ওই বৈঠকের পর দুই দেশের সম্পর্কের উন্নতির কথা তুলে ধরে আবদেল ফকিহ বাংলাদেশ থেকে দক্ষ জনশক্তি নেয়ার আগ্রহ প্রকাশ করেন। গত সাত বছর ধরে সৌদি আরবে বাংলাদেশের শ্রমিক নিয়োগ বন্ধ রয়েছে বলে জানিয়েছে আরব নিউজ।

এ বিষয়ে সৌদি আরবে বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত শহীদুল ইসলাম জানিয়েছেন, বাংলাদেশ থেকে শ্রমিক আমদানির বিষয়ে সৌদি আরব সরকার নীতিগত সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এ নিয়ে সৌদি আরব সফররত প্রবাসীকল্যাণ মন্ত্রীর সঙ্গে সৌদি সরকারের উচ্চ পর্যায়ের বৈঠকও হয়েছে। শীঘ্রই বাংলাদেশ থেকে শ্রমিক পাঠানো যাবে। তিনি জানান, এ নিয়ে নীতিগত সিদ্ধান্ত হলেও এখন তাদের কিছু আনুষ্ঠানিকতা রয়েছে। এগুলো সারতে একদিনও লাগতে পারে, দুইদিনও লাগতে পারে।

প্রবাসীকল্যাণ মন্ত্রী খন্দকার মোশাররফ হোসেনও আরব নিউজকে বলেছেন, সৌদি সরকার শীঘ্রই বাংলাদেশী শ্রমিকদের জন্য তাদের শ্রমবাজার উন্মুক্ত করতে প্রস্তুত। আরব নিউজের প্রতিবেদনে বলা হয়, সৌদি আরবের কোন কোন খাতে কী ভাবে বাংলাদেশ থেকে দক্ষ শ্রমিক নিলে দুই দেশই লাভবান হবেÑ সে বিষয়ে একটি কর্মকৌশল ঠিক করার ওপর জোর দেন আবদেল ফকিহ। তিনি বলেন, কাজ নিয়ে সৌদি আরবে আসার আগে আগ্রহীরা যাতে নিজের দেশে প্রশিক্ষণ পায় এবং ‘অনলাইন ভেরিফিকেশনের’ সুযোগ রেখে স্বচ্ছতার সঙ্গে তাদের নিয়োগ প্রক্রিয়া সম্পন্ন করা যায়- সে ব্যবস্থা করা প্রয়োজন। সরকারী হিসাবে বর্তমানে ১২ লাখ ৮০ হাজার বাংলাদেশী সৌদি আরবে বিভিন্ন পেশায় নিয়োজিত। ২০০৮ সালে নিষেধাজ্ঞা আরোপের আগে বাংলাদেশ থেকে প্রতি বছর গড়ে প্রায় দেড় লাখ শ্রমিক নিত সৌদি আরব।

বৈঠকে খন্দকার মোশাররফ হোসেন সৌদি শ্রমমন্ত্রীকে আশ্বস্ত করে বলেন, বিদেশে কাজ করতে ইচ্ছুক এমন ব্যক্তিদের একটি ডাটা সেন্টার তৈরি করেছে সরকার। এতে ২২ লাখের বেশি লোক নিবন্ধিত হয়েছেন। এছাড়া বাংলাদেশ থেকে দক্ষ শ্রমিক মালয়েশিয়া, দক্ষিণ কোরিয়া ও হংকংয়ে যাচ্ছেন বলেও সৌদি মন্ত্রীকে অবহিত করেন তিনি। বৈঠকে দুই দেশের মধ্যকার পারস্পরিক সম্পর্ক উন্নত থেকে উন্নততর পর্যায়ে নিয়ে যাওয়ার ব্যাপারেও একমত পোষণ করেন দুই দেশের মন্ত্রীরা।

১৭ জানুয়ারি থেকে ৮ সদস্যের উচ্চপর্যায়ের প্রতিনিধি দল নিয়ে সৌদি আরবে অবস্থান করছেন প্রবাসীকল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থানমন্ত্রী খন্দকার মোশাররফ হোসেন। সেখানে প্রবাসীদের দেয়া একটি সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে মন্ত্রী জানান, বাংলাদেশী শ্রমিকরা মাত্র ২০ হাজার টাকায় সৌদি আরব যেতে পারবেন। এ সময় মন্ত্রী বলেন, দীর্ঘদিন বন্ধ থাকার পর আবারও শ্রমিক নেয়ার বিষয়ে আগ্রহ প্রকাশ করেছে সৌদি সরকার। গবর্নমেন্ট টু গবর্নমেন্টÑ জি টু জি- প্রক্রিয়ায় এ শ্রমিক নেয়া হবে। এ বিষয়ে চলতি মাসেই একটি সৌদি প্রতিনিধি দল ঢাকা সফর করবে বলে জানান মন্ত্রী।

কুয়েতে রাষ্ট্রদূত নিয়োগ ॥ অবসরোত্তর ছুটিতে (পিআরএল) থাকা মেজর জেনারেল আসহাব উদ্দিনকে এক বছরের চুক্তিতে কুয়েতে বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূতের দায়িত্বে পুনরায় নিয়োগ দিয়েছে সরকার। এই সেনা কর্মকর্তার পিআরএল বাতিলের শর্তে ১০ জানুয়ারি বা যোগ দেয়ার তারিখ থেকে নতুন এই নিয়োগ কার্যকর হবে বলে বুধবার জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের এক আদেশে জানানো হয়েছে। ২০১৩ সালের আগস্টে বাংলাদেশ মিশনের দায়িত্ব দিয়ে মেজর জেনারেল আসহাবকে কুয়েতে পাঠানো হয়। অক্টোবরে দায়িত্ব নেয়ার পর সম্প্রতি তিনি অবসরোত্তর ছুটিতে যান। ১৯৭৯ সালে সেনাবাহিনীতে কমিশন পাওয়া আসহাব উদ্দিন ২৪ পদাতিক ডিভিশনের জেনারেল অফিসার কমান্ডিং (জিওসি) ও চট্টগ্রামের এরিয়া কমান্ডার হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন। জাতিসংঘ শান্তি মিশনেও কাজ করেছেন তিনি।

প্রকাশিত : ২২ জানুয়ারী ২০১৫

২২/০১/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

প্রথম পাতা



ব্রেকিং নিউজ: