আংশিক মেঘলা, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৭ ডিসেম্বর ২০১৬, ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, বুধবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

পার্বতীপুরে খোলা আকাশের নিচে চার কোটি টাকার ইউরিয়া

প্রকাশিত : ২১ জানুয়ারী ২০১৫

নিজস্ব সংবাদদাতা, পার্বতীপুর, ২০ জানুয়ারি ॥ পার্বতীপুরের বিসিআইসি বাফার সার গোডাউন চত্বরে খোলা আকশের নিচে একমাস ধরে পড়ে আছে ৪ কোটি ২০ লাখ টাকার ইউরিয়া সার। এগুলো ঢেকে রাখা হয়েছে ত্রিপল দিয়ে। বাফার ইনচার্জ মোঃ শাজাহান আলী জানিয়েছেন এখানকার ৩টি গোডাউনের ধারণক্ষমতা ১০ হাজার মে. টন। বর্তমানে গোডাউনে সার ভর্তি রয়েছে। তাই পিক আওয়ারে সারের ভরা মৌসুমে বিসিআইসি কর্তৃপক্ষের নির্দেশক্রমে এভাবেই ৬০ হাজার বস্তা ইউরিয়া সার আপদকালীন মজুদ রাখা হয়েছে। দিনাজপুর জেলার ফার্টিলাইজার এ্যাসোসিয়েশনের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মোঃ আতিয়ার রহমান জানান, এভাবে সার রাখা ঠিক নয়। গোডাউনজাত করা উচিত। কারণ ত্রিপলে ঢেকে রাখা হলেও রোদ বৃষ্টি ঝড়ে সারের গুণাগুণ নষ্ট হতে পারে। এছাড়াও সারের বস্তা ফেটে গিয়ে ওজন কমে যায়। এই সারগুলো ডিলারদের দেয়া হলে কৃষক কিনতে চায় না। যোগাযোগ করলে বগুড়ার বিসিআইসির আঞ্চলিক অফিসের ডিজিএম মোঃ শহীদুল ইসলাম জনকণ্ঠকে জানান, চলমান ইরি-বোরো আবাদের ভরা মৌসুমে আপদকালীন মজুদের জন্য সমগ্র উত্তরাঞ্চলের বাফার ইনচার্জদের এই মর্মে নিদের্শনা দেয়া হয়েছে যে, গোডাউন খালি থাকলে গোডাউনজাত করতে হবে। অন্যথায় উন্মুক্ত স্থানে মোটা পলিথিন ও ত্রিপলে দড়ি দিয়ে বেঁধে যতœ করে রাখতে হবে। এভাবে রাখায় কোন সমস্যা হয় না ।

শিবির কর্মীকে রক্ষা রাজশাহী কলেজ অধ্যক্ষের কার্যালয় ভাংচুর

স্টাফ রিপোর্টার, রাজশাহী ॥ রাজশাহী কলেজ অধ্যক্ষের কার্যালয়ে মঙ্গলবার দুপুরে ভাংচুর চালিয়েছে ছাত্রলীগ কর্মীরা। নাশকতাকারী এক শিবির কর্মীকে অধ্যক্ষ রক্ষা করায় এ হামলা চালানো হয়।

জানা গেছে, ক্যাম্পাসে দুপুর পৌনে একটার দিকে মিছিল বের করে ছাত্রলীগ কর্মীরা। এ সময় ক্যাম্পাসের বিভিন্ন স্থানে কয়েকটি গ্রুপে বিভক্ত হয়ে হামলার পরিকল্পনায় অবস্থান নেয় ছাত্রশিবির কর্মীরা। বিষয়টি ছাত্রলীগ নেতাকর্মীদের নজরে আসলে তারা এক শিবির কর্মীকে ধরে বেধড়ক পেটায়। এ সময় কলেজ অধ্যক্ষ অধ্যাপক হবিবুর রহমান এসে ওই শিবির কর্মীকে ছাত্রলীগ কর্মীদের কাছ থেকে রক্ষা করেন এবং কলেজ ক্যাম্পাস থেকে নিরাপদে বের করে দেন। কলেজ অধ্যক্ষের এ হস্তক্ষেপে ছাত্রলীগ কর্মীরা ক্ষুব্ধ হয়ে অধ্যক্ষের কার্যালয়ের দরজা ও জানালা ভাংচুর করে। এ সময় অধ্যক্ষের কার্যালয়ের পাশে স্টাফরুমে কোয়ান্টাম মেথড রাজশাহী শাখার সেমিনার চলছিল। ছাত্রলীগ কর্মীরা সেখানেও প্রবেশ করে একটি ল্যাপটপ এবং প্রজেক্টর ভাংচুর করে। পরে পুলিশ এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। পরে ছাত্রলীগ কর্মীরা সারওয়ার রনি নামে ছাত্রশিবির কলেজ শাখার এক নেতাকে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করে। ছাত্রলীগ রাজশাহী কলেজ শাখার সভাপতি ববিন ভাংচুরের অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, ছাত্রশিবিরের ক্যাডাররা কলেজের শান্তিপূর্ণ পরিবেশ নষ্ট করার পরিকল্পনা করছে। কলেজ অধ্যক্ষ অধ্যাপক হবিবুর রহমান জানান, বর্তমানে কলেজের পরিবেশ স্বাভাবিক রয়েছে। যে কোন ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে ক্যাম্পাসে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

প্রকাশিত : ২১ জানুয়ারী ২০১৫

২১/০১/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

দেশের খবর



ব্রেকিং নিউজ: