কুয়াশাচ্ছন্ন, তাপমাত্রা ২২.২ °C
 
৩ ডিসেম্বর ২০১৬, ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৩, শনিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

খালেদার বক্তব্য চরম মিথ্যাচার ॥ ১৪ দলের প্রতিক্রিয়া

প্রকাশিত : ২০ জানুয়ারী ২০১৫

বিশেষ প্রতিনিধি ॥ সাংবাদিক সম্মেলনে বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়ার প্রদত্ত বক্তব্যেকে ‘জনসমর্থনহীন দিশেহারা একজন রাজনৈতিক নেত্রীর চরম মিথ্যাচার’ হিসেবে আখ্যায়িত করেছেন আওয়ামী লীগসহ ১৪ দলের শীর্ষ নেতারা। তাঁরা বলেন, বিএনপি নেত্রী খালেদা জিয়া মিথ্যাকে শিল্প বানিয়েছেন। মিথ্যা ছাড়া তাঁর আর কোন পুঁজি নেই। সরকারের বিরুদ্ধে নয়, উনি জনগণের ওপর আক্রমণ চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন। কিন্তু বিএনপি নেত্রীর সহিংসতা-নাশকতার হাত থেকে দেশকে বাঁচাতে সরকারকে আরও কঠোর হওয়া ছাড়া আর কোন বিকল্প পথ থাকল না।

জনকণ্ঠের কাছে দেয়া তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়ায় আওয়ামী লীগের সভাপতিম-লীর সদস্য কাজী জাফরউল্লাহ বলেন, খালেদা জিয়ার বক্তব্যে ‘ঠাকুর ঘরে কে রে, আমি কলা খাই না’- প্রবাদের মতোই সত্য। আসলে জনগণের ন্যূনতম সমর্থন না পেয়ে খালেদা জিয়া অত্যন্ত হতাশাগ্রস্ত হয়ে পড়েছেন। আর সেই হতাশা থেকেই উনি জামায়াত-শিবির-জঙ্গী-আল কায়েদাদের নির্দেশ দিয়ে নৃশংসভাবে নিরীহ মানুষকে হত্যা করাচ্ছেন। তাঁর প্রতিহিংসার আগুনে শিশু থেকে শুরু করে কলেজের ছাত্রছাত্রীরাও রেহাই পাচ্ছে না।

সাংবাদিক সম্মেলনে খালেদা জিয়া নির্লজ্জ মিথ্যাচার করেছেন দাবি করে জাফরউল্লাহ আরও বলেন, ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলার পরও খালেদা জিয়ার এমন মিথ্যাচার দেশবাসী ভুলে যায়নি।

আওয়ামী লীগকে নিশ্চিহ্ন করতে খালেদা জিয়া ও তারেক রহমানরা এই গ্রেনেড হামলা চালানোর পর সংসদে বলেছিলেন- শেখ হাসিনাই নাকি ভ্যানিটি ব্যাগে গ্রেনেড নিয়ে গিয়ে মেরেছেন! নিজেরা বোমাবাজি- পেট্রোলবোমা মেরে উল্টো সরকারের ওপর দোষ চাপানোর খালেদা জিয়ার এ কৌশলই প্রমাণ করে তাঁরই উপদেষ্টা রিয়াজ রহমানের ওপর হামলা ও গাড়ি পোড়ানোর ঘটনাও খালেদা জিয়ার নির্দেশেই হয়েছে।

খালেদা জিয়া যতই চেষ্টা করুক সত্যকে মিথ্যা দিয়ে ঢেকে রাখতে পারবেন না।

ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি ও বিমানমন্ত্রী রাশেদ খান মেনন জনকণ্ঠের কাছে দেয়া প্রতিক্রিয়ায় বলেন, মিথ্যাচারের একটা সীমা আছে। উনি (খালেদা জিয়া) অবরোধ চালিয়েই যাবেন আর মানুষ মেরেই যাবেন। বিভিন্ন স্থানে জামায়াত-শিবির-ছাত্রদল-যুবদলের নেতারা বোমা হামলা ও অগ্নিসংযোগ করতে গিয়ে ধরা পড়ে স্বীকার করেছে কাদের নির্দেশ তারা মানুষকে পুড়িয়ে মারছে।

এরপরও খালেদা জিয়া কিভাবে তা অস্বীকার করেন? তিনি বলেন, খালেদা জিয়া জামায়াতকে নিয়ে চলছেন, জামায়াত-বিএনপিকে দিয়ে এ সব নাশকতা চালাচ্ছেন। এত দিন উনি অবরুদ্ধের অবরোধের নাটক করছিলেন। এখন সব অবরোধ তুলে নেয়ার পরও বাড়ি যাচ্ছেন না। এর মাধ্যমে জাতির সামনে পরিষ্কার হয়ে গেছে খালেদা জিয়ার সবকিছুই ছিল শুধু নাটক।

জাসদের সভাপতি ও তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু তাঁর প্রতিক্রিয়ায় বলেন, বিএনপি নেত্রী খালেদা জিয়া মিথ্যাকে শিল্প বানিয়েছেন, আর তাঁর কার্যালয়কে মিথ্যা তৈরির কারখানায় পরিণত করেছেন। এত কিছু নাটক করার পরও উনি সংশোধন হননি।

তাঁর দিলে এতটুকুও রহম হলো না। উনি আন্দোলনের নামে সরকারের বিরুদ্ধে আক্রমণ নয়, দেশবাসীর ওপর আক্রমণ চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন।

মানুষকে পুড়িয়ে মারছেন, আবার তা অস্বীকার করা জাতির সঙ্গে তামাশা ছাড়া আর কিছুই নয়। ক্ষমতার নেশায় উন্মত্ত বিএনপি নেত্রীর হাত থেকে দেশের মানুষকে রক্ষায় সরকারকে আরও কঠোর হওয়া ছাড়া বিকল্প কিছু থাকল না।

আজ গাবতলীতে ১৪ দলের সমাবেশ ॥ রাজধানীর গাবতলীতে আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন ১৪ দলের জনসভা আজ। বিকাল ৩টায় ঢাকা মহানগর ১৪ দলের উদ্যোগে অনুষ্ঠেয় এ জনসভায় প্রধান অতিথি থাকবেন আওয়ামী লীগের সভাপতিম-লীর সদস্য ও কেন্দ্রীয় ১৪ দলের মুখপাত্র স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম। বৈঠকে অন্যান্যের মধ্যে ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি রাশেদ খান মেনন, জাসদের সভাপতি হাসানুল হক ইনু, ঢাকা মহানগর ১৪ দলের সমন্বয়ক মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়াসহ কেন্দ্রীয় ১৪ দলের শীর্ষ নেতৃবৃন্দ বক্তব্য রাখবেন।

প্রকাশিত : ২০ জানুয়ারী ২০১৫

২০/০১/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

প্রথম পাতা



ব্রেকিং নিউজ: